বাবাকে বাঁচানোর আকুতি কুবি শিক্ষার্থী নকিবের   

ঢাকা, সোমবার, ২০ মে ২০১৯ | ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

বাবাকে বাঁচানোর আকুতি কুবি শিক্ষার্থী নকিবের   

কুবি প্রতিনিধি ৯:৩৭ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ২২, ২০১৯

বাবাকে বাঁচানোর আকুতি কুবি শিক্ষার্থী নকিবের   

‘বাবার চিকিৎসার জন্য আমাদের যে জমিটা ছিল, সেটি বিক্রি করেছি। এখন আর কিছু বিক্রি করার বাকি নাই। এই রোগটির চিকিৎসা দীর্ঘমেয়াদি। যে টাকা সংগ্রহ হয়েছে সেটা ছাড়াও আরও পাঁচ-ছয় লাখ টাকা লাগবে। সবার সহযোগিতা ছাড়া বাবাকে বাঁচানো সম্ভব না। একজন সন্তান হিসেবে বাবাকে বাঁচানোর জন্য আপনাদের কাছে হাত পেতেছি। সবার একটু একটু সহযোগিতায় বাবা ফিরতে পারেন।’—ঠিক এভাবেই বাবাকে বাঁচানোর আকুতি জানিয়েছেন কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৩-১৪ শিক্ষাবর্ষের পরিসংখ্যান বিভাগের শিক্ষার্থী নকিব আহমেদ ভূঁইয়া।

নকিবের বাবা নজির আহমেদ ভূঁইয়া অনেক দিন থেকেই থেকে ব্রেইন টিউমারে আক্রান্ত। একমাত্র জমিটি বিক্রি করার পর চিকিৎসার জন্য আরও ৫-৬ লাখ টাকা প্রয়োজন। অচিরেই তার চিকিৎসা করানো না হলে হয়তো তাকে আর বাঁচানো যাবে না। তাই দেশের সর্বস্তরের মানুষ এবং প্রবাসীদের কাছে সহযোগিতার জন্য হাত পেতেছেন নকিব ও তার পরিবার।

নকিবের বাবা বর্তমানে বাংলাদেশ স্পেশালাউজড হসপিটালে অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ রেজাউল হকের তত্ত্বাবধানে চিকিৎসারত রয়েছেন।

নজির আহমেদ ভূঁইয়া কসবা উপজেলার মনিয়ন্দ গ্রামের বাসিন্দা। তিনি ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে চাকরি করতেন। কিন্তু শারীরিকভাবে অসুস্থ হওয়ার কারণে চাকরি ছেড়ে আছেন হাসপাতালে। 

এখন পাঁচ-ছয় লাখ টাকার খরচ বহন করা তার পরিবারের পক্ষে অসম্ভব। হঠাৎ তার পরিবারের ওপরে এত টাকার চাপ আসায় পুরো পরিবার দিশেহারা হয়ে পড়েছে৷ সন্তান হিসেবে কুবি শিক্ষার্থী নকিব দেশের সর্বস্তরের মানুষের কাছে সহযোগিতা কামনা করেছেন।

 এমএ/