‘সীমান্তের কাঁটাতার নয়, মগজের কাঁটাতার সরাতে হবে’

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮ | ৪ আশ্বিন ১৪২৫

‘সীমান্তের কাঁটাতার নয়, মগজের কাঁটাতার সরাতে হবে’

ঢাবি প্রতিনিধি ১০:৩৬ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২১, ২০১৮

‘সীমান্তের কাঁটাতার নয়, মগজের কাঁটাতার সরাতে হবে’

অমর ২১ ফেব্রুয়ারি উপলক্ষে বুধবার দিনভর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে জনসাধারণের উপস্থিতি ছিল এমনিতেই বেশি। কিন্তু এত ভিড়ের মাঝেও বিকেল সাড়ে ৪টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি সংলগ্ন পায়রা চত্বরে হাজারেরও বেশি মানুষের চোখ নিবদ্ধ হয় ঢাকা ও কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে ‘বিশেষ প্রীতিবিতর্ক’ আয়োজনে।

এই প্রীতিবিতর্কে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের তিন বিতার্কিক প্রান্তিক চক্রবর্তী, দীপ পোদ্দার ও গৌরব দত্ত অংশগ্রহণ করেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের তিন বিতার্কিক জিহাদ আল মেহেদী, সোবহানি সৌরভ ও আফ্রিদা জুন নূরাইন উর্মি অংশগ্রহণ করেন।

ভাষা শহীদদের স্মরণ ও বাংলা ভাষার মাধ্যমে বাঙালি সংস্কৃতির সমৃদ্ধি উদযাপনের লক্ষ্যে ঢাকা ইউনিভার্সিটি ডিবেটিং সোসাইটি (ডিইউডিএস) এই ‘বিশেষ প্রীতি বিতর্ক’-এর আয়োজন করে।

বিতর্কের বিষয় ছিলো- কাঁটাতার উত্তর নয়, এক দীর্ঘ প্রশ্ন’।

কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রান্তিক চক্রবর্তী সবাইকে অবাক করে দিয়ে মডারেটরের মাধ্যমে প্রতিপক্ষ টিমকে গোলাপ ফুল উপহার দিয়ে বলেন, এখানেও কাঁটা আছে, তবে কাঁটা দেওয়া উদ্দেশ্য নয়, উদ্দেশ্য সুঘ্রাণযুক্ত গোলাপ ফুল। এভাবে বিতর্কটি এগিয়ে যায়।

ঢাবির টিমও এপাশ থেকে আলোচনা জমিয়ে তোলে। সীমান্তের কাঁটাতারে ফেলানীরা কেন প্রজাপতির মতো উড়তে পারে না, কেন তাদের দেহ আটকে যায় সীমান্তের কাঁটাতারে, কেন যৌথ প্রজোযনা ছবি উদ্যোগ নিলেও এটা এখন যৌথ প্রতারণা ফাঁদ হিসেবে ব্যবহার হচ্ছে? এছাড়াও একদিন ভাষা দিবস পালন করে পরের দিন অহরহ বাংলা-ইংরেজি ব্যবহারের সমালোচনা করেন তারা।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত প্রধান অতিথির বক্তব্যে ঢাবি উপাচার্য অধ্যাপক আখতারুজ্জামান বলেন, দুই দেশের মাঝে কিছু ঐতিহাসিক পার্থক্য হয়ে গিয়েছে। কিন্তু কালচারের ক্ষেত্রে, শিক্ষা গ্রহণের ক্ষেত্রে কোনো বাউন্ডারি না থাকে। আমরা যেন কোনোরকম মনে কাঁটাতার না রাখি।

ডিইউডিএসের প্রেসিডেন্ট আবু বক্কর সিদ্দিক প্রিন্স বলেন, আজকের এই বিপুল দর্শকের উপস্থিতি প্রমাণ করে বিতর্কের প্রতি মানুষের ভালোবাসা। এ ধরনের আয়োজন ভবিষ্যতেও থাকবে বলে তিনি জানান।

উপাচার্য অধ্যাপক আখতারুজ্জামান এ সময় কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের তিন বিতার্কিককে ডিইউডিএসের পক্ষ থেকে সরদার ফজলুল করিমের ‘ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও পূর্ববঙ্গীয় সমাজ’ বইটি উপহার দেন।

ডিইউডিএসের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ নোমান সুমনের সঞ্চালনায়, মডারেটরের দায়িত্ব পালন করেন ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট স্টাডিজ ইনস্টিটিউটের পরিচালক অধ্যাপক ড. মাহবুবা নাসরীন। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ড. সৌমিত্র শেখর।

ওএইচ/এএল