ঢাবিতে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া আহত ৮

ঢাকা, রবিবার, ১৯ আগস্ট ২০১৮ | ৩ ভাদ্র ১৪২৫

ঢাবিতে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া আহত ৮

ঢাবি প্রতিনিধি ১২:৩৭ পূর্বাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১০, ২০১৮

print
ঢাবিতে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া আহত ৮

আঞ্চলিক সংগঠনের নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সূর্যসেন হল এবং জিয়া হল ছাত্রলীগের দু'গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। সংঘর্ষে এই সময় বাঁশ এবং কাঠের আঘাতে  উভয় হলের আহত হয় ৮জন। এদের মধ্যে সবাই বিশ্ববিদ্যালয় মেডিকেলে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছে।

কাল শুক্রবার(৯ ফেব্রয়ারি) সন্ধ্যা সাড়ে  ৬ টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের সম্মুখে এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

আহত ৬ জন হলেন, জিয়া হলের উর্দু বিভাগের আমির হোসেন মুরাদ, বাংলা বিভাগের নাজির হোসেন, আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের জামান ওয়াহিদ, ইংরেজী বিভাগের আব্দুল আলিম, পালি এন্ড বুদ্ধিষ্ট বিভাগের হৃদয়, রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের নাসিম। সূর্যসেন হলের দুইজনের নাম জানা যায়নি।

প্রত্যক্ষদর্শীদের সুত্রে জানা যায়, বিশ্ববিদ্যালয়ের আরসি মজুমদার অডিটোরিয়ামে  ঝালকাঠি জেলার ‘কাঠালি’ উপজেলার ছাত্রকল্যাণের নির্বাচন ছিলো।  সেখানে  জিয়া হল ছাত্রলীগের উপ-আইন সম্পাদক  তৃতীয় বর্ষের সিরাজুল ইসলাম ড্যানির  সাথে প্রোগ্রামে উপস্থিত তুষার নামে মিরপুর বিশ্ববিদ্যালয়েরের একজনের সাথে তর্কাতর্কি হয়। একপর্যায়  ড্যানির মোবাইল ভেঙে ফেলা  হয়। পরে ড্যানির পক্ষ হয়ে  হল থেকে ছাত্রলীগের অন্য কর্মীরা উপস্থিত হলে লেকাচার থিয়েটার নিচে সূর্যসেন হলের শিক্ষার্থীদের  সাথে তর্কাতর্কি হয়। এক পর্যায় সূর্যসেন হল ছাত্রলীগের সিফাত এর নেতৃত্বে প্রায় ৫০ জন, সবুজ চত্বরে উপস্থিত জিয়া হলের উপর হামলা চালায়। এতে উভয় পক্ষের সংঘর্ষে বেধে যায়।  এই সময় ব্যবসায় অনুষদ মাঠে বিল্ডিং এর কাজের জন্য বিভিন্ন ধরনের বাঁশ, কাঠ দিয়ে আঘাত করা হয়। কয়েকজনের মাথা ফেটে যায়। এই সময় জিয়া হলের ৮ জন আহত হয়।

জিয়া হল ছাত্রলীগের উপ-আইন সম্পাদক তৃতীয় বর্ষের সিরাজুল ইসলাম ড্যানি বলেন, উপজেলা সংগঠনের নির্বাচনে বহিরাগত ছাত্রদলের কয়েকজন আসে। তাদের সাথে তর্কাতর্কি হয়। কিন্তু সেখানে সূর্যসেন হলের কয়েকজন আমাকে মারধর করে। কাঠ দিয়ে আঘাত করে। আমাদের হলের অনেকের মাথা ফেটে যায়। ’

আহত জিয়া হল ছাত্রলীগের নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, আমাদের  হলের একজনকে মারধর করে সূর্যসেন হলের কয়েকজন। আমরা সেখানে উপস্থিত হলে আমাদের কাঠ দিয়ে আঘাত করা হয়। আমার পিঠে মাথায় বাঁশ দিয়ে মারা হয়।

সূর্যসেন হল ছাত্রলীগের সভাপতি সরোয়ার হোসেন বলেন, আঞ্চলিক সংগঠনের একটি প্রোগ্রামে হলের জুনিয়ররা ঝামেলায় জড়িয়ে যায়। পরে আমি গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করি।

জানতে চাইলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মোতাহার হোসেন প্রিন্স বলেন, সেখানে আঞ্চলিক একটি সংগঠন প্রোগ্রামে একপর্যায় অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টি হয়। পরে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি এবং আমি গিয়ে মীমাংসা করে দেই।

ওএইচ/আরজি
 

 
.


আলোচিত সংবাদ