যে ক্রীড়া পুরস্কারটা জিততে পারেননি কোনো ফুটবলার!

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৬ আগস্ট ২০১৮ | ১ ভাদ্র ১৪২৫

যে ক্রীড়া পুরস্কারটা জিততে পারেননি কোনো ফুটবলার!

পরিবর্তন ডেস্ক ৪:৩৭ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৭, ২০১৮

print
যে ক্রীড়া পুরস্কারটা জিততে পারেননি কোনো ফুটবলার!

বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় খেলা কোনটি? প্রশ্নটা মাটিতে পড়ার আগেই এসে যাবে উত্তর, ফুটবল। ফুটবল নিয়েই বিশ্ববাসীর মাতামাতিটা বেশি। তারকা ফুটবলারদের প্রশংসাতেই পঞ্চমুখ থাকেন সবাই। গত এক দশক ধরেই যেমন বুদ হয়ে আছে লিওনেল মেসি ও ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোয়। কিন্তু প্রসঙ্গটা যদি হয় লরিয়াস বর্ষসেরা ক্রীড়াবিদের পুরস্কার, বিশ্ব ফুটবল তারকাদের জন্য তা চিরন্তন এক আক্ষেপের নাম। এখনো পর্যন্ত কোনো ফুটবলার কখনো জিততে পারেননি এই ক্রীড়া পুরস্কার!

বিস্ময় শোনালেও কথাটা সত্যি। সুযোগ থাকলে পেলে, ম্যারাডোনা, ইয়োহান ক্রইফ, ফ্রাঞ্জ বেকেনবাওয়াররা জিততে পারতেন কিনা কে জানে। তবে সুযোগ থাকার পরও সাম্প্রতিক অতীতের জিনেদিন জিদান, লুইস ফিগো, রোনাল্ডো, রিভালদো, রোনালদিনহোরা ফুটবলারদের প্রতিনিধি পুরস্কারটা কখনো জিততে পারেননি। পূর্বসূরিদের আক্ষেপটা ঘোচাতে পারেননি হালের মেসি-রোনালদোও।

লরিয়াস বিশ্ব ক্রীড়া পুরস্কারকে বিবেচনা করা হয় খেলাধুলার ‘অস্কার’ হিসেবে। এই পুরস্কারের মাহাত্ম্য কত বড়, সেটা উপরের তথ্যেই স্পষ্ট। হ্যাঁ, বিশ্ব ক্রীড়াঙ্গনের সবচেয়ে বড় এই পুরস্কারের জন্য প্রাথমিকভাবে মনোনয়ন পেয়েছেন অনেক ফুটবলারই। কিন্তু শেষ পর্যন্ত হতাশাই হতে হয়েছে।

২০০০ সালে শুরুর পর প্রতি বছরই এই পুরস্কার দেওয়া হচ্ছে। ফুটবলারদের হতাশায় পুড়িয়ে বরাবরই সাফল্যের হাসি হেসেছে টেনিস, গলফ, অ্যাথলেটিকস, সাইক্লিং ও ফর্মুলা ওয়ান তারকারা।

ফুটবলারদের চিরদিনের এই আক্ষেপ এবার ঘুচিয়ে দেওয়ার সুযোগ আছে ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোর সামনে। ২০১৭ সালের লরিয়াস বর্ষসেরা পুরুষ ক্রীড়াবিদের পুরস্কারের জন্য মনোনয়ন পেয়েছেন রিয়ালের মাদ্রিদের পর্তুগিজ তারকা।

তার সঙ্গে প্রাথমিক মনোনয়ন পেয়েছেন আরও ৫ জন। স্পেনের টেনিস তারকা রাফায়েল নাদাল ও সুইজারল্যান্ডের টেনিস কিংবদন্তি রজার ফেদেরার। বাকি তিনজনই ইংল্যান্ডের। ফর্মুলা ওয়ান তারকা লুইস হ্যামিল্টন, সাইক্লিস্ট ক্রিস ফ্রুম ও দূর পাল্লার দৌড়বিদ মো ফারাহ।

ইতিহাস মোটেও রোনালদোকে অনুপ্রাণিত করছে না। কারণ, লরিয়াস পুরস্কার মানেই টেনিস, গলফ, অ্যাথলেটিকস, ফর্মুলা ওয়ান তারকাদের জয়জয়কার। একবার পুরস্কারটা জিতেছেন একজন সাইক্লিস্টও। ২০০৩ সালে পুরস্কারটা জিতেছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের ডোপপাপী কিংবদন্তি সাইক্লিস্ট ল্যান্স আর্মস্ট্রং।

পুরস্কারটা সবচেয়ে বেশি ৪ বার করে জিতেছেন রজার ফেদেরার ও সর্বকালের দ্রুততম মানব উসাইন বোল্ট। সার্বিয়ান টেনিস তারকা নোভাক জোকোভিচ জিতেছেন ৩ বার। যুক্তরাষ্ট্রের কিংবদন্তি গলফার টাইগার উডস ও জার্মানির ফর্মুলা ওয়ান কিংবদন্তি মাইকেল শুমাখার জিতেছেন ২ বার করে। একবার জিতেছেন রাফায়েল নাদাল ও জার্মানির আরেক ফর্মুলা ওয়ান তারকা সেবাস্তিয়ান ভেতেল।

ইতিহাস তাই রোনালদোর বিপক্ষে। তবে গত মৌসুমের উড়ন্ত পারফরম্যান্স ঠিকই আশাবাদী করছে রোনালদো ভক্তদের। ২০১৭ সালে ফুটবলের সব ব্যক্তিগত বড় পুরস্কারই জিতেছেন রোনালদো। যা দেখে আশাবাদী আসলে দুনিয়ার সব ফুটবলপ্রেমীরাই। মনোনয়ন দৌড়ে ৬ জন থাকলেও মূল লড়াইটা রোনালদো ও রাফায়েল নাদালের মধ্যেই হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

ফুটবলারদের আক্ষেপটা ঘোচাতে পারবেন রোনালদো? উত্তরটা মিলবে আগামী ২৭ ফেব্রুয়ারি মোনাকোতে। সেদিনই মনোনয়ন পাওয়া ৬ জনের মধ্য থেকে যেকোনো একজনের হাতে উঠবে এই পুরস্কার। তবে জিততে পারুন না পারুন, লরিয়াস পুরস্কারের মনোনয়ন পেয়েই উচ্ছ্বসিত রোনালদো।

মনোনয়ন পাওয়ার খবর কানে যেতেই পুরস্কারটিকি ‘ভেরি স্পেশাল’ আখ্যায়িত করে রোনালদো টুইট করেছেন, ‘২০১৭ সালের লরিয়াস বর্ষসেরা ক্রীড়াবিদের পুরস্কারের জন্য মনোনয়ন পেয়ে আমি গর্বিত। একমাত্র রিয়াল মাদ্রিদের অবিশ্বাস্য সাফল্য প্রচেষ্টার কারণেই এটা সম্ভব হয়ে। আমার সতীর্থদের ধন্যবাদ। কারণ, তাদের সাহায্য ছাড়া আমি এটা পেতাম না।’

উল্লেখ্য, লরিয়াসের বর্ষসেরা ক্লাব বা দলের পুরস্কারের দৌড়ে প্রাথমিক মনোনয়ন পেয়েছে রোনালদোর ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদও।

কেআর

 
.


আলোচিত সংবাদ