ভবিষত্যের তারকারা জেতালেন বার্সেলোনাকে

ঢাকা, রবিবার, ১৯ জানুয়ারি ২০২০ | ৬ মাঘ ১৪২৬

ভবিষত্যের তারকারা জেতালেন বার্সেলোনাকে

পরিবর্তন ডেস্ক ৯:৫১ পূর্বাহ্ণ, ডিসেম্বর ১১, ২০১৯

ভবিষত্যের তারকারা জেতালেন বার্সেলোনাকে

মেসি, সুয়ারেজ, বুসকেটস, পিকে, জর্ডি আলবা, মার্ক আন্দ্রে তের স্টেগানদের কোনো দরকারই নেই বার্সেলোনার! এদের ছাড়াও বার্সেলোনা অপ্রতিরোধ্য! কাল রাতে ইন্টারমিলানের বিপক্ষে বার্সেলোনার তরুণ খেলোয়াড়েরা অন্তত প্রমাণ করল সেটাই।

সার্জিও বুসকেটস, জর্ডি আলবা, নেলসন সেমেদোরা চোটের শিকার। এদের সঙ্গে কাল এক নম্বর গোলরক্ষক মার্ক আন্দ্রে তের স্টেগান, জেরার্ড পিকে, সের্গি রবার্তো, আর্থার মেলো, আরতুরো ভিদাল এবং অধিনায়ক লিওনেল মেসিকে বিশ্রাম দেওয়ার বিলাসিতা দেখান বার্সা কোচ আর্নেস্তো ভালভার্দে। আরেক তারকা ফরোয়ার্ড লুইস সুয়ারেজকে রেখেছিলেন বদলি তালিকা। এদের পরিবর্তে মাঠে নামিয়েছিলেন তরুণদের। মানে বার্সার আগামীর তারকাদের। ভবিষ্যতের সেই তারকারাই বার্সাকে এনে দিয়েছে ২-১ গোলের জয়।

ইন্টারমিলানকে তাদের মাঠে গিয়েই উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগ থেকে ছিটকে ফেলল বার্সেলোনার ভবিষ্যতের তারকারা। বার্সা কোচের নিয়মিত একাদশের তারকাদের বিশ্রাম দেওয়ার বিলাসিতার কারণটাও স্পষ্টই। আগের ম্যাচেই নকআউট পর্বের টিকিট নিশ্চিত হয়েছে। নিশ্চিত হয়েছে বার্সার গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হওয়ায়। গতকালকের গ্রুপপর্বের শেষ ম্যাচটি তাই বার্সার জন্য ছিল স্রেফ আনুষ্ঠানিকতার। হারলেও বিশেষ ক্ষতি হতো না।

বার্সা কোচ তাই সিনিয়র খেলোয়াড়দের বিশ্রাম দিয়ে একাদশ সাজিয়েছিলেন তরুণদের দিয়ে। অভিজ্ঞদের মধ্যে একাদশে ছিলেন মাত্র ৪ জন, স্যামুয়েল উমতিতি, ক্লেমেন্ত লেংলেত, ইভান রাকিতিচ ও আতোইন গ্রিজমান। মেসি-সুয়ারেজের অনুপস্থিতিতে আক্রমণভাগে ছিলে গ্রিজমান ও চার্লস পেরেজ। ম্যাচের শেষ দিকে পেরেজের বদলি হিসেবে মাঠে নামেন ‘নতুন মেসি’ আনসু ফাতি। তো তো এই দুই তরুণই কাল বার্সাকে এনে দিয়েছেন জয়। চার্লসের পর দলের জয়সূচক গোলটা করেছেন আনসু ফাতি।

ইন্টারের মাঠ সান সিরোতে সফরকারী বার্সেলোনাই এগিয়ে যায় প্রথমে। ম্যাচের ২৩ মিনিটে দুর্দান্ত এক গোল করে বার্সাকে লিড এনে দেন চার্লস পেরেজ। ৪৪ মিনিটে ইন্টারের হয়ে এই গোলটা অবশ্য শোধ করে দেন বেলজিয়ান ফরোয়ার্ড রোমেলু লুকাকু। ম্যাচের ৮৫ মিনিট পর্যন্তও ১-১ সমতায় ছিল ম্যাচ।

ঠিক তখনই গোলদাতা পেরেজকে তুলে নিয়ে বার্সা কোচ মাঠে নামান আনসু ফাতিকে। মাঠে নামার এক মিনিটের মধ্যেই বাজি মাত করেন গিনি বিসাউ বংশোদ্ভূত স্প্যানিশ এই তরুণ। অসাধারণ এক গোল করে দলকে জেতানোর পাশাপাশি ১৭ বছর বয়সী আনসু ফাতি গড়েছেন চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ইতিহাসে সবচেয়ে কম বয়সী খেলোয়াড় হিসেবে গোল করার রেকর্ড।

ইন্টারমিলানের সামনেও সুযোগ ছিল নকআউটপর্বে পা রাখার। ৫ ম্যাচ শেষে এফ গ্রুপে ইন্টার ও বরুসিয়া ডর্টমুন্ড, দুই দলেরই পয়েন্ট ছিল সমান ৭ করে। তবে গোল ব্যবধানে ইন্টার মিলানই ছিল দুই নম্বরে। ডর্টমুন্ড ছিল তিনে। ফলে কাল জিতলেই নকআউটপর্বের টিকিট পেয়ে যেত ইন্টারমিলান। দ্বিতীয় সারির দল নামিয়ে বার্সেলোনা কোচ ইতালিয়ান ক্লাবটির সুযোগের দরজাটা আরও প্রশস্ত করে দিয়েছিল।

কিন্তু বার্সার আগামীর তারকাদের সামনেই মাথা নত করতে বাধ্য হয়েছে ইন্টারমিলান। হেরে ছিটকে পড়েছে টুর্নামেন্ট থেকে। অন্য ম্যাচে স্লাভিয়া প্রাগকে ২-১ গোলে হারিয়ে গ্রুপ রানার্সআপ হিসেবে নকআউট পর্বে পা রেখেছে বরুসিয়া ডর্টমুন্ড।

ইন্টার মিলানের চেয়েও কাল বেশি হতাশায় পুড়েছে আয়াক্স। কাল মাঠে নামার আগ পর্যন্তও এইচ গ্রুপে পয়েন্ট তালিকার শীর্ষ ছিল গত মৌসুমে চমক দেখানো আয়াক্স। অথচ কাল গ্রুপপর্বের শেষ ম্যাচটিতে হেরে সেই আয়া্ক্স ছিটকে পড়েছে টুর্নামেন্ট থেকে! আয়াক্সের মাঠে গিয়েই আয়াক্সের সর্বনাশ করেছে স্প্যানিশ ক্লাব ভ্যালেন্সিয়া। ডাচ ক্লাবটিকে ১-০ গোলে হারিয়ে নকআউটপর্বে উঠে গেছে ভ্যালেন্সিয়া। গ্রুপ থেকে ভ্যালেন্সিয়ার সঙ্গে নকআউটপর্বে উঠেছে ইংলিশ ক্লাব চেলসিও। যারা কাল নিজেদের মাঠে ২-১ গোলে হারিয়েছে ফরাসি ক্লাব লিলকে।

কাল শেষ রাউন্ডের ম্যাচে জয় পেয়েছে নাপোলি, লিভারপুল এবং বেনফিকাও। নাপোলি নিজেদের মাঠে ৪-০ গোলে হারিয়েছে গেঙ্ককে। ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন লিভারপুল ২-০ গোলে জিতেছে রেড বুল সলসবার্গের মাঠে গিয়ে। বেনফিকা নিজেদের মাঠে রাশিয়ান ক্লাব জেনিত সেন্ট পিটার্সবার্গকে ৩-০ গোলে হারিয়েছে বটে। কিন্তু তাতেও পর্তুগিজ ক্লাবটি নিজেদের ভাগ্য বদলাতে পারেনি। ছিটকে পড়েছে টুর্নামেন্ট থেকে।

কেআর

 

ফুটবল: আরও পড়ুন

আরও