অবশেষে জিতল ব্রাজিল

ঢাকা, শনিবার, ৭ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

অবশেষে জিতল ব্রাজিল

পরিবর্তন ডেস্ক ৯:০৭ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ২০, ২০১৯

অবশেষে জিতল ব্রাজিল

জুন-জুলাইয়ে ঘরের মাঠে দাপটের সঙ্গে কোপা আমেরিকার নবম শিরোপা জয়। এরপরই যেন কোন অশুভ শক্তি ভর করে ব্রাজিলিয়ানদের মাথায়। জয়ের সূত্রই ভুলে যায় ব্রাজিল! টানা ৫ ম্যাচ জয়হীন কাটানোর পর অবশেষে সেই সূত্র খুঁজে পেল ৫ বারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা। দক্ষিণ কোরিয়াকে ৩-০ গোলে হারিয়ে তিতের দল পেল ভুলে যাওয়া জয়ের স্বাদ!

সংযুক্ত আরব আমিরাতের আবু ধাবির শেখ জায়েদ স্টেডিয়ামে ব্রাজিলের এই খরা কাটানো জয়ের নায়ক তিনজন। লুকাস পাকুয়েতা, ফিলিপে কুতিনহো ও দানিলো।

কোপার শিরোপা জয়ের পর ব্রাজিলের আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচের মিশন শুরু হয় কলম্বিয়ার বিপক্ষে ২-২ গোলের ড্র দিয়ে। এরপর পেরুর কাছে ১-০ গোলের হার। এই হতাশা দীর্ঘায়িত করতে আফ্রিকার দুই দেশ সেনেগাল এবং নাইজেরিয়ার সঙ্গেও ড্র করেছে তিতের দল। সর্বশেষ ৪ দিন আগে চিরশত্রু আর্জেন্টিনার কাছে হারতে হয়েছে ১-০ গোলে।

টানা এই ব্যর্থতায় ব্রাজিলিয়ানদের সামর্থ নিয়েই প্রশ্ন উঠে গিয়েছিল। অবশেষে সেই প্রশ্নের উত্তর দিলেন পাকুয়েতা, কুতিনহো, দানিলোরা। আবুধাবিতে নেইমারবিহীন ব্রাজিল ম্যাচের শুরু থেকেই প্রতিপক্ষের ওপর চাপ সৃষ্টি করে খেলতে থাকে। কোরিয়াও তাদের ‘গতি-অস্ত্র’ ব্যবহার করে বারবার কাঁপিয়েছে ব্রাজিলের রক্ষণ। তবে ফসল ঘরে তুলে ব্রাজিলই।

ম্যাচের ১০ মিনিটেই ব্রাজিলকে ভুলে যাওয়া জয়ের পথ খুলে দেন পাকুয়েতা। রেনান লোদির দুর্দান্ত ক্রস থেকে পাওয়ারফুল হেডে বল জালে জড়ান তিনি।

গোল খেয়ে কোরিয়ানরা আরও তেতে ওঠে। একের পর এক আক্রমণও করেছে তারা। নিয়েছে শটও। কিন্তু গোলের মুখ তারা খুলতে পারেনি। উল্টো ৩৬ মিনিটে ব্রাজিলই পেয়ে যায় দ্বিতীয় গোল। বক্সের ঠিক মাথায় ফ্রি কিক পায় তিতের দল। তা থেকে অসাধারণ এক গোল করে ব্যবধান ২-০ করেন বার্সেলোনা থেকে বায়ার্ন মিউনিখে ধারে খেলতে যাওয়া কুতিনহো।

কোপা আমেরিকায় নিজেদের প্রথম ম্যাচে গোল করেছিলেন তিনি। এরপর এটাই জাতীয় দলের হয়ে তার প্রথম গোল। এই ২-০ গোলের লিড নিয়েই বিরতিতে যায় ব্রাজিল। দ্বিতীয়ার্ধে পেয়েছে আরও একটি। ৬০ মিনিটে বুলেট গতিরে এক শটে ব্যবধান ৩-০ করেন জুভেন্টাসের ডিফেন্ডার দানিলো। ২৭ বছর বয়সী ডিফেন্ডারের এটাই ব্রাজিল জাতীয় দলের হয়ে প্রথম গোল।

দানিলোর এই গোলের মধ্যদিয়ে ব্রাজিলের জয়ও নিশ্চিত হয়ে যায়। ম্যাচের বাকি সময়ে শত চেষ্টা করেও দক্ষিণ কোরিয়া কোনো গোল করতে পারেনি।

এ বছরে এটাই ছিল ব্রাজিলের শেষ ম্যাচ। মানে টানা হতাশার পরও সেলেসাওরা বছরটা শেষ করল জয়ের সুবাস গায়ে মেখেই। ব্রাজিল নিজেদের পরের ম্যাচটি খেলবে আগামী বছরের মার্চে, ২০২২ বিশ্বকাপের বাছাইপর্বে। প্রতিপক্ষ কে, সেটা এখনো নির্ধারণ হয়নি। প্রতিপক্ষের নাম জানা যাবে দক্ষিণ আমেরিকা মহাদেশের বিশ্বকাপ বাছাইয়ের সূচি ঘোষণার পর।

এশিয়ার দেশে দক্ষিণ কোরিয়ারও বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের মিশন শুরু হবে মার্চে। তবে তার আগে আগামী ডিসেম্বরেই পূর্ব এশিয়ান টুর্নামেন্টে খেলবে কোরিয়ানরা।

কেআর

 

 

ফুটবল: আরও পড়ুন

আরও