৯-১ জয়ে এত্তোগুলো রেকর্ড গড়ল ইতালি

ঢাকা, রবিবার, ৮ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

৯-১ জয়ে এত্তোগুলো রেকর্ড গড়ল ইতালি

পরিবর্তন ডেস্ক ১০:১৪ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ১৯, ২০১৯

৯-১ জয়ে এত্তোগুলো রেকর্ড গড়ল ইতালি

ক্রিকেটকে বলা হয় রেকর্ডের খেলা। গতকাল রাতে ইতালি প্রমাণ করল, কথাটা ফুটবলেও খাটে। ফুটবলও রেকর্ডের খেলা। কাল ইউরো বাছাইয়ের এক ম্যাচেই যে ‘দৈত্য’ ইতালি গড়েছে এত্তোগুলো রেকর্ড। রেকর্ডময় ম্যাচে আজ্জুরিরা ৯-১ গোলে ভাসিয়েছে আর্মেনিয়াকে।

বিশ্ব ফুটবলে ইতালি দৈত্য’ই। তবে সাম্প্রতিক অতীতে নিজেদের ‘দৈত্য’ মূর্তি থেকে ইতালি হয়ে গিয়েছিল বিড়াল! এতোটাই বাজে সময়ের মুখোমুখি হয়েছিল যে, ২০১৮ বিশ্বকাপে খেলতেই পারেনি। পেরোতে পারেনি বাছাইপর্বের বেড়া। ইতালিয়ানরা সেই হতাশা-দুঃখ এবার ভুলেছে ইউরোর বাছাইপর্বে। দুই ম্যাচ বাকি থাকতেই নিশ্চিত করে ফেলে ২০২০ ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপের মূলপর্বের টিকিট।

টিকিট নিশ্চিত হওয়ার পরও তাদের জয় ক্ষুধা মেটেনি। ক্ষুধাটা আরও বেড়েছে। আজ্জুরিরা সেটা প্রমাণ করল বাছাইপর্বের শেষ দুই ম্যাচে। আগের ম্যাচে বসনিয়ার বিপক্ষে ৩-০ গোলে জেতা ইতালিয়ানরা কাল তো মাঠে বয়ে দিল গোল-বৃষ্টিই। ৯-১ গোলের জয় সেই স্বাক্ষই দিচ্ছে।

প্রতিপক্ষ হিসেবে আর্মেনিয়া দুর্বলই। তাই বলে একটা দলকে ৯ গোল দেওয়াটা চাট্টিখানি কথা নয়। কিন্তু জয়ের ক্ষুধায় ছটফট করা রবার্তো মানচিনির দল কাল কঠিন এই কাজটা করেছে খুব সহজে। দলের সবাই মিলে মেতে উঠেছিল রেকর্ড গড়ায় খেলায়।

নিজেদের মাঠের এই ম্যাচে ইতালির হয়ে মোট ৭ জন গোল করেছেন। ইতালির ফুটবল ইতিহাসে এই প্রথম এক ম্যাচে ৭ জন গোল করলেন। রেকর্ডের পাতায় নাম লেখাতে আজ্জুরিদের হয়ে কাল গোল করেছেন সিরো ইমোবাইল, নিকোলো জানিওলো, নিকোলো বারেল্লা, অ্যালেসিও রামাগনলি, জর্জিনহো, রিকার্ডো ওরসোনিলি ও ফেডেরিকো কিয়েসা। এর মধ্যে সিরো ইমোবাইল ও নিকোলো জানিওলো করেছেন দুটি করে গোল। বাকি ৫ জনে করেছেন একটি করে। যার মধ্যে রিকার্ডো ওরসোনিলি গোল করেছেন নিজের অভিষেকেই।

এই জয়ের মধ্যদিয়ে এবারের ইউরোর বাছাইপর্বের সব ম্যাচেই জিতল ইতালি। যা রেকর্ড। শুধু ইউরোর বাছাইপর্বে নয়, বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব মিলিয়েও ইতিহাসে এই প্রথম কোনো এক টুর্নামেন্টের বাছাইপর্বে সবগুলো ম্যাচ জিতল ইতালি।

কালকের এই জয়ের মধ্যে নিজেদের ফুটবল ইতিহাসে টানা জয়ের রেকর্ডটিও নতুন করে লিখল মানচিনির দল। সব মিলে কালকের এই জয়টা ছিল আন্তর্জাতিক ফুটবলে ইতালির টানা ১১তম জয়। মানচিনির শিষ্যরা আগের ম্যাচেই দেশের হয়ে টানা জয়ের রেকর্ডটা গড়েছিল। জিতেছিল টানা ১০ ম্যাচে। কাল টানা জয়ের সংখ্যাটা বানিয়ে ফেলল ১১।

শুধু এই রেকর্ডগুলোই নয়। এ নিয়ে নিজেদের ফুটবল ইতিহাসে চতুর্থ বারের মতো এক ম্যাচে ৯ গোল করল ইতালি। তবে এটাই ইতালির সবচেয়ে বড় জয় নয়। আন্তর্জাতিক ম্যাচে ৪ বারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের সবচেয়ে ইতিহাসে বড় জয়টি ৯-০ গোলের। এই কীর্তি তারা গড়েছে দুবার।

১৯২০ সালে এক প্রীতি ম্যাচে ফ্রান্সকে হারিয়েছিল ৯-০ গোলে। এরপর ১৯৪৮ সালের অলিম্পিক গেমসে যুক্তরাষ্ট্রকে হারিয়েছিল ৯-০ গোলে। কালও ৯-০ গোলের জয়ের রেকর্ডটাই স্পর্শ করতে যাচ্ছিল ইতালি। কিন্তু শেষ দিকে আর্মেনিয়ার একমাত্র গোলটি করে তাতে বাধ সাধেন এডগার বাবায়ান। এছাড়া আর একবারই ম্যাচে ৯ বা তার বেশি গোল করেছে ইতালি। ১৯২৮ সালের অলিম্পিক গেমসে মিশরকে হারিয়েছিল ১১-৩ গোলে।

ইতালি কাল নাম লিখিয়েছে রেকর্ডের আরও একাধিক পাতায়। এ নিয়ে ইতিহাসের চতুর্থ দল হিসেবে ইউরো বাছাইয়ের এক ম্যাচে ৯ গোল করার কৃতিত্ব দেখাল কোনো দল। তবে ইউরো বাছাইয়ে সর্বোচ্চ জয়ের রেকর্ডটি থেকে অনেকটাই পিছিয়ে ইতালি। ইউরো বাছাইয়ে সবচেয়ে বড় জয়টি জার্মানির দখলে। ২০০৮ সালের ইউরো বাছাইয়ে পুঁচকে সান ম্যারিনোকে জার্মানি ভাসিয়েছিল ১৩-০ গোলে।

২০১৮ সালের বিশ্বকাপে খেলতে না পারার হতাশা মুছতে ইতালিয়ানরা এবার কতটা আগ্রাসী ছিল, সেটি একটি তথ্যেই স্পষ্ট। বাছাইপর্বের ১০ ম্যাচে তারা গোল করেছে ৩৭টি। বিপরীতে হজম করেছে মাত্র ৪টি গোল। তার চেয়েও বড় কথা দ্বিতীয় স্থানে থাকা ফিনল্যান্ডের চেয়ে ১২ পয়েন্টে এগিয়ে থেকে বাছাইপর্ব শেষ করল তারা।

ইতালিয়ানদের বাতাস গায়ে মেখে ইউরো বাছাইয়ে কাল বড় জয় পেয়েছে সুইজারল্যান্ড এবং স্পেনও। জিব্রাল্টারকে ৬-১ গোলে হারিয়ে ইউরোর চূড়ান্তপর্বের টিকিট কেটেছে সুইজারল্যান্ড। সুইসদের সঙ্গে কাল চূড়ান্তপর্বের টিকিট কেটেছে ডেনমার্কও। তবে ডেনিশরা কাল ১-১ গোলে ড্র করেছে আয়ারল্যান্ড প্রজাতন্ত্রের বিপক্ষে। আগেই মূলপর্বের টিকিট কাটা স্পেন কাল বাছাইপর্বে নিজেদের শেষ ম্যাচে ৫-০ গোলে হারিয়েছে রোমানিয়াকে।

কেআর

 

ফুটবল: আরও পড়ুন

আরও