মেসিকে তীর দাগালেন ব্রাজিল অধিনায়ক

ঢাকা, রবিবার, ৮ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

মেসিকে তীর দাগালেন ব্রাজিল অধিনায়ক

পরিবর্তন ডেস্ক ১০:২৩ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ১৭, ২০১৯

মেসিকে তীর দাগালেন ব্রাজিল অধিনায়ক

ব্রাজিলিয়ানদের পক্ষ থেকে জবাব আসবে, এটা অনুমিতই ছিল। মাঠে মেসি নিজের যে অগ্নিমূর্তি রূপ দেখিয়েছেন, তা দেখে ব্রাজিলিয়ানরা চুপ থাকতে পারে? সেলেসাওদের পক্ষ থেকে তাই জবাবটা এল দ্রুতই। দলের পক্ষ থেকে মেসিকে নগদ জবাবটা দিয়ে দিলেন পরশুর ম্যাচে ব্রাজিলকে নেতৃত্ব দেওয়া বর্ষিয়ান ডিফেন্ডার থিয়াগো সিলভা। তিনি পাল্টা তীর ছুঁড়ে বিদ্ধ করলেন মেসিকে।

সিলভার স্পষ্ট অভিযোগ, মেসি পরশুর ‘সুপারক্লাসিকো’টা নিজের নির্দেশ মতো চালাতে চেয়েছেন! নিজের তারকাখ্যাতিকে কাজে লাগিয়ে মেসি রেফারিকে প্ররোচিত করে একের পর এক সিদ্ধান্ত নিজেদের পক্ষে নিয়েছেন। মানে মেসিকে তোপ দাগাতে গিয়ে ম্যাচের রেফারিকেও বিদ্ধ করেছেন ব্রাজিল অধিনায়ক। স্পষ্টই বুঝিয়ে দিয়েছেন, মেসির প্রত্যক্ষ প্ররোচনায় পরশুর ম্যাচটিতে রেফারি নির্লজ্ব পক্ষপাতিত্ব করেছেন।

পরশু ম্যাচ শেষেই মেসির বিরুদ্ধে ফিফার কাছে অভিযোগ করেছেন ব্রাজিল কোচ তিতে। নিজের মুখে আঙুল দিয়ে মেসি ব্রাজিল কোচকে ‘মুখ বন্ধ’ রাখার হুমকি দিয়েছেন। চোখে চোখ রেখে গরম মেজাজে কথা বলেছেন। প্রতিপক্ষ দলের এক খেলোয়াড়ের এমন আচরণ মোটেই ভালো লাগানি ব্রাজিল কোচের। ম্যাচ শেষেই তাই মেসির বিরুদ্ধে নালিশ করেন তিনি। ব্রাজিল কোচ এটাও দাবি করেছেন, মেসির বিরুদ্ধে অভিযোগ করে ঠিক কাজটাই করেছেন তিনি।

তিতে কাজটা ঠিক করেছেন, তা জানা যাবে তার অভিযোগের প্রেক্ষিতে কর্তৃপক্ষ মেসির বিরুদ্ধে কী পদক্ষেপ নেয় তা দেখার পর। তবে ফিফার সেই পদক্ষেপ দেখার জন্য অপেক্ষা করার ধৈর্য সিলভার ছিল না। নিজ কোচকে হুমকি দেওয়া এবং মাঠে অন্যায় পথে হাঁটার অপরাধে মেসির বিচার নিজের মতো করেই করলেন। নিজের পছন্দ সই শব্দ চয়নের মাধ্যমে মেসিকে দাগালেন তোপ। তুললেন কাঠগড়ায়।

শুধু পরশুর ব্রাজিল-আর্জেন্টিনার ম্যাচটিতে নয়, সিলভার দাবি স্প্যানিশ লা লিগার ম্যাচেও মেসি রেফারিদের প্ররোচিত করে একের পর এক সিদ্ধান্ত নিজেদের পক্ষে নেন। পরশুর ম্যাচ শেষের সংবাদ সম্মেলনে সিলভা স্পষ্ট কণ্ঠেই বলেছেন, ‘সে (মেসি) ম্যাচটাকে নিজের মতো চালাতে চেয়েছে। ম্যাচটিতে সে দুটো মারাত্মক ফাউল করেছে। সিদ্ধান্ত নিজেদের পক্ষে নিতে রেফারির সঙ্গে তর্ক করেছে। কিন্তু রেফারি তার বিরুদ্ধে কোনো পদক্ষেপই নেননি। এমনকি তাকে কার্ডও দেননি। রেফারিরা ম্যাচটিতে এক দলের খেলোয়াড়দের প্রতি নিজেদের মুগ্ধতা দেখিয়েছে!’

অধিনায়ক সিলভার মতো ব্রাজিল কোচ তিতেও মনে করেন, ম্যাচে অন্তত দুবার কার্ড পাওয়ার মতো ফাউল করেছেন মেসি। এমনকি তিতে ম্যাচ চলাকালে মেসিকে কার্ড দেওয়ার জন্য রেফারির কাছে আবেদনও করেন। সে কারণেই ব্রাজিল কোচের উপর ক্রদ্ধ হন মেসি। নিজের মুখে আঙুল দিয়ে মেসি তিতেকে মুখ বন্ধ রাখার প্রতীকি হুমকি দেন।

রেফারিকে অন্যায়ভাবে প্ররোচিত করা মেসির স্বভাব জানিয়ে সিলভা বলেছেন, ‘সে পুরো ম্যাচেই রেফারিদের দিকে তাকিয়ে একের পর এক ফ্রি কিক এবং বিপদজনক সীমানায় থ্রো-ইন আদায় করে নিয়েছে। সে এমনটা সব সময়ই করে। স্পেনের খেলোয়াড়দের সঙ্গে আমরা কথা বলেছি। তারাও একই কথা বলেছে। রেফারিদের প্রভাবিত করে সে সব সময় ম্যাচটা নিজের মতো করে নিয়ন্ত্রণ করে।’

তবে তারকাখ্যাতি থাকলেও মেসি এই কাজটা যে উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগে করতে পারেন না, সেটিও জানিয়েছেন সিলভা, ‘হ্যাঁ, উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগে সে এই অন্যায় সুবিধাটা পায় না। কারণ, সেখানকার রেফারিরা খুবই কঠিন। লক্ষ্য করে দেখবেন, চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ম্যাচে সে রেফারিদের প্ররোচিত করে ম্যাচ নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করেও না। কিন্তু সাধারণ ম্যাচগুলোতে (লা লিগা এবং আন্তর্জাতিক ম্যাচ) রেফারিরা সব সময় তার পক্ষে বড় বড় সিদ্ধান্ত নেন। কারণ, এখানকার রেফারিরা তাকে খুব পছন্দ করে।’

পরশু দুই চিরশত্রুর লড়াইয়ে নেইমার ছিলেন না। সিলভার দাবি, নেইমারের না থাকাটাই ম্যাচে তাদের পিছিয়ে রেখেছিল, ‘ম্যাচটিতে আমাদের ব্রাজিল দলের জন্য বড় ক্ষতিটা ছিল, একাদশে নেইমার ছিল না।’

উল্লেখ্য, পরশু শুক্রবার সৌদি আরবে এক আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচে মুখেমুখি হয়েছিল ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনা। রিয়াদের কিং সউদ ইউনিভার্সিটি স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ম্যাচটিতে আর্জেন্টিনা মেসির একমাত্র গোলে হারিয়েছে ব্রাজিলকে।

কেআর

 

ফুটবল: আরও পড়ুন

আরও