ব্রাজিলকে ১-২ গোলে হারাবে আর্জেন্টিনা!

ঢাকা, রবিবার, ৮ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

ব্রাজিলকে ১-২ গোলে হারাবে আর্জেন্টিনা!

পরিবর্তন ডেস্ক ২:৩৯ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৫, ২০১৯

ব্রাজিলকে ১-২ গোলে হারাবে আর্জেন্টিনা!

আজ শুক্রবার রাতে সৌদি আরবে মুখোমুখি হচ্ছে বিশ্ব ফুটবলের অন্যতম দুই পরাশক্তি ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনা। রিয়াদের কিং সউদ ইউনিভার্সিটি স্টেডিয়ামে ম্যাচটা শুরু হবে বাংলাদেশ সময় রাত ১১টায়। তার আগে বিশ্ব ফুটবলপ্রেমীদের মনে একটাই প্রশ্নে, দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীর দ্বৈরথে আজ জিতবে কে?

ম্যাচ শুরুর আগে জয়ী দলের নাম বলে দেওয়াটা কঠিন। ব্রাজিল-আর্জেন্টিনার ম্যাচে তো কাজটা আরও বেশি কঠিন। তারপরও বাজিকরদের ওপর আস্থা রেখে আপনি বিজয়ী ঘোষণা করতে পারতেন আর্জেন্টিনাকে! শুধু মেসির আর্জেন্টিনা জিতবে তাই নয়, বাজিকররা জয়ের ব্যবধানটাও বলে দিয়েছে। ভবিষ্যদ্বাণী করেছে আজ সৌদিতে আর্জেন্টিনা ২-১ গোলে হারাবে ব্রাজিলকে।

বাজিকরদের ভবিষ্যদ্বাণী বেশির ভাগ ম্যাচেই মেলে না। তবে কখনো কখনো ফলেও যায়। আজও বাজিকরদের ভবিষ্যদ্বাণী ফলবে নাকি মিথ্যা বলে প্রমাণিত হবে, বলবে সময়। তবে আর্জেন্টাইন সমর্থকেরা একটু তো খুশি হতেই পারেন।

আর্জেন্টিনার পক্ষে ২-১ গোলের ফল ধরেই বাজির দর ঠিক করেছে বাজিকরেরা। বিশ্বজুড়ে তাদের শিকারীরাও এই ফলের ওপরই বাজি ধরতে ঝাপিয়ে পড়েছে। দুই দলের ওভার-অল এবং সাম্প্রতিক পরিসংখ্যান, দুটোই বাজিকরদের এই ভবিষ্যদ্বাণীর দিকে তাকিয়ে বাঁকা হাসি হাসছে।

দুই দলের সর্বশেষ ৫ সাক্ষাতের ৩টিতেই জিতেছে ব্রাজিল। জিতেছে সর্বশেষ দুই ম্যাচেই। বিপরীতে আর্জেন্টিনা সর্বশেষ ৫ সাক্ষাতে জিতেছে মাত্র একটিতে। সব মিলে ১১১ বারের মোকাবিলাতেও জয় পাল্লা ব্রাজিলের ভারি। ৫ বারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা প্রতিবেশিদের সঙ্গে ১১১ বারের সাক্ষাতে জিতেছে ৪৬ বার। বিপরীতে আর্জেন্টিনা জিতেছে ৩৯ বার।

সর্বশেষ ৫ সাক্ষাতে ব্রাজিলিয়ানরা গোল করেছে ৭টি, বিপরীতে আর্জেন্টাইনরা মোটে ২টি। হাতের কাছে এমন পরিসংখ্যান থাকারও বাজিকররা আজ আর্জেন্টিনার পক্ষে ভবিষ্যদ্বাণী করার কারণ নেইমার। বর্তমানে ব্রাজিল দলের সবচেয়ে বড় তারকা নেইমার। অথচ চিরশত্রুদের বিপক্ষে আজ ব্রাজিলকে নামতে হচ্ছে পিএসজির এই তারকাকে ছাড়াই। চোটের কারণে ব্রাজিল দলেই নেই নেইমার।

নিশ্চিতভাবেই এটা ব্রাজিলিয়ানদের জন্য বড় হতাশার কারণ। আর্জেন্টিনা শিবিরে ঠিক উল্টো বাতাস। দীর্ঘ ৩ মাসের নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে দলে ফিরেছেন অধিনায়ক লিওনেল মেসি। ফিরেছেন আরেক অভিজ্ঞ ফরোয়ার্ড সার্জিও আগুয়েরোও। এই দুজনকে ফিরে পেয়ে আর্জেন্টাইনরা উচ্ছ্বসিত। কোচ লিওনেল স্কালোনি অনেকটাই নির্ভার।

ব্রাজিল দলে নেইমারের অনুপস্থিতি আর আর্জেন্টিনায় মেসির অন্তর্ভুক্তিই বাজিকরদের ওই ভবিষ্যদ্বাণীতে উৎসাহিত করেছে। যদিও অতীত ইতিহাস এটাও বলছে, ব্রাজিল-আর্জেন্টিনার ফুটবল দ্বৈরথের ফল আগাম অনুমান করতে যাওয়াটা স্রেফ বোকামি। দল যেমনই হোক, দুই দলের ইতিহাস-ঐতিহ্যের ধারায় মাঠের লড়াইটা আগুন-তপ্তই হয়। বেশির ভাগ সময়ই বোদ্ধাদের আগাম গবেষণালব্ধ ভবিষ্যদ্বাণী মেলে না।

তবে এবার বোদ্ধারাও আর্জেন্টিনাকে কিছুটা হলেও ফেভারিট মানছে। সেটা মূলত দুই কারণে। নেইমার-মেসির বিপরীতমুখীতার প্রথম কারণটা তো আগেই বলা হয়েছে। দ্বিতীয় কারণ হলো, গত জুন-জুলাইয়ে নিজেদের ঘরের মাঠে কোপা আমেরিকার শিরোপা জয়ের পর ব্রাজিল যেন তাদের ছন্দ হারিয়ে ফেলেছে।

কোপার শিরোপা জয়ের পর খেলা ৪ ম্যাচের মধ্যে একটিতেও জিততে পারেনি তিতের ব্রাজিল। ৪ ম্যাচের ৩টিতেই ড্রর হতাশায় পোড়া ব্রাজিল অন্য ম্যাচটিতে হেরেছে। সেটিও কোপার ফাইনালে ৩-১ গোলে উড়িয়ে পেরুর কাছে, ১-০ গোলে। নেইমার থাকা অবস্থাতেই ব্রাজিলের এই করুণ দশা। সেখানে আজ শক্তিশালী আর্জেন্টিনার বিপক্ষে নেইমারও থাকছেন না।

সাম্প্রতিক পারফরম্যান্সে আর্জেন্টিনা যেন ঠিক ব্রাজিলের উল্টো অবস্থানে। কোপার শিরোপা স্বপ্নভঙ্গের হতাশার পর আর্জেন্টিনাও ৪টি ম্যাচ খেলেছে। মেসি-আগুয়েরোকে ছাড়াই তার দুটিতে জিতেছে আলবিসেলেস্তিরা। বাটি দুটিতে ড্র করেছে। মানে হারের তেতো স্বাদ গিলতে হয়নি স্কালোনির দলকে। প্রাপ্ত জয় দুটিও আত্মবিশ্বাসের পাত্র টইটুম্বুর করার মতোই।

মেক্সিকোকে ৪-০ গোলে উড়িয়ে দেওয়ার পর মেসিবিহীন আর্জেন্টিনা ইকুয়েডরকে ভাসিয়েছে ৬-১ গোলে। এছাড়া জার্মানির মাঠে গিয়ে পরাশক্তি জার্মানির বিপক্ষে ২-২ গোলে ড্র করেছে। জার্মানির মাটিতে এই ড্রটাও আর্জেন্টাইনদের কাছে ছিল জয়েরই সমান। হতাশা বলতে, চিলির বিপক্ষে গোলশূন্য ড্র’টা।

পরিসংখ্যান বলছে, মেসিকে গোল-মেশিন মেসি-আগুয়েরোকে ছাড়াই গত ৪ ম্যাচে ১২ গোল করেছে আর্জেন্টিনা। ম্যাচ প্রতি গড়ে গোল করেছে ৩টি করে। আজ মেসি-আগুয়েরোকে পেয়ে আরও বেশি গোলের স্বপ্ন দেখতেই পারে আর্জেন্টাইনরা। গোল বন্যা না ঘটাতে পারলেও বাজিকরদের রায় মেনে ২-১ গোলের জয়ের স্বপ্নটা তো ভালোভাবেই দেখতে পারে আর্জেন্টাইন সমর্থকেরা! নাকি?

কেআর

 

 

ফুটবল: আরও পড়ুন

আরও