বেনজেমার জোড়া গোলে ‘এইবার’ জয় করল রিয়াল

ঢাকা, রবিবার, ৮ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

বেনজেমার জোড়া গোলে ‘এইবার’ জয় করল রিয়াল

পরিবর্তন ডেস্ক ১০:৫৭ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ১০, ২০১৯

বেনজেমার জোড়া গোলে ‘এইবার’ জয় করল রিয়াল

বুধবার গালাতাসারাইয়ের বিপক্ষে রিয়াল মাদ্রিদের বড় জয়ে ‘পারফেক্ট হ্যাটট্রিক’ করেন ব্রাজিলিয়ান তরুণ রদ্রিগো। অথচ ম্যাচ শেষে কোচ জিনেদিন জিদান মেতে উঠেন এক গোল করা করিম বেনজেমার প্রশংসায়। উচ্ছ্বসিত হয়ে জিদান বেনজেমাকে তুলনা করেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর সঙ্গে! সেই বেনজেমা কাল নিশ্চয়্ আরও কোচের কাছ থেকে আরও বেশি প্রশংসা পেয়েছেন। কাল যে ফরাসি তারকা করেছেন জোড়া। তাতে রিয়ালও পেয়েছে বড় জয়। এইবারের মাঠে গিয়ে এইবারকে হারিয়েছে ৪-০ গোলে।

গত শনিবার লা লিগায় ঠিক আগের ম্যাচটিতেই রিয়াল বেটিসের বিপক্ষে ড্র হতাশায় পুড়তে হয়েছিল রিয়ালকে। সেটাও নিজেদের ঘরের মাঠ সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে। কাল তাই এইবারের মাঠ এস্তাদিও মিউনিসিপাল ডি ইপুরুয়ায় রিয়ালের জয়ের তাড়নাটা একটু বেশিই ছিল। হতাশা মুছে ফেলার মিশন বলে কথা।

জিদানের শিষ্যরা ম্যাচটা শুরুও করে জয়ের ক্ষুধা মেটানোর তীব্র তাড়না নিয়েই। ম্যাচের শুরুতেই প্রতিপক্ষ এইবারকে চেপে ধরে রিয়াল। একের পর এক আক্রমণ গড়ে কাঁপিয়ে দেয় এইবারের রক্ষণ দেয়াল। বেনজেমার পায়ের জাদুতে ফলও পায় দ্রুত। ম্যাচের ১৭ মিনিটেই বাঁ-পায়ের জোরালো শটে রিয়ালকে লিড এনে দেন ফরাসি তারকা।

বেনজেমার এই গোলের উৎসবের রেশ কাটার আগেই আবারও উৎসবের উপলক্ষ পেয়ে যায় রিয়াল। ২০ মিনিটে পেনাল্টি থেকে ব্যবধান ২-০ করেন অধিনায়ক সার্জিও রামোস। বুধবার গালাতাসারাইয়ের বিপক্ষে রদ্রিগো দুই গোল করে হ্যাটট্রিকের সামনে দাঁড়িয়ে থাকা অবস্থাতেও পেনাল্টি শট নেন রামোস। তা থেকে গোল করলেও রিয়াল অধিনায়ক হালকা সমালোচিত হন রদ্রিগোকে হ্যাটট্রিক করার সুযোগ না দেওয়ায়! যদিও শেষ পর্যন্ত ঠিকই হ্যাটট্রিক করে ইতিহাস গড়েন রদ্রিগো।

তবে হালকা সেই সমালোচনা রামোস যে কানে তুলেননি, গতকালের ম্যাচেই তার প্রমাণ মিলল। কালও দলের পাওয়া পেনাল্টিটা নিয়েছেন তিনিই। অথচ পেনাল্টিটা বেনজেমা নিতে পারলে তার হ্যাটট্রিকটা হয়ে যেতে পারত। কিন্তু রামোস সতীর্থ বেনজেমাকে সেই সুযোগ দেননি। যদিও রামোসের পেনাল্টির ইগে বেনজেমা করেছিলেন এক গোল। ফরাসি তারকা নিজের দ্বিতীয় গোলটি করেছেন রামোসের পেনাল্টি গোলের ৮ মিনিটে পরে। ম্যাচের ২৮ মিনিটে।

প্রথমার্ধে এই ৩-০ গোলেই এগিয়ে থাকা রিয়াল দ্বিতীয়ার্ধে করেছে আরও একটি গোল। ৬২ মিনিটে যে গোলটি করেছেন ফেদে ভালভার্দে। জার্মান মিডফিল্ডার টনি ক্রুসের পরিবর্তে কাল যাকে শুরুর একাদশে নামিয়েছিলেন কোচ জিদান। স্পেনের তরুণ মিডফিল্ডার কোচের আস্থার প্রতিদান দিয়েছেন দারুণ এক গোল করে।

রিয়ালের জয়ের ব্যবধানটা আরও বড় হতে পারত। বেনজেমারও হতে পারত হ্যাটট্রিক। কিন্তু নিজের হ্যাটট্রিকের সুযোগ বেনজেমা নিজেই হাতছাড়া করেছেন। শেষ দিকে অন্তত দুবার সুযোগ পেয়েছেন তিনি। কিন্তু সুযোগগুলো কাজে লাগাতে পারেননি। গোলের সুযোগ পেয়েছেন ভিনিসিয়াস জুনিয়র, এডেন হ্যাজার্ডরাও। কিন্তু তারাও সুযোগ গুলো নষ্ট করেছেন হেলায়-ফেলায়।

রিয়ালের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে কাল ৪ গোল করেছে বার্সেলোনাও। তবে কাতালন ক্লাবটি নিজেদের মাঠ ন্যু-ক্যাম্পে একটা গোল হজমও করেছে। সেল্টা ভিগোর বিপক্ষে বার্সেলোনার জয়টা তাই ৪-১ গোলের। দলকে বড় জয় এনে দিতে অধিনায়ক লিওনেল মেসি করেছেন হ্যাটট্রিক।

একই রকম দাপুটে জয় পাওয়া রিয়াল-বার্সার পয়েন্টও সমান ২৫ করে। তবে গোল ব্যবধানে এগিয়ে থাকায় পয়েন্ট তালিকার এক নম্বরে বার্সেলোনা। রিয়াল দুই নম্বরে।

কেআর

 

ফুটবল: আরও পড়ুন

আরও