গোপন চুক্তিতে ১৩১ কোটি কমিশন হাতিয়েছেন গ্রিজমান!

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৯ | ২ কার্তিক ১৪২৬

তথ্য ফাঁস

গোপন চুক্তিতে ১৩১ কোটি কমিশন হাতিয়েছেন গ্রিজমান!

পরিবর্তন ডেস্ক ২:৩৩ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২০, ২০১৯

গোপন চুক্তিতে ১৩১ কোটি কমিশন হাতিয়েছেন গ্রিজমান!

অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদ লা লিগা কর্তৃপক্ষের কাছে আগেই অভিযোগ করেছে, বার্সেলোনা অনৈতিকভাবে দলে ভিড়িয়েছে আতোইন গ্রিজমানকে। চালাকি করে বার্সেলোনা তাদের ৮০ মিলিয়ন ইউরো ঠকিয়েছে। এই অভিযোগের প্রেক্ষিতে অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদ প্রমাণও পেশ করেছে। এবার বার্সা-গ্রিজমানের গোপন চুক্তির আরেক তথ্যও ফাঁস। স্পেনেরই জনপ্রিয় পত্রিকা ‘এল মুন্ডো’ দাবি, গোপন চুক্তি করে শুধু বার্সেলোনাই টাকা বাচায়নি, ব্যক্তিগতভাবে লাভবান হয়েছেন গ্রিজমানও।

গোপন চুক্তি করে ফরাসি তারকা কমিশন হাতিয়েছেন ১৪ মিলিয়ন ইউরো। বাংলাদেশি মুদ্রায় অঙ্কটা ১৩১ কোটি ৯ লাখ ৭১ হাজার ৬৮৬ টাকা।

এই মৌসুমেই অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদ থেকে বার্সেলোনায় যোগ দিয়েছেন গ্রিজমান। ২৮ বছর বয়সী ফরাসি ফরোয়ার্ডের সঙ্গে বার্সেলোনা চুক্তিটা করেছে ১২০ মিলিয়ন ইউরোর। মানে গ্রিজমানের মূল্য হিসেবে চুক্তির এই ১২০ মিলিয়ন ইউরোই অ্যাতলেতিকোকে দেওয়ার জন্য লা লিগা কর্তৃপক্ষের কাছে জমা দিয়েছে বার্সেলোনা।

কিন্তু অ্যাতলেতিকোর অভিযোগ, বার্সেলোনা যখন চুক্তিটা করেছে, তখন গ্রিজমানের রিলিজ ক্লজ ছিল ২০০ মিলিয়ন ইউরো। ফলে গ্রিজমানের জন্য রিলিজ ক্লজের পুরো ২০০ মিলিয়ন ইউরোই দাবি তাদের। কিন্তু চুক্তির ক্ষেত্রে বার্সেলোনা বড় একটা চালাকি করেছে।

অ্যাতলেতিকোর সঙ্গে গ্রিজমানের চুক্তির শর্তে উল্লেখ ছিল, ২০১৯ সালের জুলাইয়ে তার রিলিজ ক্লজ ২০০ মিলিয়ন ইউরো থেকে কমে ১২০ মিলিয়ন ইউরো হবে। বার্সা চালাকিটা করেছে এখানেই। গ্রিজমানের সঙ্গে চুক্তির কথা-বার্তা চূড়ান্ত করে ফেলে আগেই। এমনকি গোপনে চুক্তিটাও সেরে ফেলে জুলাইয়ের আগে। কিন্তু রিলিজ ক্লজের টাকা বাচাতে চুক্তিটা দেখায় ১২ জুলাই। সেই অনুযায়ীই গ্রিজমানের রিলিজ ক্লজ হিসেবে ১২০ মিলিয়ন ইউরো দিয়েছে বার্সা।

কিন্তু অ্যাতলেতিকো প্রমাণ পেয়েছে, বার্সা গ্রিজমানের সঙ্গে গোপনে চুক্তিটা সেরে ফেলেছে জুনের শুরুর দিকেই। যখন গ্রিজমানের রিলিজ ক্লজ ছিল ২০০ মিলিয়ন ইউরো। তাই তারা দাবি করেছে বার্সা তাদের ৮০ মিলিয়ন ইউরো ঠকিয়েছে। রিলিজ ক্লজের এই বকেয়া টাকা দাবি করে অ্যাতলেতিকো হুমকিও দিয়েছে। এমনকি অ্যাতলেতিকো দাবি করেছে গ্রিজমানকে লা লিগায় নিষিদ্ধ করার।

অ্যাতলেতিকোর সেই অভিযোগের ফয়সালা এখনো হয়নি। এরই মধ্যে এল মুন্ডো জানাল, গোপন চুক্তি করে গ্রিজমানের বিশাল অঙ্কের কমিশন হাতিয়ে নেওয়ার খবর। মজার ব্যাপার হলো, ‘এল মুন্ডো’ যে সূত্রের মাধ্যমে এর প্রমাণ পেয়েছে, সেই প্রমাণ অ্যাতলেতিকোর হাতেও পৌঁছে গেছে।

যার অর্থ, বার্সেলোনার কূট-কৌশলের বিরুদ্ধে অ্যাতলেতিকোর প্রমাণের তালিকা আরও সমৃদ্ধ হলো। তাতে গ্রিজমানের সঙ্গে বার্সেলোনার চুক্তি বাতিলের শঙ্কাটাও বৃদ্ধি পেল। বার্সা-গ্রিজমানের চুক্তির কপালে কী লেখা আছে কে জানে!

কেআর

 

ফুটবল: আরও পড়ুন

আরও