গোল পেলেও ব্রাজিলকে জেতাতে পারলেন না নেইমার

ঢাকা, ১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ | 2 0 1

গোল পেলেও ব্রাজিলকে জেতাতে পারলেন না নেইমার

পরিবর্তন ডেস্ক ১:৫৭ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ০৭, ২০১৯

গোল পেলেও ব্রাজিলকে জেতাতে পারলেন না নেইমার

গত মাস কয়েক ধরে কী ধকলটাই না গেছে তার ওপর দিয়ে। একের পর এক নেতিবাচক ঘটনায় বার বার সংবাদ শিরোনাম হয়েছেন। প্রতিপক্ষ সমর্থককে ঘুষি মেরে সমালোচিত হয়েছেন, নিষিদ্ধ হয়েছেন। জড়াতে হয়েছে ধর্ষণ মামলাতেও। সেই হতাশার মধ্যেই চোট কেড়ে নেয় কোপা আমেরিকার স্বপ্ন।

এর পর দলবদল নিয়ে কী ঝড়টাই তার ওপর দিয়ে গেল। তবে মাঠের বাইরের ঝড় যত প্রবলই হোক, তা যে নেইমারের মাঠের পারফরম্যান্সে প্রভাব ফেলতে পারে না, তার প্রমাণই হয়ে গেল মায়ামিতে।

তিন মাস পর খেলতে নেমেই নেইমার পেয়ে গেলেন গোলের দেখা। শুধু নিজে গোল করেননি। সতীর্থ কাসেমিরো-কে দিয়েও একটা গোল করিয়েছেন। কিন্তু তার পরও নেইমারকে মাঠ ছাড়তে হয়েছে হতাশা নিয়েই। কারণ, গোল পেলেও নেইমার ব্রাজিলকে জেতাতে পারেননি। যুক্তরাষ্ট্রের মায়ামিতে কলম্বিয়ার সঙ্গে ২-২ গোলের ড্র হতাশায় পুড়েছে ব্রাজিল।

আগের দিন আর্জেন্টিনা গোলশূন্য ড্র হতাশায় পুড়েছে চিলির বিপক্ষে। তাই বুঝি ব্রাজিলকেও সেই একই পরিণতিতে ডুবিয়ে ফুটবল দেবতা বিশ্বজুড়ে ব্রাজিল-আর্জেন্টিনার ভক্তদের সমতায় রাখল!

নেইমার সর্বশেষ ম্যাচটা খেলেছিলেন গত ৬ জুন, কাতারের বিপক্ষে। ব্রাজিল জাতীয় দলের হয়ে সেই ম্যাচ খেলতে গিয়েই চোট পান পিএসজি তারকা। যে চোট কেড়ে নেয় তার কোপার স্বপ্ন। পরে দলবদল ইস্যুতে ক্লাব পিএসজির হয়েও আর মাঠে নামা হয়নি। তবে কাটায় কাটায় ৩ মাস পর মাঠে নেমেই ২৭ বছর বয়সী দেখালেন নিজের কারিশমা।

দলকে জয় এনে দিতে না পারার হতাশা হয়তো আছে। তবে নিজে গোল করে, সতীর্থকে দিয়ে গোল করিয়ে ম্যাচের নায়ক তিনিই। মায়ামির হার্ড রক স্টেডিয়ামে প্রথমে এগিয়ে যায় ব্রাজিলই। ২০ মিনিটে নেইমারেরই কর্নার থেকে দুর্দান্ত এক হেডে ব্রাজিলকে এগিয়ে দেন রিয়াল মাদ্রিদ মিডফিল্ডার কাসেমিরো।

সেলেসাওরা অবশ্য ৭ মিনিটের বেশি লিডটা ধরে রাখতে পারেনি। ২৭ মিনিটেই কলম্বিয়াকে সমতায় ফেরান লুইস মুরিয়েল। সমতাসূচক গোলটি তিনি করেন পেনাল্টি থেকে। বক্সের ভেতরে এই লুইস মুরিয়েলকেই এসি মিলানের ডিফেন্ডার অ্যালেক্স সান্দ্রো ফাউল করলে পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি। বিরতির আগে দ্বিতীয় গোলও পেয়ে যান লুইস মুরিয়েল। কলম্বিয়া এগিয়ে যায় ২-১ গোলে।

শুধু স্কোরে এগিয়ে থাকা নয়, প্রথমার্ধে বল দখলের লড়াইয়েও প্রাধান্য ছিল কলম্বিয়ারই। স্কোরে যেন তারই প্রতিফলন। তবে প্রথমার্ধটা কলম্বিয়ার হলে দ্বিতীয়ার্ধটা ব্রাজিলের। বিরতি থেকে ফিরেই কলম্বিয়াকে চেপে ধরে ব্রাজিল। আক্রমণের ঢেউ তুলে কাঁপিয়ে দেয় কলম্বিয়ার রক্ষণ। ৬১ মিনিটে ব্রাজিল পেয়ে যায় গোলও। দানি আলভেসের পাস থেকে দর্শনীয় গোল করে ব্রাজিলকে সমতায় ফেরান নেইমার।

ব্রাজিল জাতীয় দলের হয়ে এটা তার ৯৮ ম্যাচে ৬১তম গোল। এই গোলের পরও ব্রাজিলের হয়ে সর্বোচ্চ গোলদাতাদের তালিকায় তিন নম্বরেই রয়েছেন নেইমার। তবে দ্বিতীয় স্থানে থাকা কিংবদন্তি রোনাল্ডোর চেয়ে তিনি এখন মাত্র ১ গোলে পিছিয়ে। ব্রাজিলের হয়ে রোনাল্ডো গোল করেছেন ৬২টি। ৭৭ গোল নিয়ে সবার ওপরে পেলে।

জয় না পেলেও ব্রাজিলকে হারতে হয়নি। এর ফলে ব্রাজিলের অপরাজিত থাকার দৌড় অব্যাহতই। ২০১৮ বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে বেলজিয়ামের কাছে হারের পর আর কোনো ম্যাচ হারেনি তিতের দল। মানে বিশ্বকাপের পর থেকে টানা ১৭ ম্যাচে অপরাজিত সেলেসাওরা।

ড্র তৃপ্তি নিয়ে নেইমারদের নিতে হচ্ছে আরেকটি ম্যাচের প্রস্তুতি। ১০ সেপ্টেম্বেই যে আবার মাঠে নামতে হবে ব্রাজিলকে। ক্যালিফোর্নিয়ার লস অ্যাঞ্জেলসে যে ম্যাচে তাদের প্রতিপক্ষ পেরু। দুই মাস আগে পেরুকে হারিয়ে কোপার শিরোপা জিতেছে ব্রাজিল।

কেআর

 

ফুটবল: আরও পড়ুন

আরও