সাফে উড়ন্ত শুরু বাংলাদেশের

ঢাকা, ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ | 2 0 1

সাফে উড়ন্ত শুরু বাংলাদেশের

পরিবর্তন প্রতিবেদক ৪:৩৮ অপরাহ্ণ, আগস্ট ২৩, ২০১৯

সাফে উড়ন্ত শুরু বাংলাদেশের

প্রত্যাশা ছিল বড় জয় দিয়ে শুরু করার। বাংলাদেশের ব্রিটিশ কোচ রবার্ট মার্টিন রায়েলস প্রকাশ্যেই এই প্রত্যাশার কথা ব্যক্ত করেছিলেন। বাংলাদেশের কিশোররা কোচের সেই প্রত্যাশা মিটিয়েছে। সাফ অনূর্ধ্ব-১৫ চ্যাম্পিয়নশিপে শিরোপা ধরে রাখার লক্ষ্যে উড়ন্ত সূচনাই করেছে বাংলাদেশের কিশোররা। আজ নিজেদের প্রথম ম্যাচে বাংলাদেশের কিশোররা ৫-২ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে ভুটানকে।

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের নদিয়া জেলার কল্যাণী স্টেডিয়ামে ম্যাচটা শুরু হয়েছিল আজ শুক্রবার দুপুর সাড়ে ১২টায়। চরম নাটকীয়তা ভরা প্রথমার্ধে বাংলাদেশ এগিয়েছিল ৩-২ গোলে। দ্বিতীয়ার্ধে আরও দুই গোল করে চওড়া হাসি নিয়েই মাঠ ছাড়ে বাংলাদেশের কিশোররা।

ভূটান টুর্নামেন্টের প্রথম ম্যাচে শ্রীলঙ্কার কাছে হেরেছে ৩-২ গোলে। আজ দ্বিতীয় ম্যাচেও হেরে যাওয়ায় টুর্নামেন্ট থেকে তাদের বিদায় প্রায় নিশ্চিত। ভারত, বাংলাদেশ, নেপাল, ভুটান ও শ্রীলঙ্কা-মোট ৫ দলের এই টুর্নামেন্টে স্বাগতিক ভারতের সূচনাটাও হয়েছে উড়ন্ত। নিজেদের প্রথম ম্যাচে তারা ৫-০ গোলে হারিয়েছে নেপালকে।

ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন হিসেবে এমনিতেই বাংলাদেশ টুর্নামেন্টের অন্যতম ফেভারিট। ফলে পুঁচকে ভুটানের বিপক্ষে জয়টা প্রত্যাশিতই ছিল। তবে আরেক ফেভারিট ভারতের বড় জয়ে বাংলাদেশের জয় প্রত্যাশাটাও ফুলিয়ে ফাপিয়ে বড়ই করে তুলে।

রবার্ট মার্টিন রায়েলসের সেই প্রত্যাশা পূরণে পিছপা হয়নি। নদিয়ার কল্যাণী স্টেডিয়ামে ম্যাচের ১৫ মিনিটেই বাংলাদেশকে এগিয়ে দেন মিরাদ। কিন্তু তার এনে দেওয়া এই লিড ২ মিনিটও ধরে রাখতে পারেনি বাংলাদেশ। ১৭ মিনিটেই ভুটানকে সমতায় ফেরান কুবের। তবে ভুটানীদের এই সমতার আনন্দ মিনিট চারেকের বেশি স্থায় হয়নি। ২১ মিনিটেই গোলমুখের জটলা থেকে বাংলাদেশকে দ্বিতীয়বার এগিয়ে দেন রহমান।

এই লিডও বাংলাদেশ ধরে রাখতে পারেনি। সেজন্য অবশ্য দায়ী বাংলাদেশেরই গোলরক্ষক সাব্বির। তার অমার্জনীয় ভুলেই স্কোর ২-২ করে ভুটান। শট নিয়ে গিয়ে সাব্বির বল তুলে দেন একদম ফাঁকায় দাঁড়িয়ে থাকা ভুটানের স্ট্রাইকার চুজাংয়ের পায়ে। গোলের এমন সুবর্ণ সুযোগ চুজাং মিস করতে পারেন!

এই ২-২ সমতাকেই প্রথমার্ধের নিয়তি মনে হচ্ছিল। ঠিক তখনই আবার এগিয়ে যায় বাংলাদেশ। নিঁখূত নাম্বার নাইনের মতো দুর্দান্ত দক্ষতায় গোল করে দলকে ৩-২ গোলে এগিয়ে দেন সরকার। দ্বিতীয়ার্ধেও দুই দলই একের পর এক গোলের সুযোগ তৈরি করেছে। তবে সুযোগ তৈরিতে বাংলাদেশই এগিয়ে ছিল। কিন্তু সুযোগ তৈরি করা পর্যন্তই। কোনো দলই আর গোল আদায় করতে পারছিল না।

ফলে বাংলাদেশের ৩-২ গোলের জয়কেই মনে হচ্ছিল নিয়তি। ঠিক তখনই আবার ব্যবধান বাড়ান প্রথম গোলদাতা মিরাদ। যদিও মিরাদের এই দ্বিতীয় গোলটায় তার চেয়ে আসিফের কৃতিত্বই বেশি। মিরাদের পা থেকেই বল কেড়ে নেয় ভুটান। কিন্তু ভুটানের এক খেলোয়াড়ের পা ঘুরে চলে আসে আসিফের পায়ে। তিনি জাদুকরী ড্রিবলিংয়ে ভুটানের কয়েকজন খেলোয়াড়কে বোকা বানিয়ে ঢূকে পড়েন ডি-বক্সে।

সেখান থেকে তিনি বল বাড়ান আলামিনের উদ্দেশ্যে। আলামিন প্রথম টাচেই তা পাঠিয়ে দেন অনেকটা ফাঁকায় দাঁড়ানো মিরাদের পায়ে। সহজ সুযোগটা হাতছাড়া করেননি মিরাদ। যোগ করা সময়ে ভুটানের জালে শেষ পেরেকটা ঠুকে দেন বদলি হিসেবে নামা বাবু। দর্শনীয় এক ফ্রি কিক থেকে গোল করেছেন তিনি।

৫ দলের টুর্নামেন্ট বলে প্রতি দলের বিপক্ষেই প্রতি দলের ম্যাচ। প্রথমপর্ব শেষে পয়েন্ট তালিকার শীর্ষ দুটি দল উঠবে ফাইনালে। ৩১ আগস্টের সেই ফাইনাল খেলার লক্ষ্য নিয়েই টুর্নামেন্টটা শুরু করেছে দুই বারের চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ। রাউন্ড রবিন লিগ প্রদ্ধতির প্রথম পর্বে বাংলাদেশের পরের তিনটি ম্যাচ ২৫, ২৭ ও ২৯ আগস্ট, যথাক্রমে শ্রীলঙ্কা, নেপাল ও ভারতের বিপক্ষে।

২৯ আগস্ট ভারতের ম্যাচটাই বাংলাদেশের জন্য কঠিন পরীক্ষা। পরের দুটি ম্যাচ জিতে তার আগেই ফাইনালের পথটা প্রশস্ত করে রাখতে চায় রবার্ট মার্টিন রায়েলসের শিষ্যরা। এমন উড়ন্ত শুরুর পর সেই স্বপ্ন দেখাই যায়।

উল্লেখ্য, ২০১৫ সালে সিলেটে অনুষ্ঠিত টুর্নামেন্টে প্রথম চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল বাংলাদেশ। সেবার অবশ্য টুর্নামেন্টটা হয়েছিল অনূর্ধ্ব-১৬ দলের। এরপর ২০১৮ সালেও চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ। এবার তাই শিরোপা শিরোপা ধরে রাখার মিশন।

মিরাদ-রহমানরা পারবেন চ্যাম্পিয়ন মুকুট ধরে রেখে দেশকে তৃতীয় শিরোপা উপহার দিতে?

কেআর

 

ফুটবল: আরও পড়ুন

আরও