ফুটবলারদের উচ্চ ফি নিয়ে প্রশ্ন তুললেন রোনালদো

ঢাকা, ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ | 2 0 1

ফুটবলারদের উচ্চ ফি নিয়ে প্রশ্ন তুললেন রোনালদো

পরিবর্তন ডেস্ক ১০:২৫ পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ২১, ২০১৯

ফুটবলারদের উচ্চ ফি নিয়ে প্রশ্ন তুললেন রোনালদো

দলবদলের বাজারে ফুটবলারদের দাম এখন আকাশচুম্বী। সাধারণ মানের ফুটবলাররাও বিক্রি হচ্ছেন ৮০-৯০-১০০ মিলিয়ন ইউরোও। ফুটবলারদের এমন চড়া দামের সমালোচনা করেছেন অনেক ফুটবলবোদ্ধা-কোচরা। তাদের সঙ্গে সুর মিলিয়ে এবার ফুটবলারদের চড়া মূল্যের ফি নিয়ে প্রশ্ন তুললেন ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোও। জুভেন্টাসের পর্তুগিজ সুপারস্টার স্পষ্ট করেই বললেন, এখন যেকোনো ফুটবলারই ১০০ মিলিয়ন ইউরোয় বিক্রি হচ্ছেন। এমনকি বিশেষ কোনো অর্জন ছাড়াই বিক্রি হচ্ছে চড়া দামে।

শুধু তাই নয়। ফুটবলে এখন টাকার খেলা চলছে, ক্লাবগুলো সম্ভাবনাময় খেলোয়াড়দের চড়া দামে কেনার মধ্য দিয়ে জুয়া খেলছে বলেও অভিমত ব্যক্ত করেছেন রোনালদো।

এক সময় চড়া মূল্যের অপবাদ শুনতে হয়েছে তাকেও। ২০০৯ সালে যখন ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড থেকে তাকে তৎকালীন রেকর্ড ৯৪ মিলিয়ন ইউরোয় কিনে নেয় রিয়াল মাদ্রিদ, তার চড়া দাম নিয়ে হইচই হয়েছিল অনেক। অনেকে তো এমন মন্তব্যও করেছিলেন, একজন ফুটবলারকে ৯৪ মিলিয়ন ইউরোয় কেনা স্রেফ বাড়াবাড়ি, টাকা অপচয়!

সময়ের ব্যবধানে সেই রোনালদোই প্রশ্ন তুললেন ফুটবলারদের চড়া দাম নিয়ে। অনেকেই ব্যাপারটিতে ৩৪ বছর বয়সী রোনালদোর কপটতা খুঁজে পেতে পারেন, বা খোঁজার চেষ্টা করতে পারেন। কিন্তু সেটা যাতে না করতে পারেন, সেজন্যই কিনা রোনালদো ‘বিশেষ অর্জন’-এর কথাটা উল্লেখ করেছেন।

২০০৯ সালে যখন তাকে তৎকালীন রেকর্ড দামে কিনে রিয়াল, রোনালদোর গায়ে তখন বিশ্বসেরা তারকার খেতাব। মানে পায়ের অবিশ্বাস্য কারিশমা দিয়ে তার আগেই জয় করে নিয়েছেন বিশ্ববাসীর মন, মাথায় তুলেছেন বিশ্বসেরা ফুটবলারের মুকুট। জিতে নিয়েছেন ব্যালন ডি’অরসহ ফিফা বর্ষসেরা ফুটবলারের পুরস্কার। তার চেয়েও বড় কথা, রোনালদো ততদিনে নিজেকে আগামীর কিংবদন্তি হিসেবে জানান দিয়ে ফেলেছেন।

কিন্তু এখন এমন সব ফুটবলারদের ৯০-১০০ মিলিয়ন ইউরোয় কিনছে ক্লাবগুলো, যাদের আসলে ঈশ্বর প্রদত্ত প্রতিভাটুকুই পুঁজি। কিন্তু অমিয় সেই প্রতিভা মাঠে প্রমাণ করতে পারেননি! মাঠে দেখাতে পারেননি বিশেষ জাদু। মানে মাঠে বিশেষ কিছু করে না দেখালেও ক্লাবগুলো বিশাল অঙ্কের টাকা দিয়ে তাদেরকে কিনে নিচ্ছে। এই মৌসুমেই যেমন ফ্রেঙ্কি ডি ইয়াং, লুকা জভিচ, মাগুইরে, হুয়াও ফেলিক্স, আতোইন গ্রিজমানদের মতো তারকারা দলবদল করেছেন চড়া মূল্যের চুক্তিতে।

এদের মধ্যে ১২০ মিলিয়ন ইউরোয় বার্সেলোনায় যোগ দেওয়া আতোইন গ্রিজমানই শুধু নিজের প্রতিভা মাঠে প্রমাণ করে দেখিয়েছেন। বাকিরা সবাই তরুণ। সবে প্রতিভার ঝলকানি দেখাতে শুরু করেছেন।

গত মৌসুমে ১০০ মিলিয়ন ইউরোয় রিয়াল ছেড়ে জুভেন্টাসে যোগ দেওয়া রোনালদোর কণ্ঠে সেই আক্ষেপই ঝরেছে। পর্তুগিজ টেলিভিশন চ্যানেল ১ কে বলেছেন, ‘আধুনিক ফুটবলে ফুটবলারদের মূল্য নিরুপণ করাটা এখন কঠিন। (ক্লাবগুলো) এখন সম্ভাবনাময় খেলোয়াড়দের নিয়ে প্রচুর পরিমাণে জুয়া চলছে। ফুটবল শিল্পটাই এখন ভিন্ন। ফুটবলে এখন অনেক টাকা। একজন সেন্টার ব্যাক, একজন গোলরক্ষকও এখন ৭০-৮০ মিলিয়ন ইউরোর দলবদল করতে পারছে।’

গড় পড়তা ফুটবলারদের এই আকাশচুম্বি দামের সঙ্গে একমত জানিয়ে বলেছেন, ‘আমি এর সঙ্গে এক মত নই। কিন্তু এটাই এখন ফুটবলবিশ্ব। এই বিশ্বেই আমরা বাস করছি। কাজেই আমাদেরকে এটাকে (উচ্চ মূল্য) সম্মান করতেই হবে।’

কেআর

 

ফুটবল: আরও পড়ুন

আরও