কুতিনহোকে ধারে বেচে কি লাভ হলো বার্সেলোনার?

ঢাকা, ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ | 2 0 1

কুতিনহোকে ধারে বেচে কি লাভ হলো বার্সেলোনার?

পরিবর্তন ডেস্ক ৫:১৯ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১৮, ২০১৯

কুতিনহোকে ধারে বেচে কি লাভ হলো বার্সেলোনার?

দেড় বছর আগে কত জোর জবর-দস্তি করেই না তাকে লিভারপুল থেকে কিনে এনেছিল বার্সেলোনা। টাকার জোর দেখিয়ে ১৬০ মিলিয়ন ইউরোর চুক্তিতে কিনে আনা সেই ফিলিপে কুতিনহোকে দেড় বছরের মাথায়ই বিক্রি করে দিল বার্সা। না, একেবারে বিক্রি করেনি। আপাতত এক বছরের ধার চুক্তিতে ব্রাজিলিয়ান তারকাকে বায়ার্ন মিউনিখের কাছে বিক্রি করে দিয়েছে কাতালন ক্লাবটি। চুক্তির শর্ত অনুযায়ী বায়ার্ন মৌসুম শেষে পাকাপাকি ভাবেও কিনতে পারবে কুতিনহোকে।

গণমাধ্যমের খবর অনুযায়ী ন্যু-ক্যাম্পে ছেড়ে আজই তার বায়ার্নে যোগ দেওয়ার কথা। হয়তো এতক্ষণে বায়ার্নে যোগ দিয়েও ফেলেছেন কুতিনহো। কিন্তু প্রশ্ন হলো, যাকে টাকার জোর দেখিয়ে দলবদলের ‘কালো পথে’ কিনে আনা, সেই কুতিনহোকে বিক্রি করে কি লাভ হলো বার্সেলোনার?

প্রশ্নটা উঠছে। কারণ, এক বছরের ধার চুক্তির বিনিময়ে বায়ার্ন কুতিনহোর জন্য যে টাকাটা দিচ্ছে, সেই পুরো ২০ মিলিয়ন ইউরোই যাচ্ছে কুতিনহোর সাবেক ক্লাব লিভারপুলের পকেটে। লিভারপুল থেকে কুতিনহোকে বার্সা কিনেছিল ১৬০ মিলিয়ন ইউরোর চুক্তিতে। এর মধ্যে ১২০ মিলিয়ন ইউরো নগদ দিয়েছিল। বাকি ৪০ মিলিয়ন ইউরো দেওয়ার কথা ছিল শর্ত সাপেক্ষে কিস্তিতে।

গণমাধ্যম সূত্রের খবর, শর্ত সাপেক্ষের এই ৪০ মিলিয়ন ইউরোর মধ্যে গত দেড় বছরে ৩ কিস্তিতে ১৫ মিলিয়ন ইউরো শোধ করে ফেলেছে বার্সা। লিভারপুলের পাওনা আরও ২৫ মিলিয়ন ইউরো। যেহেতু বার্সা কুতিনহোকে ধারে খেলতে পাঠাচ্ছে বায়ার্নে, তাই তার ধার চুক্তির পুরো ২০ মিলিয়ন ইউরোই লিভারপুল পাচ্ছে। গণমাধ্যমের দাবি, বার্সেলোনার হাতে নয়, বায়ার্ন মিউনিখ ধার চুক্তির টাকাটা সরাসরি লিভারপুলের হাতেই দিতে যাচ্ছে।

বায়ার্নের কাছ থেকে এই টাকাটা পাওয়ার পরও বার্সেলোনার কাছে লিভারপুলের পাওনা শেষ হবে না। বার্সেলোনা আরও ৫ মিলিয়ন ইউরো ঋণী থাকবে লিভারপুলের কাছে। মানে ব্রাজিলিয়ান তারকাকে ধার দিয়ে বার্সেলোনা কোনো টাকা তো পাচ্ছেই না, উল্টো কুতিনহোর জন্য ঋণের বোঝাও শেষ হচ্ছে না। স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্নটা উঠছে, কুতিনহোকে ধারে বেচে বার্সেলোনার লাভ কি হলো?

প্রশ্নটার উত্তর একমাত্র বার্সেলোনার কর্তারাই দিতে পারবেন। তবে সাদা চোখে বার্সেলোনার যে লাভটা দেখা যাচ্ছে, তা হলো ঋণের বোঝা কিছুটা হালকা হলো। মৌসুম শেষে বায়ার্ন যদি কুতিনহোর সঙ্গে স্থায়ী চুক্তি করে তবেই কেবল ঋণ শুধিয়ে বার্সেলোনার তহবিলে কিছু টাকা ঢুকবে।

তবে পাকাপাকিভাবে বিক্রি করে যত টাকাই পাক, কুতিনহো সওদায়  আখেরে বার্সেলোনাকে যে বিশাল অঙ্কের লোকসাই হচ্ছে, সেটি স্পষ্টই। যাকে ২০ মিলিয়ন ইউরোয় এক বছরের জন্য ধারে নিচ্ছে, তার সঙ্গে স্থায়ী চুক্তি করতে কত টাকাই আর দেবে বায়ার্ন। বড় জোর ৬০-৭০ মিলিয়ন ইউরো। তাতে বার্সেলোনার মোট খরচের অর্ধেকটাও উঠে আসবে না।

কেআর/

 

ফুটবল: আরও পড়ুন

আরও