আর্জেন্টিনার স্বপ্ন ভেঙে ফাইনালে ব্রাজিল

ঢাকা, ১৬ জুলাই, ২০১৯ | 2 0 1

আর্জেন্টিনার স্বপ্ন ভেঙে ফাইনালে ব্রাজিল

পরিবর্তন ডেস্ক ১০:২৭ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ০৩, ২০১৯

আর্জেন্টিনার স্বপ্ন ভেঙে ফাইনালে ব্রাজিল

দীর্ঘ ১২ বছর কোপা আমেরিকার ফাইনালে ব্রাজিল। আরও একটি শিরোপার হাতছানি সেলে-সাওদের সামনে। আজ ভোরে টুর্নামেন্টের প্রথম কোয়ার্টার ফাইনালে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী আর্জেন্টিনাকে হারিয়ে ফাইনালে পা রেখেছে ব্রাজিল। তিতের দল জিতেছে ২-০ গোলে।

ব্রাজিলের এই জয়ের নায়ক গ্যাব্রিয়েল জেসুস ও রবার্তো ফিরমিনো। তারা শুধু গোল দুটিই করেননি, একে অন্যের গোলে অ্যাসিস্টও করেছেন। মানে জেসুসের গোলটি বানিয়ে দেন ফিরমিনো। ফিরমিনোকে অ্যাসিস্ট করেন জেসুস।

বেলো হরিজেন্তোর সেমিফাইনালটা আর্জেন্টিনার জন্য ছিল প্রতিশোধের মিশন। কোপায় দুই দলের সর্বশেষ দুই সাক্ষাতেই ব্রাজিলের কাছে হেরে যায় আর্জেন্টিনা। আলবিসেলেস্তিদের সেই ‍দুটি হারই আবার ছিল ফাইনালে। ২০০৪ সালের পর ২০০৭ সালেও ফাইনালে আর্জেন্টিনাকে হারিয়ে শিরোপা জিতে ব্রাজিল।

সেই দুই হারের প্রতিশোধ নিতেই মাঠে নেমেছিলেন মেসিরা। কিন্তু কোথায় কি! প্রতিপক্ষকে প্রতিশোধের আগুনে পুড়িয়ে মারতে নেমে মেসিরা নিজেরাই পুড়ে ছাই হয়েছে। শিরোপা স্বপ্ন বিসর্জন দিয়ে তাদের এখন অপেক্ষা করতে হচ্ছে তৃতীয় স্থান নির্ধারণী অগুরুত্বপূর্ণ ম্যাচের জন্য!

ম্যাচের আগে মেসি বলেছিলেন, ব্রাজিল-আর্জেন্টিনার ম্যাচে ফেভারিট বলে কিছু নেই। মাঠের লড়াইয়েও সেটাই প্রমাণিত। বল দলের দখলের দুই দলই ছিল সমানে সমানে। প্রতিপক্ষের গোলমুখ লক্ষ্য আর্জেন্টিনাই বরং শট নিয়েছে বেশি। কিন্তু কাজের কাজ তারা করতে পারেননি। বিশ্বসেরা মেসি এ ম্যাচেও নিজের বিশ্বসেরা রূপ দেখাতে ব্যর্থ।

ফল ব্যর্থ মনোরথ নিয়েই তাকে ফিরতে হচ্ছে বাড়ি। কে জানে, ব্রাজিলের কাছে এই হারের মধ্য দিয়ে হয়তো তার আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারই শেষ হয়ে গেল! ম্যাচের শুরু থেকেই বল দখলে রাখা, আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণে দুই দল ছিল সমানে সমান। ব্রাজিলিয়ানদের ভাগ্য ভালো, প্রাপ্ত সুযোগগুলো তারা কাজে লাগাতে পেরেছে।

আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণের ধারার মধ্যেই ব্রাজিলকে প্রথম এগিয়ে দেন ম্যানচেস্টার সিটির ফরোয়ার্ড জেসুস। আসলে ব্রাজিলের এই প্রথম গোলটির পেছনে বড় অবদান-কৃতিত্ব দানি আলভেসের। ব্রাজিল অধিনায়ক আর্জেন্টিনার দুইজনকে কাটিয়ে বক্সের ভেতরে বল বাড়ান রবার্তো ফিরমিনোর উদ্দেশ্যে। লিভারপুল ফরোয়ার্ড চতুরতার সঙ্গে বল নিজে রিসিভ না করে আলতো পায়ে পুস করেন ফাঁকায় দাঁড়ানো জেসুসকে। ম্যান সিটির তারকা বল জালে জড়াতে ভুল করেননি।

মেসি, আগুয়েরো, লাওতারো মার্টিনেজরা গোলটি পরিশোধের জন্য চেষ্টা করেছে ঠিক। কিন্তু ব্রাজিলের রক্ষণ দেয়াল ভাঙতে পারেনি। উল্টো ৭১ মিনিটে ব্রাজিলই আবার পেয়ে যায় গোল। এবার গোলদাতা ফিরমিনো। তাকে অ্যাসিস্ট করেন জেসুস। ফিরমিনোর এই গোলের মধ্য দিয়েই শেষ হয়ে যায় মেসিদের ফাইনাল তথা শিরোপা স্বপ্নের আশা। ম্যাচের বাকি সময়ে চেষ্টা করেও আর্জেন্টাইনরা গোলের দেখা পায়নি।

কেআর

 

ফুটবল: আরও পড়ুন

আরও