কুতিনহোকে বেচলে বার্সার ২৫ মিলিয়ন ইউরো বাঁচবে!

ঢাকা, ১৫ আগস্ট, ২০১৯ | 2 0 1

কুতিনহোকে বেচলে বার্সার ২৫ মিলিয়ন ইউরো বাঁচবে!

পরিবর্তন ডেস্ক ১:১২ অপরাহ্ণ, মে ১২, ২০১৯

কুতিনহোকে বেচলে বার্সার ২৫ মিলিয়ন ইউরো বাঁচবে!

তাহলে টাকা বাঁচানোর জন্যই কি ফিলিপে কুতিনহোকে বিক্রি করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বার্সেলোনা? প্রশ্নটা উঠছে সঙ্গত কারণেই। চ্যাম্পিয়ন্স লিগ সেমি ফাইনালে লিভারপুলের কাছে হেরে যাওয়ায় কুতিনহো-চুক্তির ৫ মিলিয়ন ইউরো আপাতত বেঁচে গেছে বার্সেলোনার। চুক্তির শর্তগুলো বলছে, ব্রাজিলিয়ান তারকাকে আসন্ন গ্রীষ্মে বেচে দিলে বার্সার আরও ২৫ মিলিয়ন ইউরো বেঁচে যাবে!

ধারণা নয়, কুতিনহোকে বিক্রি করে দিলে সত্যি সত্যিই বার্সার ২৫ মিলিয়ন ইউরো সেভ হবে। ২০১৮ সালের জানুয়ারিতে ব্রাজিলিয়ান তারকাকে টাকার জোর খাটিয়েই লিভারপুল থেকে ছিনিয়ে এনেছে বার্সেলোনা। এ জন্য কাতালন জায়ান্টদের গুণতেও হয়েছে বিশাল অঙ্কের টাকা।

চুক্তির অঙ্কটা ছিল ক্লাব রেকর্ড ১৬০ মিলিয়ন ইউরোর। এর মধ্যে ১২০ মিলিয়ন ইউরো ওই সময়েই লিভারপুলকে নগদ প্রদান করেছে বার্সা। বাড়তি বাকি ৪০ মিলিয়ন ইউরো দেওয়ার কথা বিভিন্ন শর্ত সাপেক্ষে।

মোট ৫ শর্তে এই বাড়তি ৪০ মিলিয়ন ইউরো লিভারপুলকে দেওয়ার কথা বার্সার। এর মধ্যে ৩টি শর্ত পূরণও হয়েছে। আর সেজন্য প্রতি শর্তের জন্য ৫ মিলিয়ন করে ১৫ মিলিয়ন ইউরো লিভারপুলকে দিয়েছেও বার্সা। একটু ভুল হলো। দুই শর্তের ১০ মিলিয়ন পরিশোধ করেছে আর কি! তিন নম্বরে শর্তের ৫ মিলিয়ন ইউরো এখনো পরিশোধ করেনি। তবে করবে। যেকোনো সময় হয়তো ওই ৫ মিলিয়নের চেক লিভারপুল বরাবর পাঠিয়ে দেবে বার্সা।

বাকি ২৫ মিলিয়ন ইউরোর মধ্যে ৫ মিলিয়ন ইউরো আপাতত বেঁচে গেছে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ সেমিতে হেরে যাওয়ায়। এই ৫ মিলিয়নের সঙ্গে বাকি ২০ মিলিয়নও বার্সাকে গুণতে হবে না আসন্ন গ্রীষ্মে কুতিনহোকে বেচে দিলে।

চুক্তির এক নম্বর শর্ত ছিল, বার্সার জার্সি গায়ে কুতিনহো ২৫ ম্যাচ খেললেই ৫ মিলিয়ন ইউরো দিতে হবে। এই মৌসুমের শুরুতেই এই কিস্তির টাকা পেয়ে গেছে লিভারপুল। দ্বিতীয় শর্তের ৫ মিলিয়ন ইউরো তারও আগে পেয়েছে লিভারপুল। কারণ, দ্বিতীয় শর্তটা ছিল ন্যু-ক্যাম্পে কুতিনহোর প্রথমে বার্সা চ্যাম্পিয়ন্স লিগে খেলার টিকিট পেলেই ৫ মিলিয়ন ইউরো পাবে লিভারপুল। প্রথম শর্তের চেয়ে দ্বিতীয় এই শর্তটাই আগে পূরণ হয়েছে। গত মৌসুমে লা লিগার শিরোপা জেতায় সরাসরিই চ্যাম্পিয়ন্স লিগে খেলেছে বার্সা। ফলে এই কিস্তির টাকা লিভারপুল পেয়েছে গত মৌসুম শেষেই।

তিন নম্বর শর্তটাও এই চ্যাম্পিয়ন্স লিগের টিকিট পাওয়া নিয়েই। কুতিনহোর দ্বিতীয় বছরেও চ্যাম্পিয়ন্স লিগে সরাসরি খেলার ছাড়পত্র পেলে বার্সাকে ৫ মিলিয়ন ইউরো গুণতে হবে। এবারও লা লিগার শিরোপা জেতায় তৃতীয় এই শর্তও পূরণ হয়েছে। হয়তো মৌসুম শেষেই তৃতীয় কিস্তির ৫ মিলিয়ন ইউরো পরিশোধ করবে বার্সা।

৪ নম্বর শর্তটা এমন, কুতিনহোকে নিয়ে বার্সেলোনা চ্যাম্পিয়ন্স লিগ শিরোপা জিততে পারলেই আরও ৫ মিলিয়ন ইউরো পাবে লিভারপুল। বার্সা সেমিতে ওঠায় লিভারপুলের এই কিস্তির টাকা প্রাপ্তির সম্ভাবনাও প্রবল হয়েছিল। কিন্তু টাকা প্রাপ্তির সেই সুযোগ লিভারপুল নিজেরাই নষ্ট করেছে। বার্সেলোনাকে সেমি ফাইনালে তারাই হারিয়ে দিয়েছে।

বার্সা হেরে যাওয়ায় আপাতত এই টাকাটা লিভারপুল পাচ্ছে না। তাকিয়ে থাকতে হচ্ছে আগামী মৌসুমের দিকে। কিন্তু এই গ্রীষ্মেই যদি কুতিনহোকে বেচে দেয় বার্সা? লিভারপুল এই কিস্তি আর পাবেই না। সঙ্গে পাবে না শেষ শর্তের ২০ মিলিয়নও।

তা শেষ শর্তটা কী? বার্সার জার্সি গায়ে কুতিনহো ১০০ ম্যাচ খেললেই শেষ ২০ মিলিয়ন জমা হবে লিভারপুলের তহবিলে। কিন্তু কুতিনহো এ পর্যন্ত বার্সার হয়ে সব ধরনের প্রতিযোগিতা মিলিয়ে খেলেছেন ৭৪টি ম্যাচ। এ মৌসুমে বার্সার বাকি আর মাত্র দুটি ম্যাচ। সেই দুটিতে খেললে কুতিনহোর ম্যাচ সংখ্যা হবে ৭৭। মানে আসন্ন দলবদলে তাকে বিক্রি করে দিলে শেষ শর্ত পূরণ হবে না। লিভারপুলও শেষ শর্তের টাকা পাবে না!

পরিস্থিতি দেখে মনে হচ্ছে, শেষ দুই শর্তের ২৫ মিলিয়ন ইউরো থেকে লিভারপুলকে বঞ্চিতই করতে যাচ্ছে বার্সা। কুতিনহোকে বিক্রি করে দেওয়ারই সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এই টাকা বাঁচানোর গোপন দুরভিসন্ধি তো আছেই, মোটা অঙ্কের বেতনের বিষয়টিও অফ ফর্মের কুতিনহোকে বিক্রি সিদ্ধান্তে পৌঁছে দিয়েছে বার্সাকে। বার্সায় এই ব্রাজিলিয়ানের বার্ষিক বেতন ১৩.৫ মিলিয়ন ইউরো।

মৌসুমটা একদমই ভালো কাটেনি কুতিনহোর। ব্রাজিল তারকা বার্সার প্রত্যাশার কানাকড়িও পূরণ করতে পারেননি। কাজেই এত টাকা বেতন দিয়ে অফ ফর্মের একজনকে পুষতে চায় না বার্সা!

কুতিনহোকে বিক্রির জন্য বার্সাকে অনুপ্রাণিত করছে তার পেছনে মোটা অঙ্কের বিনিয়োগের টাকা উঠিয়ে আনার বিষয়টিও। তাকে বিক্রি করতে পারলেই তো বার্সার তহবিলে জমা হবে বিশাল অঙ্কের টাকা। সব দিক বিবেচনা করেই বার্সা তাকে বিক্রি করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এরই মধ্যে নাকি ব্রাজিলিয়ান তারকার ওপর প্রাইস-ট্যাগও লাগিয়ে দিয়েছে বার্সা। এখন নাকি খুঁজে বেড়াচ্ছে উপযুক্ত ক্রেতা।

টাকা বাঁচাতে বার্সা সত্যিই কুতিনহোকে বিক্রি করে দেয় কিনা, সেটিই এখন কৌতূহলের বিষয়।

কেআর/

 

ফুটবল: আরও পড়ুন

আরও