সমস্যার জালে বন্দী বেল রিয়াল ছেড়ে চীনে যাবেন!

ঢাকা, রবিবার, ১৯ মে ২০১৯ | ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

সমস্যার জালে বন্দী বেল রিয়াল ছেড়ে চীনে যাবেন!

পরিবর্তন ডেস্ক ১:১৫ অপরাহ্ণ, মে ১১, ২০১৯

সমস্যার জালে বন্দী বেল রিয়াল ছেড়ে চীনে যাবেন!

হায়রে নিয়তি! আজ থেকে ৬ বছর আগে, মানে ২০১৩ সালে টটেনহাম হটস্পার থেকে কি ঢাক-ঢোল পিটিয়েই গ্যারেথ বেলকে কিনে এনেছিল রিয়াল মাদ্রিদ। ক্রিস্তিয়ানো রেনালদো থাকার পরও ওয়েলস তারকাকে তৎকালীন রেকর্ড ১০০ মিলিয়ন ইউরো দিয়ে বেলকে কিনে আনে রিয়াল। বেলের মতো একজন খেলোয়াড়ের এত দাম, পুরো ফুটবল দুনিয়াই বিস্ময়ে ভ্রু কুচকায়।

কেউ কেউ এমন মন্তব্যও করেন, স্রেফ টাকা জলে ফেলা! জবাবে রিয়ালের উচ্চাবিলাসী সভাপতি ফ্লোরেন্তিনো পেরেজ নিন্দুকদের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘বেল কত বড় সম্পদ, এটা তারা বুঝতে পারছে না।’ সময়ের ব্যবধানে পেরেজের সেই ‘মূল্যবান সম্পদ’ই এখন রিয়ালের গলার কাটা! সেই কাটা গিলতেও পারছে না। আবার উগড়েও দিতে পারছে না। স্বয়ং পেরেজও বেলকে নিয়ে আটকে গেছেন সঙ্কটের জালে।

স্পেনের গণমাধ্যমের খবর, অফফর্মের বেলকে বিক্রি করার পাকা পরিকল্পনাই হাতে নিয়েছে রিয়াল। কিন্তু বেলকে মোটা অঙ্কের টাকা দিয়ে কেনার মতো উপযুক্ত ক্রেতা খুঁজে পাচ্ছে না! মানে ইউরোপের কোনো ক্লাবই তাকে কেনার আগ্রহ দেখাচ্ছে না।

আবার ধরে রাখার বিলাসিতাও দেখাতে পারছে না। চরম দুঃসময়ের ভেতর দিয়ে যাওয়া অফফর্মের একজনের পেছনে বসিয়ে বসিয়ে বছরে ১৫ মিলিয়ন ইউরো বেতনের টাকা গোনাটা যে অকারণে হাতি পোষা!

চরম বাণিজ্যিক রিয়াল কিছুতেই আর ‘বেল’ নামের হাতি পুষতে রাজি নয়। কিন্তু উপযুক্ত ক্রেতা পাচ্ছে না। সমস্যাটা তাই ক্লাব রিয়ালের একার নয়। সমস্যাটা বেলেরও। ফর্ম হারিয়ে এরই মধ্যে রিয়ালে শুরুর একাদশে জায়গা হারিয়ে ফেলেছেন। কোচ জিনেদিন জিদানের সঙ্গেও তার সম্পর্কটা বন্ধুত্বের নয়। জিদান আভাস-ইঙ্গিতে বুঝিয়ে দিয়েছেন বেল তার ভবিষ্যত পরিকল্পনায় নেই। রিয়াল সমর্থকেরা চান বেলকে বিদায় করা হোক।

নিজ দলের সমর্থকদের দুয়ো, ম্যাচের পর ম্যাচ বেঞ্চে বসে কাটানো, বেল নিজেও রিয়াল ছাড়তে মরিয়া। না, গণমাধ্যমের তৈরি কোনো গুঞ্জন নয়। বেলের এজেন্ট নিজেই জানিয়েছেন সঙ্কটের কথা। ফলে একটা প্রশ্নই এখন ঘুরছে, রিয়াল ছেড়ে বেল যাবেন কোথায়?

তাকে বিশাল অঙ্কের টাকা দিয়ে কিনবে কে? এক সময় শোনা যাচ্ছিল ইংলিশ ক্লাব ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের। ভাসছিল আবার টটেনহামে ফিরে যাওয়ার গুঞ্জনও। কিন্তু দামের কথা ভেবে, এই দুই ইংলিশ ক্লাবই নাকি বেলের ব্যাপারে আগ্রহ হারিয়ে ফেলেছে।

এখন উপায়? স্পেনের গণমাধ্যমের খবর, রিয়াল ছেড়ে বেল পাড়ি জমাতে পারেন চীনের সুপার লিগে! রিয়াল তাকে বিক্রি করবেই। কিন্তু ইউরোপের নামী কোনো ক্লাব তাকে কিনতেও রাজি নয়। এ অবস্থায় পথ তো খোলা একটাই, বেলকে পাড়ি জমাতে হবে ফুটবলারদের ‘বৃদ্ধাশ্রম’ খ্যাত যুক্তরাষ্ট্রের মেজর লিগ সকার বা চীনের সুপার লিগে।

ইউরোপের অফফর্মের তারকাদের মূলত কাড়ি কাড়ি টাকা দিয়ে এই দুটি দেশের ক্লাবগুলোই কিনে থাকে। আগে ‘বুড়ো’ কেনার দৌড়ে এগিয়ে ছিল যুক্তরাষ্ট্রের মেজর সকার লিগের দলগুলো। এখন এগিয়ে চীন। টাকার জোরে চীনা সুপার ক্লাবের দলগুলো নিকোলাস আনেলকা, কার্লোস তেভেজ, দিদিয়ের দ্রগবাদের মতো বিশ্ব মাতানো তারকাদের কিনেছে।

স্পেনের গণমাধ্যমের খবর, বেলকেও কেনার জন্য আগ্রহ প্রকাশ করেছে চীনের একাধিক ক্লাব। বেলের এজেন্ট জোনাথন বার্নেট নিজেই নাকি এমন তথ্য দিয়েছেন।

রিয়ালের নাকি বেতন কমিয়ে ধরে রাখার একটা পরিকল্পনা ভেতরে ভেতরে ছিল। কিন্তু জোনাথন বার্নেট বলেছেন, কম বেতনে থাকবেন না বেল। তিনি এমন আভাসও দিয়েছেন, চীনা ক্লাবগুলোর পক্ষ থেকে বেলের কাছে বার্ষিক ২০ মিলিয় ইউরো বেতনের প্রস্তাবও আছে। বেলও নাকি তাই ইউরোপের পাট চুকিয়ে ফুটবলারদের নতুন ‘বৃদ্ধাশ্রম’ চীনে যাওয়ার কথাই ভাবছেন।

শুধু ভাবা নয়, বার্নেট জানিয়েছেন ২৯ বছর বয়সী বেলের চীনে যাওয়ার সম্ভাবনাই বেশি!

কেআর