বার্সেলোনার অপেক্ষা বাড়াল অ্যাতলেতিকো

ঢাকা, ২৩ আগস্ট, ২০১৯ | 2 0 1

বার্সেলোনার অপেক্ষা বাড়াল অ্যাতলেতিকো

পরিবর্তন ডেস্ক ৮:৩০ পূর্বাহ্ণ, এপ্রিল ২৫, ২০১৯

বার্সেলোনার অপেক্ষা বাড়াল অ্যাতলেতিকো

গতকাল রাতে ড্রয়িং রুমের সোফায় বসেই লিগ শিরোপার উৎসবে মেতে উঠতে পারত বার্সেলোনা! যদি ভ্যালেন্সিয়ার কাছে হেরে যেতো অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদ। কিন্তু বার্সার হয়ে ভ্যালেন্সিয়া কাজটা করতে পারেনি। উল্টো নিজেদের মাঠে অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদই ৩-২ গোলে হারিয়ে দিয়েছে ভ্যালেন্সিয়াকে। দারুণ এই জয়ে শিরোপার আশাটা বাঁচিয়ে রাখল অ্যাতলেতিকো।

অ্যাতলেতিকোর শিরোপার আশাটা কেবল কাগজে-কলমেই বেঁচে রইল। কার্যত অ্যাতলেতিকোর এই জয়ে বার্সেলোনার অপেক্ষাটা শুধু বেড়েছে। কাতালনদের যে অপেক্ষা শেষ হতে পারে আগামী শনিবারই।

যাই হোক, ভ্যালেন্সিয়া জিতলেই ঘরে বসে শিরোপার স্বাদ পেতে বার্সা। এই সমীকরণ মেলানোর আশায় কাল যে পুরো বার্সেলোনা শিবিরই এক সন্ধ্যার জন্য অ্যাতলেতিকোর সমর্থক বনে গিয়েছিল, সেটি অনুমিতই। মেসি-সুয়ারেজরা হয়তো কায়োমন বাক্যেই প্রার্থনা করছিলেন ভ্যালেন্সিয়ার জয়। কিন্তু তাদের সেই প্রার্থনা ভাগ্য দেবতার দরবারে কবুল হয়নি।

লড়াকু অ্যাতলেতিকো হারের আগে হারেনি। বরং লড়াকু মনোভাব দেখিয়ে জয়ই তুলে নিয়েছে। ঘরের মাঠ ওয়ান্ডা ম্যাট্রোপলিনোতে ম্যাচের ৬ মিনিটেই এগিয়ে যায় অ্যাতলেতিকো। লস কোলচোনেরোসদের এগিয়ে দেন আলভারো মোরাতা।

ভ্যালেন্সিয়া ৩৫ মিনিটেই অবশ্য সমতায় ফেরে। অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদেরই সাবেক খেলোয়াড় কেভিন গামেইরো সর্বনাশটা করেন অ্যাতলেতিকোর। দুর্দান্ত এক গোল করে তিনি ম্যাচে ফেরান ভ্যালেন্সিয়াকে।

এরপর আবারও এগিয়ে যায় স্বাগতিক অ্যাতলেতিকো। দ্বিতীয়ার্ধের প্রায় শুরুতেই মানে ৪৯ মিনিটে লস কোলচোনেরোসদের দ্বিতীয়বার এগিয়ে দেন দলের সবচেয়ে বড় তারকা আতোইন গ্রিজমান। ৭৭ মিনিটে এই গোলটাও শোধ করে দেয় ভ্যালেন্সিয়া। পেনাল্টি থেকে গোল করে লস চে’দের সমতায় ফেরান ড্যানি পারেজো।

কিন্তু দু-দুবার পিছিয়ে পড়ে সমতায় ফেরার পর ভ্যালেন্সিয়ার শেষ রক্ষা হয়নি। ৮১ মিনিটে তৃতীয়বারের মতো অ্যাতলেতিকোকে এগিয়ে দেন অ্যাঙ্গেল কোরেয়া। শেষ পর্যন্ত তার গোলটাই গড়ে দিয়েছে ম্যাচের ভাগ্য। ৩-২ গোলের জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে অ্যাতলেতিকো।

কেআর

 

ফুটবল: আরও পড়ুন

আরও