রোনালদো ছিটকে পড়ায় ব্যালন ডি’অর মেসির হয়ে গেছে!

ঢাকা, ১৪ আগস্ট, ২০১৯ | 2 0 1

রোনালদো ছিটকে পড়ায় ব্যালন ডি’অর মেসির হয়ে গেছে!

পরিবর্তন ডেস্ক ১০:২৭ পূর্বাহ্ণ, এপ্রিল ২০, ২০১৯

রোনালদো ছিটকে পড়ায় ব্যালন ডি’অর মেসির হয়ে গেছে!

ব্যালন ডি’অর ও ইউরোপিয়ান গোল্ডেন বুট- এই দুটো ব্যক্তিগত পুরস্কারই সমান ৫ বার করে জিতেছেন লিওনেল মেসি।

মৌসুমের এই পর্যন্ত যা অবস্থা, তাতে ধরেই নেয়া যায় এই দুটো পুরস্কারই ষষ্ঠবারের মতো উঠতে যাচ্ছে বার্সেলোনার আর্জেন্টাইন তারকার হাতে।

ইউরোপিয়ান গোল্ডেন বুট মেসিই জিততে যাচ্ছেন, এটা এক রকম নিশ্চিতই হয়ে গেছে। ক’দিন আগেও এই পুরস্কারটি নিয়ে মেসির সঙ্গে জমাট প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ছিলেন পিএসজির ফরাসি বিস্ময়বালক কিলিয়ান এমবাপে। কিন্তু, সেই এমবাপে এখন মেসির চেয়ে ৬ গোল বা ১২ পয়েন্টে পিছিয়ে।

লা লিগায় মৌসুমে মেসি এ পর্যন্ত করেছেন ৩৩ গোল। মানে তার অর্জন ৬৬ পয়েন্ট। প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী এমবাপে করেছেন ২৭ গোল। মানে তার অর্জন ৫৪ পয়েন্ট। লিগে বাকি আর মাত্র ৬টি করে ম্যাচ। সেই ৬ ম্যাচে মেসির চেয়ে ৭ গোল বেশি করে পুরস্কারটা জিতবেন, সেই স্বপ্ন হয়তো এখন এমবাপেও ছেড়ে দিয়েছেন। অসম্ভবের স্বপ্ন দেখে লাভ কি!

এই তথ্য স্পষ্টই বলছে, ষষ্ঠবারের মতো ইউরোপিয়ান গোল্ডেন বুট হাতে নেয়াটা মেসির জন্য সময়ের ব্যাপার মাত্র! একটু ঝুঁকি নিয়ে বলা যায়, ষষ্ঠবারের মেসির ব্যালন ডি’অর জেতাটাও এক রকম নিশ্চিত।

আপনি ঝুঁকিটা নিবেন কিনা, আপনার ব্যাপার। হোসে মরিনহো কিন্তু ঝুঁকি নিয়ে নিশ্চিত করেই বলে দিয়েছেন, এবারের ব্যালন ডি’অরটা মেসির হয়ে গেছে! পর্তুগিজ এই কোচের মতে, উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগ থেকে ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোর ছিটকে পড়াটাই মেসিকে ব্যালন ডি’অরের একক দাবিদার বানিয়ে ফেলেছে।

মরিনহো এটাও বলেছেন, রোনালদো ছিটকে পড়ায় মেসি নিজেও বুঝে গেছেন, ব্যালন ডি’অরটা এবার জিতছেন তিনিই!

মরিনহোর যুক্তিটা যথার্থই। রোনালদো এবং তার দল জুভেন্টাস চ্যাম্পিয়ন্স লিগে টিকে থাকলে ব্যালন ডি’অরের দ্বৈরথটা উন্মুক্তই থাকতো। কারণ, চ্যাম্পিয়ন্স লিগ সাফল্যের উপরই মূলত নির্ভর করে বছর শেষে কার হাতে উঠছে মর্যাদার ব্যালন ডি’অর। ফলে জুভেন্টাস টিকে থাকলে রোনালদোও থাকতেন বড় দাবিদার হয়ে।

কিন্তু, ডাচ ক্লাব পুঁচকে আয়াক্স রোনালদো ও জুভেন্টাসের চ্যাম্পিয়ন্স লিগ শিরোপা স্বপ্ন কোয়ার্টার ফাইনালেই গুঁড়িয়ে দিয়েছে। এঁকে দিয়েছে মেসির ব্যালন ডি’অর জয়ের পথ। এ জন্য মেসি চাইলে আয়াক্সকে অপ্রকাশ্যে একটা ধন্যবাদ দিতেই পারেন!

অনেকেই প্রশ্ন তুলতে পারেন, রোনালদোর জুভেন্টাস ছিটকে পড়লেও তো চ্যাম্পিয়ন্স লিগে আরও তিনটি দল টিকে আছে। হ্যাঁ, মেসির বার্সেলোনা ছাড়া আর তিনটি দল দৌড়ে আছে ঠিক। কিন্তু সেই তিন দলেন কোনো তারকাই এককভাবে মৌসুমটা রাঙাতে পারেননি। যেমনটা রাঙিয়েছেন মেসি।

ব্যক্তিগত পুরস্কারের ময়দানে গত বছরটি একদমই হতাশায় কেটেছে মেসির। বিশ্বকাপের বছরটিতে বিশ্বকাপের পারফরম্যান্স ব্যক্তিগত পুরস্কার জয়ে বড় ভূমিকা রাখে। মেসি এখানেই চরম ব্যর্থ ছিলেন। ব্যর্থ ছিলেন চ্যাম্পিয়ন্স লিগেও। ফলে লিগে সর্বোচ্চ গোল করার সুবাদে একমাত্র ইউরোপিয়ান গোল্ডেন বুটটাই উঠেছিল তার হাতে।

সবচেয়ে মর্যাদার ব্যালন ডি’অরের দৌড়ে সেরা পাঁচেই ছিলেন না। এছাড়া ফিফা বর্ষসেরা, উয়েফা বর্ষসেরার দৌড়েও সেরা তিনে জায়গা হয়নি তার। এবার যেন সেই হতাশা ধুয়ে-মুছে পরিষ্কার করার পণই করেছেন। কাটাচ্ছেন অবিশ্বাস্য একটা মৌসুম। ফলে শুধু ইউরোপিয়ান গোল্ডেন বুট বা ব্যালন ডি’অর নয়, বছরের সব ব্যক্তিগত বড় পুরস্কারেরই একক দাবিদার হয়ে উঠেছেন মেসি!

মরিনহো অন্তত মনে করেন সেটাই। ৫৪ বছর বয়সী মরিনহো কখনোই মেসির শুভাকাঙ্ক্ষী ছিলেন না। বরং রিয়াল মাদ্রিদের কোচ থাকাকালে মেসির শত্রুদের একজনই ছিলেন তিনি। কিন্তু, এ মৌসুমে মেসির অবিশ্বাস্য পারফরম্যান্স দেখে সেই মরিনহোও প্রশংসার ডালি খুলে বসলেন।

দুরন্ত মেসিকে থামানোর সূত্র কোনো দলের কোচ-খেলোয়াড়রাই খুঁজে পাচ্ছেন না। মেসির প্রশংসা করে মরিনহোও বললেন, ‘মাঠে মেসির পজিশন বোঝাটা সহজই। তবে তাকে আটকানোর জন্য খাঁচা তৈরি করাটা মোটেও সহজ কাজ নয়। বল পায়ে মেসি যখন ওয়ান-অন-ওয়ান অবস্থায় থাকবে, আপনাকে খুন করে ফেলবে। আপনাকে অবশ্যই মেসির চারপাশে খাঁচা তৈরি করতে হবে।’

এরপরই ব্যালন ডি’অর প্রসঙ্গে বলেছেন, ‘মেসি বিস্ময়কর একটা মৌসুম কাটাচ্ছে। জুভেন্টাস ও রোনালদো ছিটকে পড়ায় মেসিও জেনে গেছে, ব্যালন ডি’অর তার জন্যই অপেক্ষা করছে।’

কেআর/আইএম

 

ফুটবল: আরও পড়ুন

আরও