‘৬০০’ ডাকছে মেসিকে

ঢাকা, সোমবার, ২০ মে ২০১৯ | ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

‘৬০০’ ডাকছে মেসিকে

পরিবর্তন ডেস্ক ১২:৩৩ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৮, ২০১৯

‘৬০০’ ডাকছে মেসিকে

মঙ্গলবার ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের বিপক্ষে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ কোয়ার্টার ফাইনালের দ্বিতীয় লেগে জোড়া গোল করেছেন লিওনেল মেসি। তার দল বার্সেলোনাও ৩-০ গোলে জিতে উঠে গেছে সেমি ফাইনালে। ন্যু-ক্যাম্পের এই জোড়া গোলের মধ্যদিয়ে বার্সেলোনার আর্জেন্টাইন সুপারস্টার পৌঁছে গেছেন অনন্য এক মাইলফলকের দোরগোড়ায়। আর মাত্র ৪টি গোল হলেই বার্সেলোনার ইতিহাসের প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে মেসি ছুঁয়ে ফেলবেন ‘৬০০’ গোলের মাইলফলক।

মঙ্গলবারের দুই গোল নিয়ে ক্লাব বার্সেলোনার হয়ে মেসির অফিসিয়াল গোল সংখ্যা এখন ৫৯৬টি। উইকিপিডিয়া অবশ্য বলছে, বার্সেলোনার জার্সিতে মেসির অফিসিয়াল গোল সংখ্যা ৫৯৭টি। কিন্তু পরিসংখ্যানের পাতা ঘেঁটে স্পেনের জনপ্রিয় ক্রীড়া দৈনিক মার্কা বলছে, মেসির প্রকৃত গোল সংখ্যা ৫৯৬টি।

এর মধ্যে ৪১৬টি লা লিগায়। ১১০টি উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগে। ৫০টি কোপা ডেল রে’তে। বাকি ২০টি গোল তিনি করেছেন স্প্যানিশ সুপার কাপ, উয়েফা সুপার কাপ, বিশ্ব ক্লাব বিশ্বকাপসহ অন্যান্য প্রতিযোগিতায়।

যে হারে গোল করছেন, তাতে সামনের দুই-তিন ম্যাচের মধ্যেই যে আর্জেন্টাইন তারকা অবিশ্বাস্য ‘৬০০’ ধরে ফেলবেন, এটা অনুমিতই। সেই মহেন্দ্রক্ষণটি কখন আসবে, নিশ্চিতভাবেই বিশ্বজুড়ে মেসি-ভক্তরা এখন সেই প্রতীক্ষায়।

মধুর সেই প্রতীক্ষার এই সময়টাতে মার্কা মেসি ভক্তদের জন্য তুলে ধরেছেন মেসির অবিশ্বাস্য কিছু গোলের চিত্রও। ক্যারিয়াড় জুড়ে এতো এতো গোল করার পথে কত দর্শনীয় গোলই তো করেছেন মেসি। বাঁকানো ফ্রি কিক, বক্সের বাইরে থেকে বুলেট গতির দূরপাল্লার শট, দুরূহ কোণ থেকে অবিশ্বাস্য প্লেসিং— অনেকভাবেই বাজিমাত করেছেন।

মার্কা জানাচ্ছে, এই ৫৯৬টি গোলের মধ্যে মেসি কিছু গোল করেছেন বাইসাইকেল কিক, ব্যাকহিল, এমনকি একটা গোল তিনি করেছেন বুটের বাইরের অংশ দিয়ে, অবিশ্বাস্য জাদুর মাধ্যমেও!

উপরের ছবিটিতে বিরল সেই গোলগুলোর ছবিই একসঙ্গে জুড়ে দেওয়া হয়েছে। ছবিতে স্পষ্টই দেখা যাচ্ছে, জটলার মধ্য থেকেও দর্শনীয় ভঙ্গিতে বাঁ-পায়ের বাইসাইকেল কিকে গোল করছেন মেসি। পাশের ছবিটিতে দেখা যাচ্ছে বুটের বাইরের অংশ দিয়ে গোল করার অবিশ্বাস্য জাদু।

বয়স সবে ৩১। পায়ের মোহনীয় জাদুও অব্যাহত। সুতরাং সামনে যে মেসির পা থেকে আরও অনেক ব্যতিক্রমধর্মী দর্শনীয় গোলের দেখা মিলবে, সেই প্রত্যাশা করাই যায়।

কেআর