মানে-সালাহ-ফিরমিনোয় বীরদর্পে সেমিতে লিভারপুল

ঢাকা, শুক্রবার, ২৪ মে ২০১৯ | ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

বিষয় :

ফুটবল

চ্যাম্পিয়ন্স লিগ

লিভারপুল

পোর্তো

মানে-সালাহ-ফিরমিনোয় বীরদর্পে সেমিতে লিভারপুল

পরিবর্তন ডেস্ক ৯:৪৪ পূর্বাহ্ণ, এপ্রিল ১৮, ২০১৯

মানে-সালাহ-ফিরমিনোয় বীরদর্পে সেমিতে লিভারপুল

ঘরের মাঠের প্রথম লেগে ২-০ গোলে জিতে সেমি ফাইনালে এক পা দিয়েই রেখেছিল গতবারের ফাইনালিস্ট লিভারপুল। বুধবার এফসি পোর্তোর মাঠের ফিরতি লেগে ড্র বা ১-০ গোলে হারলেও চলত অল রেডদের।

কিন্তু লক্ষ্য যাদের শিরোপা, তাদের কি ড্রয়ের নেশায় খেললে চলে! চলে না বলেই কিনা কাল লিভারপুলের জয় ক্ষুধাটা ছিল আরও বেশি। সাদিও মানে, মোহামেদ সালাহ, রবার্তো ফিরমিনো, ভিরগিল ফন ডিকরা মিলে সেই ক্ষুধাটা মেটালেন দলকে ৪-১ গোলে জিতিয়ে।

দুই লেগ মিলিয়ে ৬-১ গোলের অগ্রগামিতা। লিভারপুল বীরের বেশেই পা রাখল সেমি ফাইনালে। পোর্তোকে রীতিমতো উড়িয়ে দিয়ে। উপরের নামগুলোতেই স্পষ্ট, কাল পোর্তোর মাঠে পোর্তোকে নিয়ে ছেলেখেলা করতে লিভারপুলের হয়ে গোল করেছেন এরা।

প্রথম লেগে প্রতিপক্ষের মাঠ থেকে ২-০ গোলে হেরে আসে পোর্তো। পর্তুগিজ ক্লাবটির হয়তো স্বপ্ন ছিল ঘুরে দাঁড়িয়ে নিজেদের মাঠে প্রত্যাবর্তনের গল্প লেখার। কিন্তু পোর্তোর সেই স্বপ্নে ২৬ মিনিটেই জল ঢেলে দেন সাদিও মানে। সেনেগালিজ ফরোয়ার্ড দুর্দান্ত এক লক্ষ্যভেদে সফরকারী লিভারপুলকেই এগিয়ে দেন প্রথমে।

এরপর ৬৫ মিনিটে ব্যবধান ২-০ করে ফেলেন মিশরীয় ফরোয়ার্ড মোহামেদ সালাহ। দুই লেগ মিলিয়ে লিভারপুল তখন ৪-০ গোলে এগিয়ে। লিভারপুলের সেমি ফাইনাল নিশ্চিত হয়ে যায় তখনই। তবে ৬৮ মিনিটে গোল করে পোর্তোকে ঘুরে দাঁড়ানোর আত্মবিশ্বাস দিয়েছিলেন ব্রাজিলিয়ান তরুণ এদের মিলিতাও।

কিন্তু এরই মধ্যে রিয়াল মাদ্রিদের সঙ্গে চুক্তি করে ফেলা মিলিতাওয়ের সেই গোল যেন লিভারপুলের গোল ক্ষুধাটা আরও বাড়িয়ে দেয়। স্বদেশি মিলিতাওয়ের গোলের জবাবে ৭৭ মিনিটেই আবার লিভারপুলকে আনন্দে ভাসান রবার্তো ফিরমিনো।

এই ব্রাজিলিয়ানের গোলের রেশ মিলিয়ে যাবার আগেই আবারও গোল উৎসবে মাতার উপলক্ষ পায় লিভারপুল। এবার গোল করেন বিশ্বের সবচেয়ে দামী ডিফেন্ডার ভিরগিল ফন ডিক। ডাচ ডিফেন্ডার গোলটা করেন ম্যাচের ৮৪ মিনিটে। ফলে ৪-১ গোলের বড় জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে শিরোপার নেমায় টগবগিয়ে ফুটতে থাকা লিভারপুল।

অলরেডরা বীরের মতোই সেমি ফাইনালে উঠেছে। তবে সেমির পরিকল্পনা করতে গিয়ে হয়তো লিভারপুলের জার্মান কোচ ইয়ুর্গেন ক্লপের অন্তরে একটা ভয়ও ঢুকে গেছে। সেমি ফাইনালে তাদের প্রতিপক্ষ যে অবিশ্বাস্য গতিতে ছুটে চলা লিওনেল মেসির বার্সেলোনা। যারা ইংল্যান্ডেরই আরেক ক্লাব ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডকে উড়িয়ে দিয়ে কেটেছে সেমির টিকিট। দুই লেগ মিলিয়ে হারিয়েছে ৪-০ গোলে।

কেআর