৭ জনের সেরা ম্যারাডোনা, ১০ জন বললেন মেসি

ঢাকা, ১৭ জুলাই, ২০১৯ | 2 0 1

৭ জনের সেরা ম্যারাডোনা, ১০ জন বললেন মেসি

পরিবর্তন ডেস্ক ২:০৩ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ০৩, ২০১৯

৭ জনের সেরা ম্যারাডোনা, ১০ জন বললেন মেসি

সর্বকালের সেরা ফুটবলার কে? এই বিতর্কের অবসান কেউ করতে পারেননি। কখনো কেউ পারবেনও না। এর মধ্যেই শুরু হয়ে গেছে আরেক বির্তক, ডিয়েগো ম্যারাডোনা ও লিওনেল মেসির মধ্যে সেরা কে?

আর্জেন্টিনার সর্বকালের সেরা কে, এই প্রশ্নের উত্তরের জন্যই এই বিতর্কের প্রবর্তন। মজার ব্যাপার হলো, বিশ্বের সর্বকালের সেরা কে-এর মতো মেসি-ম্যারাডোনার বিষয়টিও মনে হচ্ছে চিরকালীন বিতর্কের অংশ হয়েই থাকবে।

কেউ ম্যারাডোনাকে এগিয়ে রাখছেন তো, কারো চোখে মেসিই সেরা। সম্প্রতি ঐতিহাসিক এই বিতর্কের অবসান করতেই সাবেক-বর্তমান ১৭ জন কোচ-খেলোয়াড়ের সাক্ষাৎকার নিয়েছে স্পেনের জনপ্রিয় ক্রীড়া দৈনিক মার্কা। তাতে ১৭ জনের ৭ জনে একবাক্যে বলেছেন ম্যারাডোনা সেরা। ১০ জনে উপরে রেখেছেন মেসিকে! মানে মার্কার সাক্ষাৎকার ভোটাভুটির হিসেবে মেসিই বিজয়ী। তবে কার্যত বিতর্কের অবসান হয়নি। বরং বিতর্কটা আরও জট পাকিয়েছে।

কিভাবে? সেটা ব্যাখ্যা করার আগে আসুন জেনে নেই মেসি-ম্যারাডোনার বিতর্কে কে কাকে সেরা বলেছেন। যে ৭ জন ম্যারাডোনাকে সেরার মুকুট পরিয়েছেন, তারা হলেন ব্রাজিল কিংবদন্তি পেলে, জিকো, রোমারিও, আর্জেন্টিনার সাবেক তারকা গ্যাব্রিয়েল বাতিস্তুতা, হুয়ান রেমন রিকেলমে, পর্তুগিজ কিংবদন্তি লুইস ফিগো এবং সাবেক সুইডিশ তারকা জ্লাতান ইব্রাহিমোভিচ।

পক্ষান্তরে মেসিকে সেরা বলেছেন ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের সাবেক কোচ স্যার অ্যালেক্স ফারগুসন, রিয়াল মাদ্রিদ ও স্পেনের সাবেক কোচ ভিসেন্তে দেল বস্ক, বার্সেলোনার সাবেক তারকা খেলোয়াড় জাভি হার্নান্দেজ, আন্দ্রেস ইনিয়েস্তা, ডেভিড ভিয়া, রিয়াল মাদ্রিদের অধিনায়ক সার্জিও রামোস, পিএসজির ব্রাজিলিয়ান ডিফেন্ডার দানি আলভেস, চেলসির বেলজিয়ান মিডফিল্ডার এডেন হ্যাজার্ড, আর্জেন্টিনার সাবেক ফুটবলার মারিও কেম্পেস এবং স্বয়ং ডিয়েগো ম্যারাডোনা।

ডিয়েগো ম্যারাডোনা একক প্রচেষ্টায় দেশকে ১৯৮৬ বিশ্বকাপ জিতিয়েছেন

ভোটের অনুপাত ৭ : ১০ হলেও তা বিতর্কের অবসান করতে পারছে না। বরং বিতর্কটা যেন আরও জটিল হয়েছে। কারণ, ম্যারাডোনাকে যারা সেরা বলছেন, তারা সবাই ম্যারাডোনার সমসাময়িক খেলোয়াড় বা তার চেয়ে সিনিয়র। বর্তমান খেলোয়াড়দের মধ্যে ম্যারাডোনাকে একমাত্র ভোট দিয়েছেন জ্লাতান ইব্রাহিমোভিচ। যিনি মেসির প্রকাশ্য শত্রু হিসেবে বিবেচিত! সুতরাং তিনি যে মেসির বিপক্ষে ভোট দেবেন, সেটি স্পষ্টই।

অন্যদিকে মেসিকে যারা ‘সেরা’ মানছেন, তাদের বেশির ভাগই মেসির সমসাময়িক খেলোয়াড়। ১০ জনের মধ্যে ৪ জনই মেসির ক্লাব সতীর্থ। মানে জাভি, ইনিয়েস্তা, দানি আলভেস, ডেভিড ভিয়া—এই ৪ জনই ক্লাব বার্সেলোনায় মেসির সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে খেলেছেন। এছাড়া রিয়ালের সার্জিও রামোস ও চেলসির এডেন হ্যাজার্ড মেসির সমসাময়িক। একসঙ্গে না খেললেও প্রতিপক্ষ হিসেবে মুখোমুখি হচ্ছেন প্রায়ই। একসঙ্গে খেলা দূরের কথা, ম্যারাডোনার খেলাও হয়তো তারা সরাসরি দেখার সুযোগ পাননি!

ফলে দেখা যাচ্ছে, মেসি নিরপেক্ষ ভোট পেয়েছেন মাত্র ৩টি। স্যার অ্যালেক্স ফারগুসন, স্পেনের সাবেক কোচ ভিসেন্তে দেল বস্ক ও আর্জেন্টিনার ১৯৭৮ বিশ্বকাপজয়ী তারকা কেম্পেসের। ম্যারাডোনা নিশ্চয়ই তার নিজের ভোটটি মেসিকে দিয়েছেন ভদ্রতা সৌজন্যতার খাতিরে।

বার্সেলোনার হয়ে সবকিছু জিতলেও দেশকে এখনো কিছুই জেতাতে পারেননি লিওনেল মেসি

ম্যারাডোনার সবচেয়ে বড় সার্থকতা, তার চিরশত্রু, সর্বকালের সেরা প্রশ্নে যার সঙ্গে তার চির দ্বৈরথ, সেই পেলেও তাকে ভোট দিয়েছেন। ফলে বিতর্কের অবসান তো হয়-ই নি, বরং এই সাক্ষাৎকার ভোটাভুটি অন্য একটা বিতর্ক তুলে দিয়েছে। মেসি-ম্যারাডোনার বিতর্কে যারা ম্যারাডোনা সেরা বলেছেন, তাদের কেউ কেউ ম্যারাডোনাকে একেবারে সর্বকালের সেরা বানিয়েছেন। পর্তুগিজ কিংবদন্তি লুইস ফিগো যেমন বলেছেন, ‘ম্যারাডোনাই সর্বকালের সেরা।’

অন্যদিকে স্পেনের সাবেক কোচ দেল বস্ক ও বার্সেলোনার সাবেক মিডফিল্ডার ইনিয়েস্তা দ্বিধাহীন ভাষায় মেসিকে ‘সর্বকালের সেরা’ বলে রায় দিয়েছেন। বাকিরা ম্যারাডোনার চেয়ে এগিয়ে রেখেছেন। মানে মেসিকে আর্জেন্টিনার সর্বকালের সেরা মানছেন।

শেষে এই পাদটীকাটা অবশ্যই জুড়ে দেওয়া দরকার। বাইরের লোকেরা যে যাই বলুক, আর্জেন্টাইনদের চোখে এখনো ম্যারাডোনাই স্বপ্নের নায়ক। একক প্রচেষ্টায় দেশকে ১৯৮৬ বিশ্বকাপ জিতিয়েছেন তিনি। বেশির ভাগ আর্জেন্টাইনই তাকে ‘ফুটবল ঈশ্বর’ মানে। বিপরীতে ক্লাবের সবকিছু জিতলেও দেশকে এখনো কিছুই জেতাতে পারেননি মেসি। বারবার স্বপ্নভঙ্গ করায় মেসিকে শূলে চড়াতেও কার্পণ্য করেননি আর্জেন্টাইনরা।

কেআর/পিএ

 

ফুটবল: আরও পড়ুন

আরও