স্প্যানিয়ার্ডদের টাক মাথায় চুল দেবেন রোনালদো!

ঢাকা, ১৬ জুলাই, ২০১৯ | 2 0 1

স্প্যানিয়ার্ডদের টাক মাথায় চুল দেবেন রোনালদো!

পরিবর্তন ডেস্ক ২:৪৬ অপরাহ্ণ, মার্চ ১৯, ২০১৯

স্প্যানিয়ার্ডদের টাক মাথায় চুল দেবেন রোনালদো!

স্পেনের ‘টাকওয়ালাদের জন্য সুসংবাদ। তাদের ‘টাক’ সমস্যার সমাধানের জন্য এগিয়ে এলেন ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো। টাকওয়ালাদের ‘টাক’ সেবার জন্য পর্তুগিজ তারকা স্পেনে খুলে বসলেন ‘চুল প্রতিস্থাপন ক্লিনিক’ তথা হাসপাতাল।

স্পেনের মানুষের ওপর মহাবিরক্ত ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো। বিশেষ করে স্পেনের ক্রীড়া সাংবাদিকদের সঙ্গে পর্তুগিজ তারকার সম্পর্কটা দা-কুমড়ার মতো।

রোনালদোর মতে, মেসিকে ওপরে তুলতে বিনা কারণে হুল ফোটাত স্পেনের সাংবাদিকরা। মুখর ছিল সমালোচনায়। তা যতই রাগ-ক্ষোভ থাক, ক্যারিয়ারের দীর্ঘ ৯টি গুরুত্বপূর্ণ বছর কাটিয়েছেন যে দেশে, সেই দেশের প্রতি মনের অন্দরে দরদও আছে।

রোনালদোর সেই দরদের পরিচয়ই মিলল এই চুল প্রতিস্থাপন ক্লিনিক খোলার মাধ্যমে। অল্প বয়সেই চুল পড়ে মাথাটা ‘টাক’ হয়ে গেছে যে স্পানিয়ার্ডদের, তাদের আর দুশ্চিন্তা করতে হবে না। রোনালদোর ক্লিনিকে গিয়ে খুব সহজেই টাক মাথাটা ঢেকে নিতে পারবেন নানা রঙের চুলের বাহারে।

এই ক্লিনিকের মাধ্যমে শুধু স্পেনের টাকওয়ালাদের উপহার হবে তা নয়, রোনালদোর মতে স্পেনের অর্থনীতিতেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে তার এই ক্লিনিক। ঘটাবে দেশটির আর্থিক সমৃদ্ধি।

২০০৯-১০ থেকে ২০১৭-১৮, দীর্ঘ এই ৯টি মৌসুম খেলেছেন রিয়াল মাদ্রিদে। ফলেই মাদ্রিদেই গড়েছিলেন বসত বাড়ি। বিশাল এক প্রাসাদ কিনে বসবাস করেছেন। স্পেনে একাধিক হোটেলও খুলেছেন তিনি। সেই হোটেল ব্যবসার পাশাপাশি এবার নামলেন টাকওয়ালাদের টাক মাথায় চুল প্রতিস্থাপনের ব্যবসায়।

রোনালদো একা অবশ্য নন। ক্লিনিকটা তিনি খুলেছেন তার দেশ পর্তুগাল ভিত্তিক গ্রুপ অব কোম্পানি ইনস্পারিয়ার সঙ্গে অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে। ইনস্পারিয়া গ্রুপ দেশ পর্তুগালে প্রায় ১০টির মতো চুল প্রতিস্থাপন ক্লিনিক খুলেছে। এরই মধ্যে ৩৫ হাজার ‘টাক’ মাথায় চুল প্রতিস্থান করেছে তারা। জানিয়েছে টাক মাথায় চুল প্রতিস্থাপন করতে ৬ ঘণ্টা সময় লাগে তাদের। খরচ পড়ে ৪ হাজার থেকে ৭ হাজার ইউরো।

দেশ পর্তুগালে সাফল্যের পর গ্রুপটির এবার দখল করতে চাইছে স্পেনের বাজার। আর দ্রুত বাজার দখলের আশায় ব্র্যান্ড হিসেবেই রোনালদোকে নতুন এই প্রকল্পের সঙ্গে যুক্ত করেছে গ্রুপ অব কোম্পানিটি। স্পেনের প্রকল্পটির ৫০ শতাংশ মালিকানা রোনালদার। বাকি ৫০ শতাংশ মালিকা ইনস্পারিয়া গ্রুপের। যে গ্রুপটির প্রধান নির্বাহী মানে সিইও হলেন পাওলো রামোস। এই ভদ্রলোকের আহ্বানেই এই চুল প্রতিস্থাপন প্রকল্পে যুক্ত হয়েছেন রোনালদো। এমন একটি সেবাধর্মী প্রকল্পের সঙ্গে যুক্ত হতে পেরে রোনালদো খুব খুশি।

সম্প্রতি ক্লিনিকটির উদ্বোধন করতে ইতালি থেকে স্পেনে উড়ে এসেছিলেন ৩৪ বছর বয়সী রোনালদো। ক্লিনিক উদ্বোধনের পর এক প্রতিক্রিয়ায় তিনি বলেছেন, ‘টাক, ইউরোপ তথা পুরো বিশ্বেরই বড় এক সমস্যা। টাক হলে মানুষ হীনম্মন্যতায় ভোগে। আমরা সেসব মানুষদের আত্মস্মান বা মর্যাদাবোধের উন্নতি করতে চাই। যাতে তারা সমাজে চলতে ফিরতে লজ্জাবোধ না করে।’

নিজের উদাহরণ দিয়ে জুভেন্টাসের পর্তুগিজ সুপারস্টার আরও বলেছেন, ‘প্রত্যেক মানুষই নিজের ভাবমূর্তির প্রতি যত্নবান হয়। আমি এর জ্বলন্ত উদাহরণ। এ কারণেই পাওলো যখন আমাকে এই প্রকল্পের বিষয়ে বলে, সঙ্গে সঙ্গেই আমি অনুধাবন করতে পারি, এটা হবে অসাধারণ একটা কাজ। আশা করি এই প্রকল্পটা সাফল্যের মুখ দেখবে। আমরা স্পেনের মানুষ এবং অর্থনৈতিক উন্নতিতে সাহায্য করতে চাই।’

কেআর

 

ফুটবল: আরও পড়ুন

আরও