২০১৪-১৫ মৌসুমের পর এবারই সেরা রূপে মেসি!

ঢাকা, ১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ | 2 0 1

২০১৪-১৫ মৌসুমের পর এবারই সেরা রূপে মেসি!

পরিবর্তন ডেস্ক ৪:৫৬ অপরাহ্ণ, মার্চ ১৬, ২০১৯

২০১৪-১৫ মৌসুমের পর এবারই সেরা রূপে মেসি!

তাহলে মৌসুমের শুরুতে দেয়া লিওনেল মেসির সেই ঘোষণাটাই সত্যি হতে যাচ্ছে? ‘ট্রেবল’ (লিগ, কোপা ডেল ও চ্যাম্পিয়ন্স লিগ শিরোপা) জিততে যাচ্ছে বার্সেলোনা?

মেসির এই পরিসংখ্যানতো সেই ইঙ্গিতই দিচ্ছে। সর্বশেষ ‘ট্রেবল’ জয়ী ২০১৪-১৫ মৌসুমের পর এবারই যে সেরা রূপে তিনি।

ক্যারিয়ারে এ পর্যন্ত দুবার ‘ট্রেবল’ জয়ের স্বাদ পেয়েছেন মেসি। ২০০৮-০৯ ও ২০১৪-১৫ মৌসুমে। সেই দু’বারই অবিশ্বাস্য ফর্মে ছিলেন বার্সেলোনার আর্জেন্টাইন তারকা। তার কাঁধে চেপেই মূলত ‘ট্রেবল’ জেতে বার্সা। কিন্তু, গত তিন মৌসুমে বার্সেলোনা দু’বার লিগ ও তিনবার কোপা ডেল রে শিরোপা জিতলেও উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শিরোপা জিততে পারেনি। মানে হয়নি ‘ট্রেবল’ জেতা।

এই না পারার অন্যতম কারণ, গত মৌসুমে তুলনামূলকভাবে কিছুটা নিষ্প্রভ ছিলেন মেসি! পরিসংখ্যান অন্তত সেটাই বলছে। তবে, এবার আশাটা বড়। অধিনায়ক মেসির এই পরিসংখান হয়তো বার্সেলোনা সমর্থকদের আরও বেশি আশান্বিত করে তুলছে। সর্বশেষ ‘ট্রেবল’ জেতা ২০১৪-১৫ মৌসুমের পর এবারই সেরা ফর্মে আর্জেন্টাইন তারকা।

গত তিন মৌসুমেই চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শিরোপা জিতেছে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী রিয়াল মাদ্রিদ। মানে মেসিদের হতাশ হতে হয়েছে। আর চ্যাম্পিয়ন্স লিগ না জেতার কারণেই কিনা, এই তিন বছরে মেসি ছুঁয়ে দেখতে পারেননি মর্যাদার ব্যালন ডি’অরও। তিন বারের দু’বার ব্যালন ডি’অর জিতেছেন তার চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো। একবার লুকা মড্রিচ।

এই হতাশা থেকেই কিনা মেসি এবার মৌসুমের শুরুতেই ঘোষণা দেন, এবার তাদের লক্ষ্য ‘ট্রেবল’। বিশেষ করে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ শিরোপার কথাটা আলাদাভাবেই বলেন, ‘আমরা চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জিততে চাই।’

নিজের এইা ঘোষণা বাস্তবে মৌসুমের শুরুটা করেন দুর্দান্ত। কিন্তু, তার অবিশ্বাস্য যাত্রায় হানা দিয়ে বসে চোট। চোট কাটিয়ে সেরা রূপেই ফিরে আসেন। কিন্তু, গত মাসে হঠাৎই নিজেকে কিছুটা হারিয়ে ফেলেন মেসি। মাঠে কিছুটা ক্লান্ত মনে হয়েছে তাকে। তবে, গত বুধবার অলিম্পিক লিঁও’র বিপক্ষে স্বপ্নময় এক রাত কাটিয়েছেন তিনি।

দলকে কোয়ার্টার ফাইনালে তুলে দেয়া ৫-১ গোলের জয় এনে দিতে মেসি নিজে করেছেন জোড়া গোল। সতীর্থদের দিয়েও করিয়েছেনও দুটি। মানে দলের ৫ গোলের ৪টিতেই ছিল মেসির প্রত্যক্ষ অবদান। এই দুই গোল আর দুই অ্যাসিস্টই পরিসংখ্যানের পাতায় মেসিকে আগের তিন মৌসুমের তুলনায় সেরা বানিয়ে দিয়েছে।

মৌসুমে এ পর্যন্ত সব ধরনের প্রতিযোগিতা মিলিয়ে ৩৬ ম্যাচে ৩৬ গোল করেছেন মেসি। পাশাপাশি অ্যাসিস্ট করেছেন ১৮টি মানে। মানে বার্সেলোনার মোট ৫৪টি গোলে প্রত্যক্ষ অবদান তার। মৌসুমে সব মিলে বার্সেলোনা এ পর্যন্ত করেছে ১০৯ গোল। যার অর্থ, দলের মোট গোলের অর্ধেকই মেসির প্রত্যক্ষ অবদানের ফসল।

পরিসংখ্যান বলছে, ২০১৪-১৫ মৌসুমের পর এবারই বেশি গোলে অবদান রেখেছেন মেসি। ২০১৪-১৫ মৌসুমে অবশ্য এবারের চেয়েও বেশি অপ্রতিরোধ্য ছিলেন। মৌসুমের এ পর্যন্ত আসতে করেছিলেন ৪১ গোল। অ্যাসিস্ট করেছিলেন ২০টিতে। মানে অবদান রেখেছিলেন দলের ৬০টি গোলে। দলকে ‘ট্রেবল’ জেতাতে শেষ পর্যন্ত করেছিলেন ৫৮ গোল। অ্যাসিস্ট করেছিলেন ২৬টি। দুইয়ে মিলে অবদান রেখেছিলেন ৮৪টি গোলে।

পুরো মৌসুমের হিসাব দূরে রাখুন। তুলনামূলক পরিসংখ্যানটা মৌসুমের এ পর্যন্ত সময়ের। তাতে দেখা যাচ্ছে, মৌসুমের এই পর্যায়ে ২০১৫-১৬ মৌসুমে মেসি নিজে করেছিলেন ৩৬ গোল, অ্যাসিস্ট করেছিলেন ১৫টি। প্রত্যক্ষ অবদান ছিল ৫১ গোলে। ২০১৬-১৭ মৌসুমে গোলটি বেশি মানে ৩টি করলেও অ্যাসিস্ট করেন ১৩টি। মানে প্রত্যক্ষ অবদান ৫২ গোলে।

সর্বশেষ ২০১৭-১৮ মৌসুমে নিজে করেছিলেন ৩২ গোল, অ্যাসিস্ট ১৫টি। প্রত্যক্ষ অবদান দলের ৪৭ গোলে। সেখানে এবার সরাসরি সম্পৃক্ত ৫৪ গোলে।

সুতরাং মেসির এই পরিসংখ্যানের দিকে তাকিয়ে বার্সেলোনার সমর্থকরা আশায় বুক বাঁধতেই পারেন, আসছে ট্রেবল! আর সেটা হলে তিন বছর বিরতির পর মেসির হাতে আবারও উঠতে পারে মর্যাদার ব্যালন ডি’অর।

কেআর/আইএম

 

ফুটবল: আরও পড়ুন

আরও