রোনালদো ম্যাজিকে মেসিও বিস্মিত-মুগ্ধ

ঢাকা, সোমবার, ২৭ মে ২০১৯ | ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

রোনালদো ম্যাজিকে মেসিও বিস্মিত-মুগ্ধ

পরিবর্তন ডেস্ক ৯:৪৮ পূর্বাহ্ণ, মার্চ ১৪, ২০১৯

রোনালদো ম্যাজিকে মেসিও বিস্মিত-মুগ্ধ

অসাধারণ এক হ্যাটট্রিক করে জুভেন্টাসকে এক অবিশ্বাস্য জয় এনে দিয়েছেন ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো। প্রথম লেগে ২-০ গোলে হারার পরও দ্বিতীয় লেগে ৩-০ গোলে জিতিয়ে জুভেন্টাসকে নিয়ে গেছেন চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কোয়ার্টার ফাইনালে। মঙ্গলবার রাতে জুভেন্টাসের মাঠে এই জাদুকরী পারফরম্যান্সের জন্য পুরো ফুটবল দুনিয়াই রোনালদোর প্রশংসায় পঞ্চমুখ। বিস্ময়কর হলেও সত্যি, রোনালদোর সেই প্রশংসাকারীদের তালিকায় যোগ দিলেন লিওনেল মেসিও। বার্সেলোনার আর্জেন্টাইন তারকাও চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী রোনালদোর জাদুকরী পারফরম্যান্সে বিস্মিত, মুগ্ধ।

সাংবাদিকের প্রশ্নের মুখে কখনো সখনো হয়তো একে অন্যের প্রশংসা-স্তুতি তারা গেয়েছেন। তবে সেটা স্রেফ সৌজন্যতার খাতিরে, বাধ্য হয়ে। লিওনেল মেসি বা ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো, কখনোই তারা মন থেকে একে অন্যের প্রাণখোলা প্রশংসা করেননি। প্রতিদ্বন্দ্বিতার দৌড়ে নিজেকে এগিয়ে রাখতেই একে অন্যের আন্তরিক প্রশংসা করা থেকে বিরত থেকেছেন তারা।

অবশেষে ব্যক্তি স্বার্থের সেই কপটতা থেকে বেরিয়ে এসে প্রতিদ্বন্দ্বী রোনালদোর পারফরম্যান্সের জয়গান গাইলেন মেসি। অন্যদের তিনিও রোনালদোর মঙ্গলবারের পারফরম্যান্সকে আখ্যায়িত করলেন ‘ম্যাজিক্যাল’ বলে। মজার বিষয় হচ্ছে, মেসি প্রতিদ্বন্দ্বী রোনালদোর এই জয়গানটা গাইলেন নিজেও অবিশ্বাস্য একটা ম্যাচ কাটানোর পর।

মঙ্গলবার রোনালদো যেমন স্বপ্নময় একটা রাত কাটিয়েছেন, গতকাল মেসিও প্রায় সেরকমই একটা স্বপ্নময় রাত কাটিয়েছেন। ন্যু-ক্যাম্পের দ্বিতীয় লেগে অলিম্পিক লিঁওর বিপক্ষে বার্সেলোনাকে ৫-১ গোলের জয় এনে দিতে তিনি নিজে করেছেন জোড়া গোল। সতীর্থদের দিয়ে করিয়েছেন আরও দুটি।

স্বপ্নময় এই ম্যাচ শেষেই সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে রোনালদোকে প্রশংসায় ভাসিয়েছেন মেসি। মোভিস্টারকে বলেছেন, ‘এক কথায়, রোনালদো ও জুভেন্টাস ছিল অবিশ্বাস্য। এটা অবশ্যই বড় বিস্ময়ের। কারণ, আমি মনে করেছিলাম, অ্যাতলেতিকো আরও শক্তিশালী হয়ে দেখা দিবে। কিন্তু জুভেন্টাস তাদের পেছনে ফেলে দিয়েছে। ৩ গোল করে ক্রিস্তিয়ানো জাদুকরী একটা রাতই কাটিয়েছে।’

দুই গোল ও দুটি অ্যাসিস্ট। গতকাল মেসিও জাদুকরী রাতই কাটিয়েছেন। তবে এরপরও রোনালদোর পারফরম্যান্সের কাছে মেসির পারফরম্যান্স কিছুটা ম্লানই। সেটি অবশ্য দুটি কারণে। প্রথমত, জুভেন্টাস অ্যাতলেতিকোর মাঠে গিয়ে প্রথম লেগে ২-০ গোলে হেরেছিল। ফলে মঙ্গলবার ফিরতি লেগে জুভেন্টাসের সামনে সমীকরণটাই ছিল এমন, কোয়ার্টার ফাইনালে উঠতে হলে জিততে হবে অন্তত ৩-০ গোলে।

অবিশ্বাস্য দক্ষতায় কঠিন প্রতিপক্ষ অ্যাতলেতিকোর বিপক্ষে এই কঠিন সমীকরণটাই মিলিয়ে দিয়েছেন রোনালদো। প্রয়োজনীয় ৩টি গোলই করেছেন তিনি একা। একাই খাদের কিনারা থেকে জুভেন্টাসকে নিয়ে গেছেন শেষ আটে।

বিপরীতে বার্সেলোনা লিঁওর মাঠ তেকে প্রথম লেগে গোলশূন্য ড্র করে ফিরে ছিল। ফলে শেষ আট প্রশ্নে বার্সাই ছিল সুবিধাজনক অবস্থানে। কারণ, কাল দ্বিতীয় লেগটা ছিল তাদের ঘরের মাঠ ন্যু-ক্যাম্পে। আর ন্যু-ক্যাম্পে বার্সার জয়টাও ৫-১ গোলে। মানে মেসি ছাড়াও গোল করেছেন ফিলিপে কুতিনহো, জেরার্ড পিকে ও উসমানে ডেম্বেলে।

তারপরও নিজে ২ গোল করা, সতীর্থদের দিয়ে আরও দুটি করানো-স্বপ্নময় এক রাতের কথাই বলে। তবে নিজের জয়গান বাদ দিয়ে মেসি প্রতিদ্বন্দ্বী রোনালদোর জয়গানই গাইলেন। কিন্তু যার পারফরম্যান্সে এতো মুগ্ধ মেসি, কোয়ার্টার ফাইনালেই কিন্তু সেই রোনালদোর মুখোমুখি হওয়ার সম্ভাবনা আছে তার। আগামী শুক্রবার কোয়ার্টার ফাইনালের ড্র। তাতে শেষ আটেই দেখা হয়ে যেতে পারে মেসির বার্সেলোনা ও রোনালদোর জুভেন্টাসের।

মেসি অবশ্য এটা নিয়ে ভাবছেন না। তার মতে কোয়ার্টার ফাইনালে উঠে আসা সব দলই প্রতিপক্ষ হিসেবে কঠিন, ‘সব প্রতিপক্ষেই কঠিন। কঠিন চ্যালেঞ্জের জন্যই প্রস্তুতি নিতে হবে আমাদের।’

কেআর/আরপি