মানে-ম্যাজিকে শেষ আটে লিভারপুল

ঢাকা, শনিবার, ২৩ মার্চ ২০১৯ | ৯ চৈত্র ১৪২৫

মানে-ম্যাজিকে শেষ আটে লিভারপুল

পরিবর্তন ডেস্ক ৯:২৪ পূর্বাহ্ণ, মার্চ ১৪, ২০১৯

মানে-ম্যাজিকে শেষ আটে লিভারপুল

লিভারপুলের মাঠে প্রথম লেগটি গোলশূন্য ড্র ছিল। শেষ আট প্রশ্নে তাই বায়ার্ন মিউনিখই সুবিধাজনক অবস্থানে ছিল। কারণ, শেষ ষোল’র দ্বিতীয় লেগটি ছিল জার্মান ক্লাবটির ঘরের মাঠে। কিন্তু সাদিও মানে বুঝিয়ে দিলেন ‘ঘরের মাঠ পরের মাঠ’ কোনো ব্যাপার না! তার দিনে কোনো ক্লাবই বাঁধা হতে পারে না। যেমন পারল না বায়ার্ন মিউনিখ। এই সেনেগালিজের ম্যাজিকে বায়ার্নকে বায়ার্নের মাঠেই ৩-১ গোলে হারিয়েছে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কোয়ার্টার ফাইনালে উঠেছে লিভারপুল।

প্রথম ম্যাচটি গোলশূন্য ড্র হওয়ায় দুই লেগ মিলিয়ে ৩-১ অগ্রগামিতায় শেষ আটে লিভারপুল। ইংল্যান্ডের চতুর্থ দল হিসেবে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কোয়ার্টার ফাইনালে উঠল অল-রেডরা। তাদের আগেই শেষ আটের টিকিট কেটেছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড, ম্যানচেস্টার সিটি ও টটেনহাম।

চোটের কারণে গত ১৯ ফেব্রুয়ারি নিজেদের ঘরের মাঠের প্রথম লেগটিতে খেলতে পারেননি সাদিও মানে। তার দল লিভারপুলও সেদিন জয় পতাকা উড়াতে পারেনি। জয় দূরের কথা, লিভারপুল সেদিন পায়নি গোলের দেখাও। খেলতে না পারার সেই জ্বালাটা কাল এমনভাবে জুড়ালেন মানে, তার সেই জ্বালা জুড়ানোর আগুনে পুড়ে ছাই হলো বায়ার্ন।

১৯ ফেব্রুয়ারি অ্যানফিল্ডের প্রথম লেগটি গোলশূন্য ড্র থাকলেও দুই দলই আক্রমণাত্মক ফুটবল উপহার দিয়েছিল। সেদিনই আঁচ করা গিয়েছিল বায়ার্নের মাঠ অ্যালিয়াঞ্জ অ্যারেনার ফিরতি লেগে আগুনের স্ফূলিঙ্গ ঝরবে। ঝরেছেও তা। আর সেই আগুনে লড়াইয়ে আগুনের উত্তাপটা বেশি ছড়িয়েছেন সাদিও মানে। লিভারপুলকে শেষ আটে নিয়ে যেতে সেনেগালিজ ফরোয়ার্ড করেছেন জোড়া গোল।

লিভারপুলের হয়ে অন্য গোলটি করেছেন সর্বকালের সবচেয়ে দামি ডিফেন্ডার ভিরগিল ফন ডিক। বায়ার্নের নামের পাশে যে সান্ত্বনার গোলটি আছে, সেটিও কারিগরও লিভারপুলেরই একজন। দলকে বিপদ মুক্ত করতে গিয়ে বল নিজেদের জালেই ঢুকিয়ে দেন লিভারপুলের জার্মান ডিফেন্ডার জোয়েল মাতিপ। মানে আত্মঘাতী!

ম্যাচের শুরু থেকেই স্বাগতিক বায়ার্নের ওপর আধিপত্য বিস্তারের চেষ্টা করে সফরকারী লিভারপুল। মানে, ফিরমিনো, সালাহ-এই ত্রয়ী মিলে গড়ে তোলেন একের পর এক আক্রমণ। প্রতি আক্রমণে বায়ার্নও জবাব দেওয়ার চেষ্টা করেছে। কিন্তু লিভারপুলের সঙ্গে পেরে উঠেনি। এই আধিপত্য বিস্তারের ফলও পেয়ে যায় লিভারপুল। মানে জাদুতে ২৬ মিনিটে লিভারপুলই পেয়ে যায় গোল। তবে মানের এনে দেওয়া এই লিড ৩৯ মিনিটেই মুছে যায় মাতিপের আত্মঘাতী গোলে।

১-১ অবস্থাতেই এগিয়ে যাচ্ছিল ম্যাচ। অবশেষে ৬৯ মিনিটে আবারও লিড পেয়ে যায় লিভারপুল। দুর্দান্ত এক গোল করে ২-১ করে ফেলেন ডাচ ডিফেন্ডার ভিরগিল ফন ডিক। এর ১৫ মিনিট পর বায়ার্নের কফিনে শেষ পেরেকটি ঠুকে দিয়ে লিভারপুলের জয় নিশ্চিত করেন মানে।

লিভারপুল গত মৌসুমের ফাইনালিস্ট। শেষ আটে উঠে টানা দ্বিতীয় ফাইনালের আশাই বাঁচিয়ে রাখল তারা।

কাল দিনের অন্য ম্যাচে অলিম্পিক লিঁওকে ৫-১ গোলে বিধ্বস্ত করে শেষ আটে উঠেছে বার্সেলোনা। ন্যু-ক্যাম্পে বার্সেলোনার এই বড় জয়ের বড় নায়ক অধিনায়ক লিওনেল মেসি। তিনি করেছেন জোড়া গোল। একটি করে গোল করে নায়কের তালিকায় আছেন ফিলিপে কুতিনহো, জেরার্ড পিকে ও উসমানে ডেম্বেলেও।

কেআর/আরপি