অ্যাতলেতিকোর মাঠে জুভেন্টাসের হার

ঢাকা, বুধবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৯ | ২৯ কার্তিক ১৪২৬

অ্যাতলেতিকোর মাঠে জুভেন্টাসের হার

পরিবর্তন ডেস্ক ১০:৩৩ পূর্বাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২১, ২০১৯

অ্যাতলেতিকোর মাঠে জুভেন্টাসের হার

এই মাদ্রিদে কত সুখ স্মৃতি ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোর। কত শিরোপায় চুমু খেয়েছেন তিনি, পরেছেন কত জয়মাল্য। রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে বহু দলগত ও ব্যক্তিগত অর্জনের ইতিহাস এখনও লেখা উজ্জ্বল হরফে। সেইসব পেছনে ফেলে গত গ্রীষ্মে রিয়ালের সাথে ৯ বছরের সম্পর্ক ছিন্ন করে পর্তুগিজ এই তারকা পাড়ি জমিয়েছেন জুভেন্টাসে। সেই থেকে তুরিনে অধিবাসী তিনি।

মাঝেমধ্যে হয়তো মাদ্রিদে গিয়েছেন তিনি। তবে সেটা ব্যক্তিগত ও পারিবারিক কারণে। মাদ্রিদে তার বাড়ি আছে। যেখানে তার মা-বোনেরা থাকেন। বান্ধবী জর্জিনা রদ্রিগেজের পরিবারের সদস্যরাও বসবাস করেন মাদ্রিদে। আছেন অনেক বন্ধুও। কিন্তু পেশাদারিত্বের কারণে বুধবারই প্রথম মাদ্রিদে পা রেখেছিলেন ৫ বারের ব্যালন ডি’অর জয়ী এই ফুটবলার।

চ্যাম্পিয়ন্স লিগের নক আউট পর্বের প্রথম লেগে অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদের বিপক্ষে খেলতেই মাদ্রিদে পা রেখেছিলেন রোনালদো। কিন্তু সুখস্মৃতিময় শহরটি এবার বিমুখ করেছে তাকে। পরাজয়ের তিক্ত স্বাদ নিয়েই তুরিনে ফিরতে হয়েছে সাবেক এই রিয়াল তারকাকে। অ্যাতলেতিকোর বিপক্ষে ২-০ গোলে হেরেছ তার দল জুভেন্টাস।

প্রতিপক্ষের মাঠ ওয়ান্ডা ম্যাট্রোপলিতানোতে দারুণ আক্রমণাত্মক ফুটবলই খেলেছে জুভেন্টাস। বল দখলে স্বাগতিকদের চেয়ে এগিয়েই ছিল রোনালদোরা। কিন্তু সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ যেটা, সেই গোলই আদায় করতে পারেনি তারা। বিপরীতে বল দখলে পিছিয়ে থাকলেও উজ্জীবিত ফুটবলই খেলেছে। দুইটি গোলও আদায় করে নিতে পেরেছেন হোসে গিমেনেজ ও দিয়েগো গডিনরা। ফলে কোয়ার্টার-ফাইনালে ওঠার পথে এগিয়ে গেল দিয়েগো সিমেওনের দল।

প্রথমার্ধে অবশ্য গোলের সুযোগ পেয়েছিল জুভেন্টাসই। ম্যাচের নবম মিনিটে রোনালদোর নেওয়া দুর্দান্ত ফ্রি-কিকটি কোনরকমে ঠেকিয়ে দেন অ্যাতলেতিকোর গোলরক্ষক।

ম্যাচের ২৯ মিনিটে অ্যাতলেতিকোও তাদের প্রথম সুযোগটি পায়। কিন্তু গ্রিজমানের ফ্রি-কিকটি কর্নারের বিনিময়ে ঠেকিয়ে দেন জুভেন্টাসের গোলরক্ষক।

ম্যাচের ৭০ মিনিটে জুভেন্টাসের জালে বল পাঠিয়েছিলেন অ্যাতলেতিকোর ফরোয়ার্ড আলভারো মোরাতা। কিন্তু ভার প্রযুক্তির সহায়তায় সে যাত্রায় রক্ষা পায় অতিথিরা। কারণ হেড নেওয়ার আগমুহূর্তে জর্জো কিয়েল্লিনিকে ধাক্কা দিয়েছিলেন মোরাতা। ফলে বাতিল হয় গোল।

তার ৮ মিনিট পর প্রথম গোলের দেখা পায় স্বাগতিকরা। ডি-বক্সের ভেতর মোরাতার হেড ঠেকিয়ে দিলেও বিপদমুক্ত করতে পারেননি মারিও মানজুকিচ। আর আলগায় বল পেয়ে জোরালো শটে তা জালে জড়ান গিমেনেজ। আর ম্যাচের ৮৩ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন গডিন।

১২ মার্চ ফিরতি লেগে ঘরের মাঠে অ্যাতলেতিকোর মুখোমুখি হবে জুভেন্টাস। কিন্তু প্রতিপক্ষের মাঠে কোন গোল করতে না পারায় কোয়ার্টার ফাইনালে ওঠার লড়াইটা একটু কঠিনই হয়ে গেল তাদের জন্য।

পিএ

 

ফুটবল: আরও পড়ুন

আরও