ব্যালন ডি’অরে বাংলাদেশি সাংবাদিকের ভোট পেয়েছেন কে কে?

ঢাকা, বুধবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৮ | ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৫

ব্যালন ডি’অরে বাংলাদেশি সাংবাদিকের ভোট পেয়েছেন কে কে?

পরিবর্তন ডেস্ক ১:৩৯ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ০৫, ২০১৮

ব্যালন ডি’অরে বাংলাদেশি সাংবাদিকের ভোট পেয়েছেন কে কে?

ভোটপর্ব তো অনেক আগেই শেষ। গত সোমবার ঘোষিত হয়েছে ফলাফলও। লিওনেল মেসি ও ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোর রাজত্বে হানা দিয়ে ব্যালন ডি’অর জিতে নিয়েছেন রিয়াল মাদ্রিদের ক্রোয়েশিয়ান মিডফিল্ডার লুকা মড্রিচ। এখন তাই চারদিকে চলছে মড্রিচ বন্দনা। পাশাপাশি চলছে ভোট নিয়ে গবেষণাও। কোন দেশের কোন সাংবাদিক মর্যাদার এই পুরস্কারের জন্য কাকে কাকে ভোট দিয়েছেন, তা নিয়ে ফুটবলপ্রেমীদের কৌতুহল এখন তুঙ্গে।

ব্যালন ডি’অরের আয়োজক ফ্রান্সের বিশ্বখ্যাত ফুটবল সাময়িকী ‘ফ্রান্স ফুটবল’ও দর্শকদের সেই কৌতুহল মিটিয়ে দিয়েছে। পুরস্কার প্রদানের পরপরই প্রকাশ করেছে ভোটের পূর্ণাঙ্গ তালিকা। তাতে কোন দেশের কোন সংবাদিক ‘সেরা’ নির্বাচনে কাকে কাকে ভোট দিয়েছেন, সেটা স্পষ্ট হয়ে গেছে।

নিশ্চয় খুব জানতে ইচ্ছে করছে, মর্যাদার ব্যালন ডি’অরে ভোট প্রদানের সম্মানটা পেয়েছিলেন কে? ‘বিশ্বসেরা’ নির্বাচনে তিনি কাকে কাকেই বা ভোট দিয়েছেন? এ সব প্রশ্নেরই উত্তর দিয়ে দিয়েছে ফ্রান্স ফুটবল। বাংলাদেশ থেকে এবার ব্যালন ডি’অরে ভোট দেওয়ার সম্মানটা পান ঢাকা ট্রিবিউনের রায়হান মাহমুদ।

অন্য আর সবার মতো তিনিও পর্যায়ক্রমে ৫ জনকে ভোট দিয়েছেন। তবে এবারের ভোট প্রদানে রায়হান মাহমুদ এক রকম বিপ্লব ঘটিয়েছেন। গত ১০ বছর ধরে ব্যালন ডি’অরকে নিজেদের সম্পত্তি বানিয়ে ফেলেছিলেন লিওনেল মেসি ও ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো। এবারও অনেক দেশের সাংবাদিকের চোখে সেরা ছিলেন মেসি-রোনালদো। কেউ মেসিকে এক নম্বর ভোট দিয়েছেন তো, কেউ রোনালদোকে। কিন্তু বাংলাদেশের রায়হান সেরা দূরের কথা, তার ৫ ভোটের একটিও মেসি-রোনালদোর বাক্সে পড়েনি! মানে মেসি-রোনালদো এবার তার চোখে সেরা পাঁচেই ছিলেন না।

ফলাফল ঘোষণার পর তিনি অবশ্য নিজের ভোট প্রদান দক্ষতার জন্য গর্বই করতে পারেননি। কারণ তিনি এক নম্বর পছন্দের ভোটটি যাকে দিয়েছেন, সেই লুকা মড্রিচই শেষ পর্যন্ত জিতে নিয়েছেন মর্যাদার ব্যালন ডি’অর। এরপর তিনি দ্বিতীয় পছন্দের ৪ পয়েন্টের ভোটটা দিয়েছেন বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্সের আতোইন গ্রিজমানকে।

তৃতীয় পছন্দের ভোট দিয়েছেন ফ্রান্সেরই তরুণ বিস্ময় কিলিয়ান এমবাপেকে। চতুর্থ পছন্দের ভোটটি দিয়েছেন চেলসির বেলজিয়ান ফরোয়ার্ড এডেন হ্যাজার্ডকে। এবং সর্বশেষ পঞ্চম পছন্দের ভোটটি দিয়েছেন লিভারপুলের মিশরীয় ফরোয়ার্ড মোহামেদ সালাহকে।

উল্লেখ্য, এবারের ব্যালন ডি’অরে বিশ্বের মোট ১৭৬টি দেশের ১৭৬ জন সাংবাদিক ভোট দিয়েছেন। প্রত্যেকেই ভোট দিয়েছেন ৫টি করে। তবে সব ভোটের মূল এক নয়। একেক ভোটের জন্য একেক পয়েন্ট। প্রথম পছন্দের ভোটের জন্য যেমন বরাদ্দ ছিল ৬ পয়েন্ট। দ্বিতীয় পছন্দের ভোটের জন্য ৪ পয়েন্ট, তৃতীয় পছন্দের ভোটের জন্য ৩, চতুর্থ পছন্দের ভোটের জন্য ২ ও পঞ্চম পছন্দের ভোটের জন্য ১ পয়েন্ট।

বিশ্ব ফুটবলের পরাশক্তি দেশগুলোর সাংবাদিকরা কে কাকে ভোট দিয়েছেন, তা নিয়ে অন্য একটা প্রতিবেদন করা হয়েছে। প্রাপ্ত ভোটের ভিত্তিতে অর্জিত পয়েন্ট যোগ করেই সর্বোচ্চ ৭৫৩ পয়েন্ট পেয়েছেন মড্রিচ। যা মেসি-রোনালদোর রাজত্বে প্রতিষ্ঠিত করেছে মড্রিচ রাজত্ব।

কেআর