বিশ্রামে মেসির ‘১০’, মানতে পারছেন না রোমেরো

ঢাকা, সোমবার, ২৫ মার্চ ২০১৯ | ১১ চৈত্র ১৪২৫

বিশ্রামে মেসির ‘১০’, মানতে পারছেন না রোমেরো

পরিবর্তন ডেস্ক ৭:৫৬ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ০৭, ২০১৮

বিশ্রামে মেসির ‘১০’, মানতে পারছেন না রোমেরো

বিশ্বকাপ ব্যর্থতার পর বিশ্রামের নাম করে আর্জেন্টিনা জাতীয় দল থেকে ‘সাময়িক অবসর’ নিয়েছেন লিওনেল মেসি। এ বছরেই জাতীয় দলের হয়ে আর কোনো ম্যাচ খেলবেন না আর্জেন্টাইন তারকা। ‘সাময়িক অবসর’ থেকে কবে দলে ফিরবেন, সেটাও স্পষ্ট করে জানাননি। মেসির বিশ্রামের সঙ্গে তাল মিলিয়ে তার ’১০ নম্বর’ জার্সিটিকেও `বিশ্রাম’ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে আর্জেন্টাইন ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন (এএফএ)। মানে মেসির বিশ্রামের সময়টাতে তার ’১০ নম্বর’ জার্সিও থাকবে বিশ্রামে!

গুয়েতেমালা ও কলম্বিয়ার বিপক্ষে দুটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলতে মেসিবিহিন আর্জেন্টিনা এখন যুক্তরাষ্ট্রে। মেসির সঙ্গে অনুপস্থিত মেসির ’১০ নম্বর’ জার্সিও। এই দুটি ম্যাচে মেসির ’১০ নম্বর’ পরে কেউই খেলবেন না। কাউকে বরাদ্দই দেওয়া হয়েছে। কিংবদন্তি ‘১০ নম্বর’ জার্সিটি এএফএ তুলে রেখেছে মেসির জন্য।

এক সময় ১০ নম্বর পরে খেলেছেন ডিয়েগো ম্যারাডোনা। আর্জেন্টিনার ’১০ নম্বর’ জার্সিটিকে কিংবদন্তিতূল্য করেছেন তিনিই। তার বিদায়ের পর এর-ওর হাত বদলে অনেক দিন ধরেই আর্জেন্টিনার সেই ‘১০’ মেসির গায়ে। তার অনুপস্থিতিতে জার্সিটা অন্য কারো গায়েই উঠার কথা ছিল। কিন্তু মেসির সম্মানার্থেই কিনা, ১০ নম্বর জার্সিটিকে ‘বিশ্রাম’ দিয়েছে এএফএ।

কিন্তু জার্সিটিকে সাময়িক বিশ্রামের সিদ্ধান্ত নিয়ে বিতর্কই সৃষ্টি করেছে এএফএ। বিস্ময়কর হলেও সত্যি, বাইরের কেউ নয় খোদ আর্জেন্টিনা দলের মধ্য থেকেই বোর্ডের এই সিদ্ধান্তকে প্রশ্নবিদ্ধ করা হয়েছে। প্রশ্নটা তুলেছন গোলরক্ষক সার্জিও রোমেরো। যিনি বিশ্বকাপের দল থেকে ছিটকে পড়লেও আবার ফিরে এসেছেন দলে। মেসির অনুপস্থিতিতে ’১০ নম্বর’ জার্সিটিকে বিশ্রাম দেওয়ার বিষয়টি মানতেই পারছেন না তিনি।

আর্জেন্টিনার জনপ্রিয় ক্রীড়া দৈনিক টিওয়াইসি স্পোর্টসকে রোমেরো স্পষ্ট করেই বলেছেন, ‘আর্জেন্টিনা জাতীয় দলে ১০ নম্বর জার্সিটি সব সময়ই ব্যবহার হয়ে আসছে। এখন কেন সেটাকে ব্যবহার করা হবে না, আমি কিছুই বুঝতে পারছি না। এই সিদ্ধান্তের বিষয়ে আমি কারো কাছে কিছু জানতে চাইনি। কারণও অনুসন্ধ্যান করিনি। কেন এটাকে ব্যবহার করা হবে না, সে বিষয়ে আমার কোনো ধারণাও নেই। কিন্তু কেন এই সিদ্ধান্ত সেটাই বুঝতে পারছি না। আমি বিস্মিত, বিমূঢ়।’

রোমেরোর এই বুঝতে না পারাটা সত্যি নয়। তিনি ভালো করেই বুঝতে পারছেন, মেসি নেই বলেই জার্সিটা কাউকে দেওয়া হচ্ছে না। তারপরও কেন তিনি প্রশ্নটা তুলেছেন? কারণটাও স্পষ্টই। মেসির সঙ্গে রোমেরোর সম্পর্কটা মোটেই ভালো নয়। মেসির অঙুলি নির্দেশেই আর্জেন্টিনার বিশ্বকাপ দল থেকে শেষ মূহুর্তে ছিটকে পড়েন ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের এই গোলরক্ষক।

মেসি নিজের পছন্দের বন্ধুদের দলে রাখেন, অপছন্দের খেলোয়াড়দের ছিটকে ফেলেন-আর্জেন্টিনায় এই গুঞ্জন অনেক পুরোনো। বিশ্বকাপে মেসির সেই ‘অন্যায় নীতি’রই বলী হয়েছিলেন রোমেরো। অনেক দিন ধরেই আর্জেন্টিনার এক নম্বর গোলরক্ষক রোমেরো। প্রথমে আর্জেন্টিনার বিশ্বকাপ দলেও ছিলেন। কিন্তু শেষ মুহূর্তে চোটের অজুহাত দেখিয়ে বাদ দেওয়া হয় তাকে। আসলে চোটের অজুহাতটি ছিল মিথ্যা। মেসির নির্দেশেই বাদ দেওয়া হয়েছিল তাকে।

বিশ্বকাপ স্বপ্নভঙ হয়েছে যার কারণে, সুযোগ পেলে তাকে তোপ তো দাগাবেনই। রোমেরো হয়তো সেই ক্ষোভই মেটালেন প্রশ্নটা তুলে। যদিও প্রশ্ন তোলার পেছনে যুক্তিও তুলে ধরেছেন রোমেরো, ‘প্রীতি ম্যাচে সব সময়ই এটা ব্যবহার করা হয়। কারো অনুপস্থিতিতে অন্য কেউ এটা পরে। কিন্তু এবার সম্ভবত মৌসুমের কিছুটা সময় এটা ব্যবহার হবে না।’

রোমেরো অবশ্য এটাও বলেছেন, ‘যদি লিও দলে ফিরে আসে, এটা খুবই স্বাভাবিক যে ১০ নম্বর জার্সি এবং অধিনায়কত্বের আর্মব্র্যান্ডর মালিক সেই হবে। এ বিষয়ে দলের ভেতরে বা বাইরে, কারোরই সংশয় নেই। কিন্তু যে জার্সিটা সব প্রীতি ম্যাচেই ব্যবহার হয়ে আসছে, লিও না থাকলে সেটা অন্য কেউ পরবে, এটাই স্বাভাবিক। আমরা সবাই জানিয়ে যে সে যদি থাকত, এটা তারই হতো। সেক্ষেত্রে কোনো সমস্যাই হতো না।’

দলের একজন হয়ে বোর্ডের সিদ্ধান্ত নিয়ে সরাসরি প্রশ্ন তোলা। সেটাও মেসি নামের মহীরুহর সম্পত্তি হয়ে যাওয়া ১০ নম্বর জার্সি নিয়ে। রোমেরোর সাহস আছে বলতে হবে।

কেআর