টাকার গরম দেখানো শুরু করল পিএসজি!

ঢাকা, শনিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮ | ৬ আশ্বিন ১৪২৫

টাকার গরম দেখানো শুরু করল পিএসজি!

পরিবর্তন ডেস্ক ৮:৪৫ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১৪, ২০১৮

টাকার গরম দেখানো শুরু করল পিএসজি!

তবে কি শেষের চমক দেখানোর জন্যই অপেক্ষায় ছিল পিএসজি? অবস্থাদৃষ্টে তো মনে হচ্ছে সেটাই। ইউরোপিয়ান দলবদল মৌসুমের দেড় মাস পেরিয়ে গেছে। কিন্তু পিএসজির উপস্থিতি টেরই পাওয়া যায়নি। প্রথম দেড় মাসে ফরাসি ক্লাবটি মাত্র একজনকে কিনেছে আর একজনকে বিক্রি করেছে! একমাত্র যে খেলোয়াড়টি কিনেছে, সেটাও নামকাওয়াস্তে দামে। আক্ষেপের কিছু নেই। নিরবতা ভেঙে অবশেষে নিজেদের উপস্থিতি জানান দিতে শুরু করল পিএসজি। আর আনুষ্ঠানিকভাবে দলবদলের বাজারে ঢুকেই পিএসজি দিল ১১২ মিলিয়ন ইউরোর চমক!

না, হুট করেই কাউকে কিনে ফেলেনি ফরাসি চ্যাম্পিয়নরা। ক্রিস্তিয়ান এরিকসেনকে কেনার প্রাথমিক প্রস্তুতি সেরে ফেলেছে মাত্র। তাতেই আলোচনা তুঙ্গে। পরিবেশ গরম করে তুলেছে আসলে টাকার অঙ্কটা। গণমাধ্যমের খবর, টটেনহামের এই ডেনিস মিডফিল্ডারকে কেনার জন্য ১১২ মিলিয়ন ইউরোর প্রস্তাব তৈরি করেছে পিএসজি!

২৬ বছর বয়সী এই মিডফিল্ডারের প্রতিভা নিয়ে প্রশ্ন নেই কারো। গত কয়েক মৌসুম ধরেই দুর্দান্ত ফর্মে রয়েছেন। দেশ ডেনমার্কের হয়ে এবারের বিশ্বকাপেও আলো ছড়িয়েছেন এরিকসেন। তাই বলে তার দাম ১১২ মিলিয়ন ইউরো। নিন্দুকেরা বাকা চোখেই দেখছেন বিষয়টিকে। তারা এরই মধ্যে বলাবলি করতে শুরু করেছেন, পিএসজি আসলে টাকার গরম দেখাতে যাচ্ছে।

তা টাকার গরম দেখানোটা পিএসজির জন্য নতুন কিছু নয়। ২০১১ সালে ফরাসি ক্লাবটির মালিকানা কিনে নিয়েছে কাতারি স্পোর্টস ইনভেস্টমেন্ট কোম্পানি। এর পর থেকেই দলবদলের বাজারে ‘টাকার গরম’ দেখিয়ে আসছে পিএসজি। কাউকে পছন্দ হলেই হলো, যেকোনো মূল্যেই তাকে দলে ভিড়িয়েছে। তবে পিএসজি টাকার গরমটা সবচেয়ে বেশি দেখিয়েছে গত মৌসুমে। ফুটবল দুনিয়ার ধারণাও বাইরে গিয়ে প্রথমে ২২২ মিলিয়ন ইউরো দিয়ে কিনে নেয় নেইমারকে। এরপর ১৮০ মিলিয়ন ইউরো দিয়ে কিলিয়ান এমবাপেকেও কিনে ফেলে।

সেই পিএসজির কাছে ১১২ মিলিয়ন ইউরো এমন কি! কিন্তু ফূটবলপ্রেমীদের চোখ বিস্ময়ে কপালে উঠছে খেলোয়াড়টির নাম শুনে। প্রতিভা-সামর্থ থাকলেও এরিকসেনের গায়ে এখনো বিশ্ব তারকার তকমা লাগেনি। আলোচনা হচ্ছে এরিকসেনের গায়ে সেই তকমাটা লাগিয়ে দিতে যাচ্ছে পিএসজি। এমনটাও বলা হচ্ছে, পিএসজির প্রস্তাব পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই ‘হ্যাঁ’ বলে ফেলবে টটেনহাম!

দলবদলের মৌসুম শেষ হয়ে আসছে। অহেতুক দেন-দরবার করে সময় নষ্ট করার সুযোগ তেমন নেই। তাই হয়তো পিএসজি প্রথম দফাতেই বিশাল অঙ্কের প্রস্তাব করার পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে, তাতে চেষ্টাটা বিফলে না যায়। শেষ পর্যন্ত এরিকসেনকে কিনতে পারুক না পারুক, কাতারি পেট্রো-ডলারের ঝনঝনানিতে দলবদলের পানসে বাজারটাকে হুট করেই গরম করে তুলল পিএসজি।