গরম থেকে বাঁচতে ঘন ঘন ওয়েট টিস্যু? অজান্তেই ডেকে আনছেন মরণ রোগ!

ঢাকা, রবিবার, ৮ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

গরম থেকে বাঁচতে ঘন ঘন ওয়েট টিস্যু? অজান্তেই ডেকে আনছেন মরণ রোগ!

পরিবর্তন ডেস্ক ৯:০৮ পূর্বাহ্ণ, মে ২৭, ২০১৯

গরম থেকে বাঁচতে ঘন ঘন ওয়েট টিস্যু? অজান্তেই ডেকে আনছেন মরণ রোগ!

লাইফস্টাইল tissue

তীব্র গরমে ঘেমেনেয়ে একাকার।ট্রেনে-বাসে ঘামে ভেজা জামাকাপড় পরেই যাতায়াত। অস্বস্তি এড়াতে অনেকেই ব্যাগে রাখেন ওয়েট ওয়াইপস। সোজা কথায় ওয়েট টিস্যু। পাশের যাত্রীর উৎকট ঘামের গন্ধ থেকে বাঁচতে হোক, বা ধুলো-ধোঁয়ায় জেরবার নিজের মুখ পরিচ্ছন্ন রাখতে, একটু ঠান্ডার পরশ পেতে এমন সুগন্ধি টিস্যুতেই ভরসা রাখি আমরা।

ওয়েট টিস্যুর বেশি ব্যবহার ডেকে আনছে বিপদ !

তীব্র গরমে ঘেমেনেয়ে একাকার।ট্রেনে-বাসে ঘামে ভেজা জামাকাপড় পরেই যাতায়াত। অস্বস্তি এড়াতে অনেকেই ব্যাগে রাখেন ওয়েট ওয়াইপস। সোজা কথায় ওয়েট টিস্যু বা ভেজা টিস্যু। পাশের যাত্রীর উৎকট ঘামের গন্ধ থেকে বাঁচতে হোক, বা ধুলো-ধোঁয়ায় জেরবার নিজের মুখ পরিচ্ছন্ন রাখতে, একটু ঠাণ্ডার পরশ পেতে এমন সুগন্ধি টিস্যুতেই।

কিন্তু যদি হঠাৎই জানতে পারেন, এই ওয়েট টিস্যু তলে তলে ক্ষতি করছে আপনার! জি হ্যাঁ, দুনিয়া জুড়ে চিকিৎসকরা কিন্তুএই ওয়েট টিস্যুর নাম শুনলেই আঁতকে উঠছেন। ওয়েট টিস্যুকে রীতিমতো ঘাতক বলে চিহ্নিত করছেন গবেষকরা। কিন্তু কেন?

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ‘নর্থ ওয়েস্টার্ন ইউনিভার্সিটি’-র গবেষক জন কুক মিলসের গবেষণায় উঠে এসেছে এমনই কিছু তথ্য। তার মতে,ওয়েট ওয়াইপ্‌স ব্যবহার করলে শিশুদের অ্যালার্জির সমস্যা কয়েকগুণ বেড়ে যায়। এর মূল কারণ হচ্ছে এই বস্তুটির মধ্যে থাকা সোডিয়াম লরিল সালফেট। এটি শিশুর ও বয়স্কদের স্পর্শকাতর ত্বকের জন্যে খুবই ক্ষতিকর।

শুধু শিশু বা বয়স্কতেই নিস্তার নেই। ওয়েট ওয়াইপের মধ্যে থাকা আর এক রাসায়নিক মিথাইল ক্লোরিসেথিয়া জোলাইন বড়দের ত্বকের জন্যও ক্ষতিকর।

এখানেই শেষ নয়, আরও একটি ভয়াবহ বিষয়ে সতর্ক করছেন পরিবেশবিদরা। আমরা অনেকেই জানিনা ওয়েট ওয়াইপসের প্রধান উপাদান হলো প্লাস্টিক। অর্থাৎ ওয়েট টিস্যু কখনও নষ্ট হবে না বরং তার উপস্থিতি পানিতে মিশে জলজ প্রাণীদের প্রভূত ক্ষতি করবে। ত্বকে প্লাস্টিকের প্রভাব যে কত ক্ষতিকর, তা নিয়েও সাবধান করছেন তাবড় বিজ্ঞানীরা।

গবেষকরা সাবধান করছেন, ঘন ঘন ওয়েট ওয়াইপ্‌স ব্যবহার করলে এর প্লাস্টিক ও রাসায়নিক ধীরে ধীরে শরীরের নানা কোষে জমতে থাকে। ফলবশত ক্যানসার, বন্ধ্যাত্বর মতো মারণ রোগও ডেকে আনতে পারে এই বস্তুটি। কাজেই অভ্যাসে বদল না আনলে অনেক বড় ক্ষতির খতিয়ান দিতে হবে আপনাকেই।

প্লাস্টিক ব্যবহার করা হয়, এমন সব প্রসাধনী থেকেই দূরে থাকতে হবে। ওয়েট ওয়াইপ্‌সের ভিজা ভাব ধরে রাখতে তাতে যে সব রাসায়নিক ব্যবহার করা হয়, তাও অত্যন্ত ক্ষতিকর ত্বকের পক্ষে।

এছাড়াও ওয়েট ওয়াইপ্‌স ব্যবহারের পর অনেকে প্রায়শই কোমডে ফেলে ফ্লাশ করেন। নিকাশি ব্যবস্থা ঠিক রাখতে হলে অবিলম্বে এই অভ্যাস ত্যাগ করা উচিত। ওয়েট টিস্যুর প্লাস্টিক ও কাগজের মণ্ড নিকাশি ব্যবস্থাকে বিপদে ফেলে।

তা হলে উপায়?

গরমে ঘামে ভিজে থাকাই সমাধান? চিকিৎসকদের মতে, সাধারণ রুমাল পানিতে ভিজিয়ে বার বার মুখ মুছুন। এতে গরমের কষ্ট থেকে মুক্ত থাকবেন। আর মেক আপ তোলার ক্ষেত্রেও পেট্রোলিয়াম জেলি ও ভেজা রুমাল ব্যবহার করুন।

আর মুখ পরিষ্কারের ক্ষেত্রে?

গবেষকরা বরং বলছেন মুখ ধোয়ার পুরনো পদ্ধতিই সেরা। স্রেফ সাবান-পানি ব্যবহার করা বা ত্বকবিশেষজ্ঞদের পরামর্শ নিয়ে কোনো ফেস ওয়াশ ব্যবহার করা অনেক বেশি নির্ভরযোগ্য ও নিরাপদ। 

ইসি/

 

ফিটনেস: আরও পড়ুন

আরও