যাকাতের নিসাব কি ও হিসাব কীভাবে করতে হয়?

ঢাকা, রবিবার, ৮ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

যাকাতের নিসাব কি ও হিসাব কীভাবে করতে হয়?

পরিবর্তন ডেস্ক ৪:৩৬ অপরাহ্ণ, মে ২৪, ২০১৯

যাকাতের নিসাব কি ও হিসাব কীভাবে করতে হয়?

অনেকেই জানতে চান, যাকাতের নিসাব কি? নিসাব হচ্ছে অর্থ বা সম্পদের একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ, যে পরিমাণটির উপর মালিকানার এক বছর পূর্ণ হলে ব্যক্তির উপর উক্ত অর্থ বা সম্পদের শতকরা আড়াই ভাগ যাকাত হিসেবে আদায় করা আবশ্যক হয়ে পড়ে।

নিসাবের পরিমাণ হচ্ছে, সোনা ৭.৫ তোলা=৯৫.৭৪৮ গ্রাম (প্রায়) বা রুপা ৫২.৫ তোলা=৬৭০.২৪ গ্রাম (প্রায়) বা তার সমপরিমাণ মূল্য। –আহসানুল ফাতাওয়া : ৪/৩৯৪; আল ফিকহুল ইসলামী : ২/৬৬৯

দেশি-বিদেশি মুদ্রা ও ব্যাবসায়িক পণ্যের নিসাব নির্ধারণে সোনা-রুপা হলো পরিমাপক। এ ক্ষেত্রে ফকির-মিসকিনদের জন্য যেটি বেশি লাভজনক হবে, সেটিকে পরিমাপক হিসেবে গ্রহণ করাই শরীয়তের নির্দেশ। তাই মুদ্রা ও পণ্যের ক্ষেত্রে বর্তমানে রুপার নিসাবই পরিমাপক হিসেবে গণ্য হবে।

যার কাছে সাড়ে ৫২ তোলা সমমূল্যের দেশি-বিদেশি মুদ্রা বা ব্যাবসায়িক পণ্য মজুদ থাকবে এবং এর উপর তার মালিকানার এক বছর পূর্ণ হবে, তার ওপর যাকাত ওয়াজিব হবে। যে সম্পদের ওপর যাকাত ওয়াজিব, তার ৪০ ভাগের এক ভাগ (২.৫০ শতাংশ) যাকাত হিসেবে আদায় করা ফরয।

সম্পদের মূল্য নির্ধারণ করে শতকরা আড়াই টাকা বা হাজারে ২৫ টাকা হারে নগদ অর্থ কিংবা ওই পরিমাণ টাকার কাপড়চোপড় বা অন্য কোনো প্রয়োজনীয় সামগ্রী কিনে দিলেও যাকাত আদায় হবে। তবে নগদ অর্থ প্রদান করা যাকাতের উদ্দেশ্যের সঙ্গে অধিক সামঞ্জস্যশীল। –আবু দাউদ, হাদীস : ১৫৭২; সুনানে তিরমিজী, হাদীস : ৬২৩

এমএফ/

আরও পড়ুন...
যাদের উপর যাকাত ফরয
যাকাতের বছর পূর্ণ হলেও রমযানে আদায়ের জন্য বিলম্ব করা জায়েয কী?

যাকাত যেন সম্পদের চারাগাছ
যাদের ওপর যাকাত ফরজ
ইসলামে যাকাতের গুরুত্ব
কুরআন ও হাদিসের আলোকে যাকাতের বিধান
যাকাত আদায়ে কৃপণতাকারীদের যে শাস্তি হবে
যাকাতের নিসাবের বিবরণ
প্রতিমাসের বেতনের যাকাত কিভাবে আদায় করবেন?
যাকাত আদায়ে সম্পদ কীভাবে পবিত্র হয়?
যাকাতের হিসাব ও আদায়ের পদ্ধতি
স্বর্ণ ও টাকা থাকলে যেভাবে যাকাত বের করবেন
সোনা-রূপার যাকাত আদায়ে ক্রয়মূল্য ধর্তব্য, নাকি বিক্রয়মূল্য?

 

ফতোয়া/মাসায়েল: আরও পড়ুন

আরও