অফিসের কাজে অবহেলা করাও কি গুনাহ?

ঢাকা, ১০ জুন, ২০১৯ | 2 0 1

অফিসের কাজে অবহেলা করাও কি গুনাহ?

মুহাম্মাদ ফয়জুল্লাহ ২:৩১ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১৫, ২০১৮

অফিসের কাজে অবহেলা করাও কি গুনাহ?

ইসলামে কাজ ও কর্মকে সুচারুরূপে সম্পন্ন করার জন্য জোর তাগিদ দেওয়া হয়েছে। আন্তরিকতার পাশাপাশি দক্ষতা ও যোগ্যতার পরিপূর্ণ প্রয়োগ ও বিকাশের মাধ্যমে পেশাগত মান নিশ্চিত করার প্রতি গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। যা ইচ্ছে তাই বা গা ছাড়া গোছের অথবা দায়িত্বে অবহেলার সুযোগ ইসলামে নেই। প্রতিটি ব্যক্তি তার কর্ম, পেশা ও দায়িত্বের ব্যাপারে আল্লাহর কাছে জিজ্ঞাসিত হবেন।

রাসূলুল্লাহ (সা.) বলেছেন- كلكم راع وكلكم مسؤول عن رعيته “তোমরা প্রত্যেকেই দায়িত্বশীল আর প্রত্যেককেই (কেয়ামতের ময়দানে) তার দায়িত্বশীলতার বিষয়ে জিজ্ঞাসা করা হবে।” (বুখারি: ৮৪৪)

আপনি যখন কোন প্রতিষ্ঠানে একটি নির্দিষ্ট মাসিক প্রদেয়-এর বিনিময়ে চাকুরিতে চুক্তিবদ্ধ হচ্ছেন, আপনি চুক্তির শর্ত অনুযায়ী সে প্রতিষ্ঠানের নির্দিষ্ট কর্ম ঘণ্টায় আপনার মেধা ও শ্রম দিতে ওয়াদাবদ্ধ হয়েছেন। বরং আরও সঠিক তো হল উক্ত প্রদেয় এর বিনিময়ে নির্দিষ্ট কর্মঘণ্টায় আপনি আপনার মেধা ও শ্রম বিক্রি করেছেন।

একজন চাকুরিজীবী তার উপর অর্পিত দায়িত্ব যথাযথভাবে সম্পাদন করা তার জন্য পবিত্র আমানত। ইসলামে চুক্তি রক্ষা, বিশ্বস্ততা ও আমানতদারিতাকে সর্বোচ্চ গুরুত্বারোপ করা হয়েছে।

হাদিস শরীফে এসেছে, রাসূলুল্লাহ (সা.) বলেছেন- لاايمان لمن لاامانة له ولادين لمن لا عهد له- “যার মাঝে আমানতদারিতা নেই, তার ঈমানও নেই। আর যে ওয়াদা পালন করে না তার মাঝে দ্বীন নেই।” (বুখারি)

কুরআনুল কারিমে ইরশাদ হয়েছে- يَٰٓأَيُّهَا ٱلَّذِينَ ءَامَنُوٓاْ أَوۡفُواْ بِٱلۡعُقُودِۚ “হে ঈমানদারগণ, তোমরা তোমাদের চুক্তিসমূহ পূর্ণ কর”। {সূরা আল-মায়িদাহ: ১}

আল্লাহ তাআলা আরও ইরশাদ করছেন-
ان الله يأمرُكم ان تُوَدُّوا الْاَمَنَتِ الى اهلها অর্থ: নিশ্চয় আল্লাহ্ তোমাদের আদেশ দিচ্ছেন যে, তোমরা যেন আমানত তার মালিকের কাছে প্রত্যার্পণ করো। (সূরা: নিসা-৫৮)

অতএব, আপনি আপনার ওয়াদা রক্ষা করা ও আমানতকে তার মালিকের কাছে বুঝিয়ে দেওয়ার বিষয়ে আল্লাহ কর্তৃক আদিষ্ট। এ আদেশ পালন করা আপনার উপর ফরয দায়িত্ব। আপনি যদি এক্ষেত্রে অবহেলা করেন, এর জন্য আপনি কেয়ামতের ময়দানে আল্লাহর কাছে জিজ্ঞাসিত হবেন। এ দায়িত্ব যথাযথরূপে পালন আপনার কাছে অফিস কর্তৃপক্ষের প্রাপ্য অধিকার। সাধ্যের মধ্যে এর হেরফের হলে পরকালে আপনি এর জন্য অপরাধী হিসেবে ধৃত হবেন।

এমএফ/

আরও পড়ুন...
চরিত্রে যে উত্তম, ঈমান তার অধিক পরিপূর্ণ
যে নামায পড়ে, যে পড়ে না
তায়েফে রক্তাক্ত প্রিয় নবী : ঘটনা ও শিক্ষা

 

ফতোয়া/মাসায়েল: আরও পড়ুন

আরও