ডাবল চিন দূর করুন মেকআপ দিয়ে

ঢাকা, ৪ আগস্ট, ২০১৯ | 2 0 1

ডাবল চিন দূর করুন মেকআপ দিয়ে

পরিবর্তন ডেস্ক ১১:২৯ পূর্বাহ্ণ, জুন ১২, ২০১৯

ডাবল চিন দূর করুন মেকআপ দিয়ে

মেকআপকে অনেকে বলেন মুখের ফোটোশপ। কথাটা ভুল নয়। মেকআপের মাধ্যমে মুখের এমন ভোল বদলে ফেলা যায় যে, দেখে মনে হবে ম্যাজিক! ছোট ছোট চোখকে দিঘির মতো গভীর করে তোলা, চওড়া চোয়ালকে সরু করে দেওয়া, বোঁচা নাককে মোহনবাঁশির মতো করা— সব সম্ভব মেকআপে। তবে ইদানীং স্বাস্থ্য সচেতন মেয়েরা প্রধানত খোঁজ করেন, সহজে কীভাবে মেদ ঢাকবেন। মেকআপের সাহায্যে মুখের মেদ লুকনোও কিন্তু সহজ। কী করে? জেনে নিন।

ভালো বেস ব্যবহার করুন

প্রথমেই মুখের সব দাগ-ছোপ দূর করতে মেকআপের বেসটা ভালোভাবে করুন। নিজের কমপ্লেকশনের সঙ্গে মানিয়ে ফাউন্ডেশন কিনবেন। ফাউন্ডেশন ব্যবহার করার আগে প্রাইমার লাগাবেন। তা হলে টোন সমান হবে এবং ঔজ্জ্বল্য আসবে মুখে। ফাউন্ডেশন-প্রাইমার দুটোই চোখের নীচে লাগিয়ে ভাল করে মিশিয়ে নিন। আইব্যাগ থাকলে সেটা চট করে বোঝা যাবে না। সেখান থেকে ধীরে ধীরে গালের দু’পাশ এবং চোয়ালে মাসাজ করে নেবেন। কপালে আলাদাভাবে লাগাবেন। বিউটি ব্লেন্ডার (ফাউন্ডেশন স্পঞ্জ) ব্যবহার করলে সুবিধে হবে।

চোখের ফোলা ভাব হটান

মেকআপের আগেই আইব্যাগ দূর করতে ঠাণ্ডা দুধে তুলো ভিজিয়ে চোখের উপরে ২০ মিনিট রাখুন। ঠাণ্ডা শসা বা বরফও ঘষতে পারেন। উপকার পাবেন। তার পরে বেস করে নিন। তবে কনসিলারের কথা ভুললে চলবে না। দু’চোখের নীচের গোটা অংশ, নাকের উপরে, কপালের মাঝখানে, থুতনির উপরে কনসিলারের দাগ টেনে নিন। অর্থাৎ যে সব জায়গায় আলো পড়লে হাইলাইট তৈরি হবে। স্কিন টোনারের মধ্যে বিউটি ব্লেন্ডার অল্প ভিজিয়ে ভাল করে মিশিয়ে নিন। ডার্ক সার্কল এবং আইব্যাগের সবটাই ঢাকা পড়বে কনসিলারে।

কনটুরিংয়ে গালের মেদ সরান

মুখের মেদ ঢাকতে কনটুরিংয়ের জুড়ি নেই। ছবিতে যে ভাবে দেখানো আছে, সে রকম ভাবে কনটুর লাইন টানুন মুখে। সাধারণত স্কিন টোনের চেয়ে দু’শেড ডার্ক কনটুর ব্যবহার করা হয়। কানের পাশ থেকে শুরু করে গালের মাঝ বরাবর, নাকের উপরে দু’পাশে, হেয়ারলাইন বরাবর লাইন টানুন। তার পরে কনটুর ব্রাশ দিয়ে উপরের দিকে টেনে মিশিয়ে দিন। এতে গাল ভাঙা দেখাবে, নাক সরু মনে হবে এবং কপালটাও মনে হবে যেন ছোট।

ডাবল চিন দূর করুন

মুখের নীচের দিকে জ’লাইন বরাবর কনটুর লাইন টেনে ব্রাশ দিয়ে গলার উপরের অংশ পর্যন্ত নামিয়ে ভাল করে মিশিয়ে ফেলুন। এতে ডাবল চিন ঢাকবে। মুখ যদি খুব ভরাট এবং গোলাকার হয়, তা হলে এতে ভাল উপকার পাবেন। কনটুর হয়ে গেলে গালের উপরের দিকে হালকা রঙের ব্লাশ লাগিয়ে বাইরের দিকে সার্কুলার স্ট্রোকে মিশিয়ে নিন। গালের কনটুরের ঠিক উপরে ব্লাশ লাগাবেন। শেষে হাইলাইটার নিয়ে নাকের উপরে আর ভুরুর মাঝখানে হালকা হাতে ব্রাশ করে নিন।

চওড়া ভুরুর ভাঁজে

এমনিতেই এখন চওড়া ভ্রুয়ের ট্রেন্ড সকলে অনুসরণ করছেন। তবে এর একটা বাড়তি সুবিধেও আছে। চওড়া ভ্রু কপালের আকৃতিকে ছোট করে দেয়। সঙ্গে একটা আর্চ রেখে যদি ভ্রু আঁকেন, তা হলে মুখটা লম্বাটে দেখায় এবং স্বাভাবিক ভাবেই সরু লাগে। একটা আইব্রো কিট রাখুন, এ সব ক্ষেত্রে কাজে লাগবে। একদম শেষে চোখটা এঁকে নিন। রেড কার্পেটে দেখবেন, গোলাকার মুখের অভিনেত্রীরা সব সময়ে চোখটা আঁকেন ড্রামাটিক ভাবে। উইঙ্গড আইলাইনার করে, মাসকারা লাগান। চাইলে ফলস ল্যাশেজ়ও লাগাতে পারেন। অল্প স্মোকি আইজ়ও করতে পারেন। এতে চোখ বড় দেখাবে এবং অপটিক্যাল ইলিউশনে মুখও ছোট মনে হবে। একদম শেষে পছন্দসই লিপকালার লাগিয়ে মেকআপ শেষ করুন।

খেয়াল রাখবেন, শুধু মুখের মেকআপেই কাজ ফুরোবে না। চুল যদি স্ট্রেট করেন, তা হলে মাথাটা ছোট মনে হবে। সে ক্ষেত্রে কিন্তু গোলাকার মুখ আরও ভরাট দেখাবে। তার চেয়ে লুজ় ওয়েভস রাখুন চুলে। অল্প ব্লো ড্রাই করে নেবেন। আর গাঢ় রঙের পোশাক পরলে কিন্তু শরীরের মেদও ঢাকা পরে। সুতরাং সে দিকটাও মাথায় রাখা প্রয়োজন।

ইসি/

 

ফ্যাশন: আরও পড়ুন

আরও