ভুল ফ্যাশনের কারণেও আপনাকে বয়স্ক দেখায়!

ঢাকা, শুক্রবার, ২০ জুলাই ২০১৮ | ৫ শ্রাবণ ১৪২৫

ভুল ফ্যাশনের কারণেও আপনাকে বয়স্ক দেখায়!

পরিবর্তন ডেস্ক ৫:৩৮ অপরাহ্ণ, জুলাই ০৬, ২০১৮

print
ভুল ফ্যাশনের কারণেও আপনাকে বয়স্ক দেখায়!

চেহারায় বলিরেখা নেই, নেই বয়সের ছাপ; কিন্তু তারপরও আপনাকে কেমন একটু বয়স্ক দেখায়? রূপচর্চা বা অন্য সবকিছু করেও কাজ হচ্ছে না। এমনটা কেনো হচ্ছে চিন্তা করে দেখেছেন কখনো? কিন্তু একটু মোটা বা শুকনো বলেই যে আপনার বয়স কমবেশি দেখাবে তা কিন্তু না। অনেক সময় আপনার পোশাকের ভুল নির্বাচনের কারণেও কিন্তু আপনাকে বয়সের তুলনায় একটু বয়স্ক লাগে। এক্ষেত্রে আপনাকে শুধু পোশাকের রঙ নয়, রঙের সাথে রেখা, ডিজাইন, লম্বা, খাটো সব কিছুই খেয়াল রাখতে হবে। তাই নিজেকে কীভাবে ক্যারি করছেন তার উপরই নির্ভর করে অন্যদের চোখে আপনার বয়স ঠিক কতো। তাই চেহারায় তারুণ্য ধরে রাখতে মেনে চলুন এই ক’টা নিয়ম, আর অন্যের চোখে হয়ে উঠুন আপনি যেটা চান।

যদি চেহারা এমনিতেই একটু ভারীর দিকে হয়, তাহলে এড়িয়ে চলুন এমন স্ট্রাইপ। তার চেয়ে ওয়ারড্রবে থাকুক প্রচুর ভার্টিকাল লাইনসের পোশাক। যা পরলে তুলনায় রোগা ও কম বয়সী দেখতে লাগে।

যাদের শরীর কিছুটা মেদবহুল তারা হালকা রঙের পোশাক এড়িয়ে চলুন। যেকোনো রঙের সব থেকে গাঢ় শেডটা বেছে নিন পোশাক নির্বাচনের ক্ষেত্রে। কালো, নেভি ব্লু, বোটল গ্রিন, কালচে মেরুন ইত্যাদি রঙগুলোতে শরীর কিছুটা স্লিম দেখায়।

যারা ওজন সমস্যায় ভুগছেন তারা নিজের সুবিধা অনুযায়ী পোশাক পছন্দ করুন৷ পোশাক নির্বাচনের ক্ষেত্রে লক্ষ্য রাখুন যেন সেটা খুব বেশি হাল্কা না হয় বা ঠাঁসাঠাঁসিভাবে পরতে না হয়। এছাড়া খুব বেশি বড় গলা বা হাতকাটা পোশাক এড়িয়ে চলার চেষ্টা করুন৷

জামাকাপড় কেনার সময় একটু ঢোলা পোশাকের দিকে চোখ চলে যায় অনেকের। আবার কেউ ভাবেন, আঁটো পোশাক হলেই বুঝি ছিপছিপে দেখতে লাগে। এর কোনোটাই ঠিক নয়। ঢিলে পোশাক যেমন চেহারাকে ভারী করে তুলে বয়সের ছাপ ফেলে, তেমনই আঁটো পোশাকে স্পষ্ট হয় শরীরের বাড়তি মেদ।

লং স্কার্টের নকশা যতই মনে ধরুক, এড়িয়ে চলুন। কিনে এনে অল্টার করিয়েও নিতে পারেন। হাঁটু ঝুলের চেয়ে বড় স্কার্ট পরলে শরীরের নীচের অংশ ভারী দেখায়। চোঙাকৃতি লং পেনসিল স্কার্টও কিন্তু তা ঢাকতে পারে না। ঘের না থাকায় কোমরের বাড়তি মেদকে বুঝিয়ে দেয় সে। তাই ঘের দেওয়া নি লেংথ স্কার্টেই হ্যাঁ বলুন।

যদি শাড়ি পরতে চান তাহলে অবশ্যই খেয়াল রাখবেন যেন শাড়ির পাড় চিকন হয়, পাড় মোটা হলে শাড়ির জমিন চাপা হয়ে যায়। এতে করে খাটো মেয়েদের আরো খাটো দেখায়।

হাল ফ্যাশনে এটাই ইন। চশমার আকৃতিই বদলে দিতে পারে আপনার ব্যক্তিত্ব ও বয়স। মুখের সঙ্গে মানানসই ফ্রেমের চশমা না পরলে বয়স বেশি দেখাবেই। সে ক্ষেত্রে পুরনো নকশা পাল্টে ট্রাই করুন গিকি গ্লাস। এর ফ্রেম মুখকে সরু দেখায়, চওড়া করে তোলে চোখের চারপাশকে। স্টাইল তো হবেই, সঙ্গে দেখাবেও কম বয়সী।

খুব ঠাণ্ডা না পড়লেও পোশাকের সঙ্গে মানানসই একটা স্কার্ফ কিনে ফেলা আমাদের অনেকের বদ অভ্যাস। স্কার্ফের নকশা আরও চটকদার করে তোলে ভাবলে, সে ধারণা সরান। বরং, স্কার্ফ জড়ানো খুব পুরনো ফ্যাশন। গলার নমনীয়তা ও লম্বাটে আকার ঢেকে তা চেহারায় ভারিক্কি ভাব আনে আর বয়স্কও দেখায়।

পোশাকের দিকে গুরুত্ব দিতে গিয়ে কি অন্তর্বাসকে‌ হেলাফেলা করছেন? এ ভুল আজই বন্ধ করুন। মেয়েদের চেহারার অনেকটাই কিন্তু নির্ভর করে ঠিক মাপের অন্তর্বাসের উপর। খুব ভারী বা চাপা মাপের কাপ এড়িয়ে চলুন। শারীরিক গঠন অনুযায়ী ঠিক মাপের ব্রা-কাপ বাছুন। যা আপনার চেহারাকে স্লিম ও সুন্দর করে তুলতে পারবে। 

পোশাক ছাড়াও মেনে চলুন কিছু টিপস

মেকআপ করার সময়ও একটু খেয়াল রাখুন৷ যাদের ওজন একটু বেশি তাদেরকে একটু চাপা মেকআপই বেশি ভালো লাগে৷ আর তার জন্য ত্বকের রঙের থেকে এক শেড গাঢ় প্যান কেক দিয়ে গালের দুপাশে লাগিয়ে নিন। এরপর ত্বকের রঙের ফেস পাউডার দিয়ে উপরে ব্লাশ করুন। তাহলে মুখের দুই পাশ ও ডাবল চিন কিছুটা কম বোঝাবে।

যাদের মুখে মেদ বেশি তারা চুল ফুলিয়ে বাঁধবেন না। চুল স্ট্রেট অর্থাৎ সোজা করে ছেড়ে রাখুন অথবা হালকা করে বেঁধে রাখুন।

যারা সানগ্লাস বা চশমা পরেন তারা বড় আকৃতি ফ্রেম পছন্দ করুন। বেশি ছোট ফ্রেম নির্বাচন করলে মুখের আকৃতি আরো বড় দেখাবে।

নেকলেস পরার ক্ষেত্রে গলার সঙ্গে এঁটে থাকা নেকলেস পরবেন না। একটু ঝোলানো ধরনের মালা বা নেকলেস বেছে নিন নিজের জন্য।

যাদের শরীর মেদবহুল তারা খুব বেশি চিকন হিল পরবেন না। খুব বেশি চিকন হিল পরলে দেখতে বেমানান হতে পারে এবং স্বাস্থ্যেরও ক্ষতি হতে পারে।

ইসি/এএল/  

 
.



আলোচিত সংবাদ