পছন্দ না হলে চুলের কালার দূর করুন ঘরে বসেই

ঢাকা, রবিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮ | ৮ আশ্বিন ১৪২৫

পছন্দ না হলে চুলের কালার দূর করুন ঘরে বসেই

পরিবর্তন ডেস্ক ৫:৫১ অপরাহ্ণ, মার্চ ১৩, ২০১৮

পছন্দ না হলে চুলের কালার দূর করুন ঘরে বসেই

বিজ্ঞাপন, ক্যাটালগ বা অন্যকে দেখে নিজের চুলে কালার করানোর পর তা পছন্দ নাও হতে পারে। আর এটা মাঝে মাঝে হয়েই থাকে। কিন্তু অনেক সময় পছন্দ না হলেও সেই কালার রেখে দিতে হয় নয়তো আবার টাকা খরচ করে চুলের কালার চেঞ্জ করতে হয়। তবে আপনার জন্য আমাদের কাছে আছে একটি খুশির খবর। দ্বিতীয় বার কালার না করেই আপনি আপনার চুলের কালার দূর করতে পারবেন। তাও আবার বেকিং সোডা ব্যবহার করে।

অবিশ্বাস্য মনে হলেও কথাটি সত্যি। বেকিং সোডা ব্যবহার করে মুছে ফেলতে পারেন চুলের কালার। আসুন জেনে নিই, কিভাবে বেকিং সোডা ব্যবহার করে চুলের কালার মুছে ফেলতে পারবেন।

উপকরণ:

অ্যান্টি ড্যান্ড্রাফ শ্যাম্পু
বেকিং সোডা
কন্ডিশনার

পদ্ধতি:

প্রথমে অ্যান্টি ড্যান্ড্রফ শ্যাম্পু দিয়ে চুল ভালো করে ধুয়ে ফেলুন। যে শ্যাম্পুতে পিএইচ লেভেল বেশি থাকে সেই ধরণের শ্যাম্পু ব্যবহার করবেন। এগুলো চুলের রং দূর করতে সাহায্য করে।

একটি বাটিতে সমপরিমাণে বেকিং সোডা এবং শ্যাম্পু ভালো করে মিশিয়ে পেষ্ট তৈরি করে নিন।

পেষ্টটি খুব ভালোভাবে চুলে লাগান। চুলের গোড়া থেকে আগা পর্যন্ত এমনভাবে লাগান যাতে কোনো চুল বাদ না পড়ে।

শ্যাম্পু এবং বেকিং সোডার পেষ্টটি ৫-১০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। এরপর আবার অ্যান্টি ড্যান্ড্রফ শ্যাম্পু দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন। এরপর চুলে ভালো কোনো কন্ডিশনার লাগান।

প্রথম ধোয়াতেই দেখবেন আপনার চুলের রং অনেকখানি দূর হয়ে গেছে। বিশেষ করে বেকিং সোডা ব্যবহারের কারণে চুলের রং খুব দ্রুত মুছে ফেলা যায়। এর কোনো পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া নেই। ফলে যেকোনো চুলের অধিকারীরা এটি ব্যবহার করতে পারে।

সতর্কতা:

প্রথমবার ব্যবহারে চুলের রং সম্পূর্ণভাবে মুছে ফেলা না গেলেও, কয়েকবার এই পদ্ধতিতে চুল ধুলে রং দূর হয়ে যাবে।

চুল ধোয়ার সময় গরম পানি ব্যবহার করার চেষ্টা করুন। খুব বেশি নয়, কুসুম গরম পানি ব্যবহার করুন। এটি হয়তো আপানার চুলকে রুক্ষ করে দিবে। কিন্তু কন্ডিশনার ব্যবহারে রুক্ষতা কমে যাবে।

চুল রং করার পর যদি তা পছন্দ না হয় তাহলে দ্রুত রং মুছে ফেলার ব্যবস্থা করতে হবে। কারণ একবার রং স্থায়ীভাবে চুল বসে গেলে তা মুছে ফেলা কঠিন হয়ে যায়।

চুলে বেকিং সোডা ব্যবহার করার পর অব্যশই কন্ডিশনার ব্যবহার করতে হবে। এটি চুল রুক্ষতা দূর করে চুলকে করে তোলে নরম কোমল।

চুলের রং মুছে ফেলার পর অত্যন্ত ৩ দিন অপেক্ষা করুন। ৩ দিন পর চুলে নতুন কোনো ট্রিটমেণ্ট করাতে পারবেন।

ইসি/এএসটি