ত্বকের যত্নে প্রাচীন পদ্ধতি  

ঢাকা, ৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ | 2 0 1

ত্বকের যত্নে প্রাচীন পদ্ধতি  

পরিবর্তন ডেস্ক ১:১৩ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১৬, ২০১৯

ত্বকের যত্নে প্রাচীন পদ্ধতি  

প্রাচীনকালে এসময়ের মতো এত গ্লামারাস রূপচর্চা সামগ্রী  ছিল না আর যা ছিল তা হয়ত সৌন্দর্য পিপাসু নারীদের নাগাল সীমার মধ্যেও ছিল না। আপনি যদি কখনো আপনার দাদী বা নানীর সাথে গল্প করলে জানতে পারবেন তারা কি দিয়ে তাদের সৌন্দর্য ধরে রেখেছিলেন! প্রাচীন কালের উপকরণ আজও ব্যবহার করা হচ্ছে নারীদের রূপচর্চায়। প্রাচীন সেই রূপচর্চার সবচেয়ে শক্তিশালী দিক হচ্ছে সব কিছুই ন্যাচারাল এবং সস্তা। আজ আমরা সেযুগের কিছু উপকরণের কথাই জানবো যা এই সময়েও বহুল ব্যবহার করা হয়। জেনে নেই সৌন্দর্য চর্চার সেই প্রাচীন পন্থাগুলো।

তৈলাক্ত ত্বকের যত্নে গমের আটার ব্যবহার: তৈলাক্ত ত্বক পরিষ্কার করার জন্য প্রধান উপাদান ছিলো গমের আটা। এই গমের আটার সাথে দুধ বা পানি মিশিয়ে তৈরি পেস্ট তৈলাক্ত ত্বক পরিষ্কারে বেশ উপযোগী।

কাঁচা হলুদের ব্যবহারঃ হলুদে আছে অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল অ্যান্টিসেপটিক এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্টাল উপাদান যা একত্রে মুখের দাগ দূর করে এবং একনে প্রতিহত করে। হলুদের ক্রমাগত ব্যবহার ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে সাহায্য করে। কাঁচা হলুদ আজকাল সারা বছর বাজারে পাওয়া যায়। তাই কাঁচা হলুদ কে যেমন প্রাচীন কালে রূপচর্চায় ব্যবহার করা হয়েছে সমান তালে এসময়ও রূপচর্চায় কাঁচা হলুদের ব্যবহার ব্যাপক।

নারকেল তেলকে কন্ডিশনার হিসেবে ব্যবহারঃ  চুলকে নরম রেশমি স্বাস্থ্যকর করে তুলতে আদিমকাল থেকেই নারকেল তেল ব্যবহৃত হয়ে আসছে। তাই বাজারে অন্য যেকোনো রাসায়নিক কন্ডিশনার থেকে নারকেল তেল কন্ডিশনার হিসেবে অনন্য। বাজারে চুলের জন্য অনেক তেল রয়েছে কিছু নারকেল তেল চুলের জন্য অনেক ভালো এবং এটি কন্ডিশনারের কাজ কোরে থাকে।

মধুর ফেইসপ্যাকঃ প্রাচীণ কাল থেকে রূপচর্চায় মধুর গুনাগুন অতুলনীয়। মধুর ফেইসপ্যাক ব্যবহারে ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়ে যা আপনি নিমিষেই করে দেখতে পারেন।

চোখের নিচের কালো দাগ দূর করতে আলুর ব্যবহারঃ নানী দাদীর কাছে গল্প তো শুনছেনই যে চোখের নিচের কালো দাগ দূর করতে আলু তুলুনাহীন। এটি চোখের নিচের ফোলাভাবও দূর করে। শুধু যা করতে হবে তা হল আলু পাতলা করে কেটে এটিকে ধুয়ে চোখের উপরে ৫-১০ মিনিট রেখে দিতে হবে এবং নিয়মিতভাবে এটি করতে হবে তাহলে দেখবেন চোখের নিচের কালো দাগ গায়েব।

ইসি/

 

রুপচর্চা: আরও পড়ুন

আরও