চোখে ক্লান্তির ছাপ দূর করুন সহজেই

ঢাকা, বুধবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৯ | ২৯ কার্তিক ১৪২৬

চোখে ক্লান্তির ছাপ দূর করুন সহজেই

পরিবর্তন ডেস্ক ১১:৪৯ পূর্বাহ্ণ, জুন ২৪, ২০১৯

চোখে ক্লান্তির ছাপ দূর করুন সহজেই

সুন্দর ও তীক্ষ্ণ দৃষ্টির চোখজোড়ার চাহিদা অবহেলা করা যায় না মোটেই। অথচ কাজের চাপে এই চোখ দুটোই অবহেলিত হয় সবচেয়ে বেশি। প্রযুক্তির শরণ নিয়ে সারা দিন কম্পিউটার বা মোবাইলের দিকে তাকিয়ে থাকার মতো বিষয় তো আছেই, তার উপর রয়েছে কাজের চাপে কম ঘুমের সমস্যাও। সূর্যের অতিবেগুনী রশ্মিও অনেকটাই ক্ষতি করে চোখের। উপযুক্ত যত্নের অভাবে চোখের চারপাশ জুড়ে বলিরেখা, ডার্ক সার্কল দেখা দেয়। শুরু হয় অকালেই চোখের নানা সমস্যা।

চোখ ভালো রাখতে গেলে যেমন মাঝে মাঝেই চিকিৎসকের পরামর্শ মেনে চলা উচিত, ঠিক তেমনই খাবারের খেয়াল রাখা উচিত। দৃষ্টিশক্তি বাড়ে এমন খাবার পাতে রাখা, চোখের জন্য নির্ধারিত কিছু ব্যায়াম ও নিয়ম মেনে চলাই পারে চোখের সার্বিক স্বাস্থ্য ভাল রাখতে।

চোখের উপর প্রথমে তুলো দিয়ে অলিভ অয়েল লাগিয়ে নিন। ৫ মিনিট রেখে এ বার তার উপরে ঠান্ডা টি ব্যাগ চোখের উপরে বেশ কিছু ক্ষণ চেপে ধরে থাকুন। এতে চোখ আরাম পাবে।

কাজের চাপে এখন অনেকেই রোজ ৮ ঘণ্টা ঘুমোতে পারেন না। ফলে ঘোলাটে চোখ, আই ব্যাগ ইত্যাদি সমস্যায় ভুগতে হয়। এ ক্ষেত্রে দুটো চামচ ডিপ ফ্রিজে রেখে তা ঠান্ডা করুন। তার পরে সেই চামচ দুটি দুচোখে চেপে ধরে রাখুন। দ্রুত আইব্যাগ দূর হবে। চোখ উজ্জ্বল দেখাবে।

বেশ কিছুক্ষণ কম্পিউটারের সামনে বসে কাজ করলে অবশ্যই প্রতি এক ঘণ্টায় অন্তত ১০ মিনিটের বিরতি নিন। এই সময়টা সবুজ গাছের দিকে তাকিয়ে থাকুন। এতে চোখ সুন্দর থাকে।

একটানা কম্পিউটার বা মোবাইল ব্যবহার করলে মাঝে মাঝেই চোখের পলক ফেলুন। এমনিতে চোখের তেমন কোনো সমস্যা না থাকলে স্বাভাবিক শারীরবৃত্তীয় প্রক্রিয়াতেই ঘন ঘন চোখের পলক পড়ে। যদি একটানা চোখের পরিশ্রমের কাজ করেন, তবে এই পলক ফেলার কাজটি নিজেও চেষ্টা করে করুন। এক মিনিট ঘন ঘন চোখের পাতা ফেলা একটি ব্যায়ামের মতো কাজ করে। এতে চোখ বেশি ক্ষণ শুষ্ক থাকে না।

চোখ আর্দ্র রাখা জরুরি। তাই চোখের উপরে গোল করে কাটা শশা বা আলু রেখে শুয়ে থাকুন। নিয়মিত করলে চোখ উজ্জ্বল হয়ে উঠবেই।

বেরি জাতীয় ফল, ছোট মাছ, গুগলি ইত্যাদি যা চোখকে সতেজ রাখতে সাহায্য করে, সে সব খান।

মানসিক চাপ থাকবেই, তবু যা যাতে শরীরে প্রভাব বিস্তার করতে না পারে তার জন্য নানা ব্যায়াম রয়েছে। বিশেষজ্ঞদের থেকে সেই সব ব্যায়ামের পরামর্শ নিয়ে প্রতি দিন নিজেকে মানসিক চাপ থেকে দূরে রাখুন। সঙ্গে ঘুমের সঙ্গেও কোনও আপস চলবে না।

ইসি/

 

রুপচর্চা: আরও পড়ুন

আরও