‘বৈশ্বিক উষ্ণতা ভয়াবহ পরিণাম ডেকে আনবে’

ঢাকা, শনিবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯ | ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

‘বৈশ্বিক উষ্ণতা ভয়াবহ পরিণাম ডেকে আনবে’

পরিবর্তন ডেস্ক ৮:৫৭ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ০২, ২০১৯

‘বৈশ্বিক উষ্ণতা ভয়াবহ পরিণাম ডেকে আনবে’

জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় উষ্ণতা নিয়ন্ত্রণে বিশ্বে পর্যাপ্ত কাজ করা হচ্ছে না উল্লেখ করে জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্থনিও গুতেরেস বলেছেন, এমন বিপজ্জনক আশঙ্কা রয়েছে যে, আমরা এমন পরিস্থিতির দিকে চলে যেতে পারি যেখান থেকে হয়তো ফিরে আসার সুযোগ থাকবে না।

সোমবার স্পেনে আন্তর্জাতিক জলবায়ু সম্মেলনের শুরুর আগে জাতিসংঘ মহাসচিব এসব বলেন। কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা এ খবর জানিয়েছে।

সম্প্রতি বিশ্ব আবহাওয়া সংস্থার (ডব্লিউএমও) প্রতিবেদন অনুসারে, পৃথিবীর বায়ুমণ্ডলে কার্বন ডাই অক্সাইড ও অন্য গ্রিনহাউস গ্যাসের উপস্থিতি রেকর্ড ছাড়িয়ে গেছে। গত এক দশকের গড় বৃদ্ধির চেয়ে গত বছর বেশি বেড়েছে কার্বন ডাই অক্সাইডের পরিমাণ। এছাড়া তাপমাত্রা বৃদ্ধিতে ভূমিকা রাখা মিথেন ও নাইট্রাস গ্যাসের পরিমাণও বেড়েছে।

জাতিসংঘ মহাসচিব বলেন, জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় বিশ্বের প্রচেষ্টা ‘নিতান্তই অপ্রতুল’। তাপমাত্রা বৃদ্ধির হার এখন অনেক বেশি এবং এর প্রভাবে আবহাওয়াও অনেক বিরুপ হয়ে গেছে। সারাবিশ্বেই এই পরিবর্তন টের পাওয়া যাচ্ছে। মানবজাতিসহ প্রাণিকূলের ওপর যা ভয়াবহ পরিণাম ডেকে আনবে।

মাদ্রিদে শুরু হতে যাওয়া জাতিসংঘের জলবায়ু সম্মেলনে বৈশ্বিক কার্বন বাজারের নীতিমালা প্রণয়নে গুরুত্ব দেয়া হবে।

গুতেরেস বলেন, ‘বৈশ্বিক উষ্ণতা মোকাবিলায় বৈজ্ঞানিক ও কারিগরি সক্ষমতা বিশ্বের আছে। কিন্তু এটি বাস্তবায়নে রাজনৈতিক সদিচ্ছার অভাব রয়েছে।’

মহাসচিব বলেন, ‘ফিরে না আসার অবস্থা’ বসে নেই। এটি যেন আমাদের দিকে তেড়ে আসছে।  প্রকৃতির বিরুদ্ধে আমাদের যুদ্ধ বন্ধ করতে হবে এবং আমরা জানি যে এটি সম্ভব।

গুতেরেস আরো বলেন, ‘বিশ্বের ৭০টি দেশ জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবে ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে। সবাই একযোগে কাজ করার অঙ্গীকার করেছে। তবে আমরা স্পষ্ট দেখতে পাচ্ছি, বিশ্বের বড় কার্বন নিঃসরণকারী দেশগুলো যথাযথ ভূমিকা রাখছে না।’

তাদের সহায়তা ছাড়া আমাদের লক্ষ্য অর্জন সম্ভব নয় বলেও মন্তব্য করেন জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্থনিও গুতেরেস।

ওএস/এইচআর

 

ইউরোপ: আরও পড়ুন

আরও