আলবেনিয়ায় শক্তিশালী ভূমিকম্পে নিহত ২২

ঢাকা, বুধবার, ২২ জানুয়ারি ২০২০ | ৯ মাঘ ১৪২৬

আলবেনিয়ায় শক্তিশালী ভূমিকম্পে নিহত ২২

পরিবর্তন ডেস্ক ১২:১৪ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২৭, ২০১৯

আলবেনিয়ায় শক্তিশালী ভূমিকম্পে নিহত ২২

দক্ষিণ-পূর্ব ইউরোপের দেশ আলবেনিয়ায় কয়েক দশকের মধ্যে সবচে শক্তিশালী ভুমিকম্পে এখন পর্যন্ত অন্তত ২২ জন নিহত ও ৬৫০ জন আহত হয়েছেন। দেশটির প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় এই হতাহতের সংখ্যা নিশ্চিত করেছে।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, স্থানীয় সময় মঙ্গলবার ভোর ৪টার একটু আগে ৬ দশমিক ৪ মাত্রার এ ভূমিকম্পে রাজধানী তিরানাসহ দেশটির পশ্চিম ও উত্তরাঞ্চল প্রবলভাবে কেঁপে ওঠে, এতে বহু ভবন ভেঙে পড়ে বাসিন্দারা ধ্বংসস্তূপের নিচে চাপা পড়েন।

মার্কিন ভূ-তাত্তিক জরিপ সংস্থা জানিয়েছে, এই শক্তিশালী ভূমিকম্পটির উৎপত্তিস্থল ছিল রাজধানী তিরানা থেকে ১৩ কিলোমিটার দূরের বন্দর নহরী ডারেসে। ভূমিকম্পটি ভূ-পৃষ্ঠের আনুমানিক ২০ কিলোমিটার গভীরতায় আঘাত হানে বলে জানিয়েছে সংস্থাটি।

গত কয়েক দশকে ইউরোপের এই দেশটিতে এত ভয়াবহভাবে ভূমিকম্প আঘাত হানেনি। গণমাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশিত ছবিতে দেখা যাচ্ছে, যত্রতত্র ভবন ধসে পড়েছে।

বাড়ি, রাস্তা, দেয়াল যেন ধ্বংসস্তুপে পরিণত হয়েছে। ধ্বংসস্তূপের নিচে অনেকে চাপা পড়েছেন অনেকে। উদ্ধারকারীরা দল পরিস্থিতি সামাল দিতে কাজ করছেন।

আলবেনিয়ার প্রধানমন্ত্রী এডি রামা এক টুইটার বার্তায় নিহতের পরিবারের জন্য শোক ও সমবেদনা জানিয়েছেন।

এডি রামা জানান, শেষ পর্যন্ত ধৈর্য সহকারে উদ্ধার অভিযান চলবে। ব্যাপক প্রাণহানির পর ক্ষতিগ্রস্ত এলাকার মানুষের জন্য সরকারের পক্ষে সম্ভাব্য সর্বোচ্চ যা করা সম্ভব তা করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তিনি।

তিনি আরও জানান, ক্ষয়ক্ষতি মোকাবেলায় প্রতিবেশী ইউরোপীয় দেশের নেতারা সব ধরনের সাহায্য ও সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন। ইতোমধ্যে কসভো, ইতালি, ক্রোয়েশিয়া, গ্রিস, ফ্রান্স, রোমানিয়া এবং তুরস্কের জরুরি দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা দলের শতাধিক সদস্য ইতোমধ্যে আলবেনিয়ার উদ্ধারকারী দলের সঙ্গে যোগ দিয়েছে।

প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র জানিয়েছেন, উদ্ধার অভিযানে দমকল বাহিনীর সঙ্গে সেনাবাহিনীরও কাজ করছে প্রতিরক্ষামন্ত্রী ওল্টা জাকা বলেছেন, ভূমিকম্পের পর আরও অন্তত আড়াই শতাধিক ‘আফটার শক’ হয়েছে। যার মধ্যে দুটি ছিল ৫ মাত্রার। আহতদের চিকিৎসা চলছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

 

ইউরোপ: আরও পড়ুন

আরও