চিকিৎসায় নোবেল পেলেন তিন বিজ্ঞানী

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৯ | ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

চিকিৎসায় নোবেল পেলেন তিন বিজ্ঞানী

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ৪:১৭ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ০৭, ২০১৯

চিকিৎসায় নোবেল পেলেন তিন বিজ্ঞানী

চিকিৎসা ক্ষেত্রে অবদানের জন্য চিকিৎসা বিজ্ঞানে যৌথভাবে নোবেল পুরস্কার পেয়েছেন তিন বিজ্ঞানী। সোমবার এই তিন বিজ্ঞানীকে চিকিৎসা বিজ্ঞানে ২০১৯ সালের নোবেল পুরস্কার জয়ী হিসেবে ঘোষণা দেয়া হয়েছে।

চিকিৎসায় তিন নোবেলজয়ী বিজ্ঞানী হলেন- উইলিয়াম জি. কেলিন জুনিয়র, স্যার পিটার জে. র‌্যাটক্লিফ ও গ্রেগ এল. সেমেনজা।

তাদেরকে সম্মানি হিসেবে ১১ লাখ মার্কিন ডলারও দেওয়া হবে। প্রতিবছর মেডিসিনেই প্রথম নোবেল জয়ীদের নাম ঘোষণা করা হয়।

শরীরে কোষগুলো কীভাবে অক্সিজেনের সহজলভ্যতার সঙ্গে খাপ খায় তা নিয়ে যুগান্তকরী গবেষণার স্বীকৃতি হিসেবে তারা যৌথভাবে এ পুরস্কার পেয়েছেন।

উইলিয়াম জি. কেলিন জুনিয়র হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিসিনের অধ্যাপক। এর আগে তিনি বেশ কিছু সম্মানজনক পুরস্কার পেয়েছেন।

গ্রেগ এল. সেমেঞ্জা যুক্তরাষ্ট্রের জনস হপকিন্স ইউনিভার্সিটি স্কুল অব মেডিসিনের প্রফেসর পেডিয়াট্রিকস, রেডিয়েশন অনকোলজি, বায়োলজিকাল কেমিস্ট্রি, মেডিসিন ও অনকোলজি। এছাড়া তিনি ইন্সটিটিউট ফর সেল ইঞ্জিনিয়ারিং এর ভাস্কুলার প্রোগ্রামের পরিচালক হিসেবে কর্মরত আছেন।

ব্রিটিশ ডাক্তার ও সেল অ্যান্ড মলিউকুলার বায়োলজিস্ট স্যার পিটার জন র‌্যাটক্লিফ হাইপোক্সিয়ায় সেলুলার রিঅ্যাকশন নিয়ে কাজ করার কারণে বেশি পরিচিত।

গত বছর প্রাণঘাতী ক্যান্সারের চিকিৎসায় বৈপ্লবিক এক থেরাপি আবিষ্কারের ফলে চিকিৎসা বিজ্ঞানে যৌথভাবে নোবেল পুরস্কার পান মার্কিন ও জাপানি বংশোদ্ভূত দুই বিজ্ঞানী জেমস অ্যালিসন ও তাসুকু হনজু।

১৯০১ সালের পর থেকে এখন পর্যন্ত চিকিৎসাশাস্ত্রে নোবেল পুরস্কার দেয়া হয়েছে ১০৯ বার। এর মধ্যে ১২ বার চিকিৎসার নোবেল পেয়েছেন নারীরা। এছাড়া মাত্র একজন করে বিজয়ী এই পুরস্কার জিতেছেন ৩৯ বার।

চলতি বছর অসামান্য অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের ২২৩ জন ব্যক্তি ও ৭৮টি প্রতিষ্ঠান নোবেল পুরস্কারের জন্য মনোনয়ন পেয়েছে।

নোবেল কমিটিগুলোর ঘোষণা অনুযায়ী, ৮ অক্টোবর বিকেল পৌনে ৪টায় দ্য রয়্যাল ইনস্টিটিউট অব সায়েন্স থেকে পদার্থবিদ্যায়, ৯ অক্টোবর পৌনে ৪টায় রয়্যাল ইনস্টিটিউট অব সায়েন্স থেকে রসায়নবিদ্যায়, ১০ অক্টোবর বিকেল ৫টায় দ্য রয়্যাল সুইডিশ একাডেমি থেকে সাহিত্য এবং ১১ অক্টোবর নরওয়ের রাজধানী অসলো থেকে নরওয়েজিয়ান নোবেল কমিটি শান্তিতে নোবেল পুরস্কার বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করবে।

১৮৯৫ সালের নভেম্বর মাসে আলফ্রেড নোবেল তার মোট উপার্জনের ৯৪% (৩ কোটি সুইডিশ ক্রোনার) দিয়ে তার উইলের মাধ্যমে নোবেল পুরষ্কার প্রবর্তন করেন। এই বিপুল অর্থ দিয়েই শুরু হয় পদার্থ বিজ্ঞান, রসায়ন, চিকিৎসা বিজ্ঞান, সাহিত্য ও শান্তিতে নোবেল পুরস্কার প্রদান।

পরবর্তীতে ১৯৬৮তে তালিকায় যুক্ত হয় অর্থনীতি। পুরস্কার ঘোষণার আগেই মৃত্যু বরণ করেছিলেন আলফ্রেড নোবেল। আইনসভার অনুমোদন শেষে তার উইল অনুযায়ী নোবেল ফাউন্ডেশন গঠিত হয়। তাদের ওপর দায়িত্ব বর্তায় আলফ্রেড নোবেলের রেখে যাওয়া অর্থের সার্বিক তত্ত্বাবধায়ন করা এবং নোবেল পুরষ্কারের সার্বিক ব্যবস্থাপনা করা। আর বিজয়ী নির্বাচনের দায়িত্ব সুইডিশ একাডেমি আর নরওয়েজিয়ান নোবেল কমিটিকে ভাগ করে দেওয়া হয়।

ওএস/জেডএস/

 

ইউরোপ: আরও পড়ুন

আরও