ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী পদে সাজিদসহ ৯ নাম

ঢাকা, ২৯ মে, ২০১৯ | 2 0 1

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী পদে সাজিদসহ ৯ নাম

পরিবর্তন ডেস্ক ১০:৩১ অপরাহ্ণ, মে ২৪, ২০১৯

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী পদে সাজিদসহ ৯ নাম

ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী থেকে থেরেসা মে’র পদত্যাগের ঘোষণার পর কে হবেন পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী, তা নিয়ে শুরু হয়েছে জল্পনা।

মে আগামী ৭ জুন কনজারভেটিভ দলের নেতৃত্ব থেকে সরে দাঁড়াবেন। তার জায়গায় নতুন প্রধানমন্ত্রী নিয়োগের প্রক্রিয়া শুরু হবে পরের সপ্তাহে।

প্রথমে দু’জন কনজারভেটিভ এমপি সম্ভাব্য প্রধানমন্ত্রী প্রার্থীদের মনোনীত করবেন। যদি এতে কেবল একজন প্রার্থী মনোনয়ন পান, তাহলে তিনিই হবেন পরবর্তী নেতা।

কিন্তু, ইতোমধ্যে ধারণা করা হচ্ছে, পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী হওয়ার প্রতিযোগিতায় নামবেন বেশ কয়েকজন প্রার্থী। এদের মধ্যে মুসলিম সাজিদ জাভিদও রয়েছেন।

তাদের মধ্য থেকে সম্ভাব্য প্রার্থীদের তালিকা সংক্ষিপ্ত করে দু’জন প্রার্থীকে মনোনীত করবেন কজারভেটিভ সংসদ সদস্যরা।

এরপর সব দলের সদস্যদের ভোটাভুটির মাধ্যমে এই দু’জনের থেকে একজনকে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে বেছে নেয়া হবে।

গত সপ্তাহে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে মে’র অবস্থান অত্যন্ত দুর্বল হয়ে পড়ার পরপরই তার স্থলাভিষিক্ত হওয়ার জন্য অনেকে আগ্রহ প্রকাশ করেন বলে জানায় রাশিয়ান বার্তাসংস্থা আরটিই।

এদের মধ্যে থেকে ৯ জনের তালিকা নিচে দেয়া হলো—

সাজিদ জাভিদ
ব্রিটেনের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জাভিদ মনে করেন, প্রধানমন্ত্রী প্রার্থীর ‘কোনো কমতি’ হবে না। তিনি এই প্রতিযোগিতায় নামবেন কিনা তা জানার জন্যও অপেক্ষা করতে হবে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

তবে, শামীমা বেগমকে ব্রিটেনে ফেরত না নেয়ার সিদ্ধান্তসহ বেশকিছু মতামতের কারণে সাজিদ জাভিদ একজন জনপ্রিয় প্রার্থী হতে পারেন।

ম্যাট হ্যানক
স্বাস্থ্যমন্ত্রী হ্যানক বলেছেন, ব্রিটেনে এখন কেমন প্রধানমন্ত্রী দরকার তা নিয়ে তার কঠিন মতামত রয়েছে।

এস্থার ম্যাকভি
তিনি সাবেক ওয়ার্ক অ্যান্ড পেনশন সেক্রেটারি। তিনি মনে করেন, ব্রেক্সিটে বিশ্বাস করেন এমন একজনের পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী হওয়া দরকার।

বরিস জনসন
সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী এবং লন্ডনের মেয়র জনসন এই দৌড়ে সবচেয়ে জনপ্রিয় প্রার্থী হতে পারেন। তিনি ইতোমধ্যে এতে অংশ নেয়ার কথা নিশ্চিত করেছেন।

অ্যাম্বার রাড
ওয়ার্ক অ্যান্ড পেনশন সেক্রেটারি রাড প্রতিযোগিতায় নামার সম্ভাবনার কথা জানিয়েছেন।

রোরি স্টুয়ার্ট
ইন্তারনাস ডেভেলপমেন্ট সেক্রেটারি স্টুয়ার্ট গত মাসে দ্য স্পেক্টেটরকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে তার প্রধানমন্ত্রী হওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেন।

দেশের জন্য কাজ করার বিষয়ে তিনি খুবই আগ্রহী বলে জানান।

আন্দ্রেয়া লিডসম
কনজারভেটিভ দলের নেতৃত্ব দেয়ার কথা ‘গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা’ করছেন বলে আগেই জানিয়েছিলেন লিডসম।

তার মতে, ইইউতে ব্রিটেনের সদস্যপদ ‘অরুচিকর’ এবং এই সংস্থায় বিশ্বাস করেন না এমন একজন নেতৃত্ব দিলে ইতোমধ্যেই ব্রেক্সিট বাস্তবায়ন সম্ভব হতো।

জেরেমি হান্ট
পররাষ্ট্রমন্ত্রী জেরেমি হান্ট ব্রিটেনকে ইইউতে রাখার পক্ষপাতী। প্রধানমন্ত্রীত্বের দৌড়ে তিনি হবেন একজন মধ্যপন্থী নেতা।

লিজ ট্রাস
চিফ সেক্রেটারি অফ ট্রেজারি ট্রাস অল্প কয়েকজন নেতার একজন যিনি প্রধানমন্ত্রী হওয়ার ইচ্ছে সামাজিক মাধ্যম ব্যবহার করে জানিয়েছেন।

তার মতে, কনজারভেটিভ দলের নিজেকে ‘পুনঃআবিষ্কার’ করা প্রয়োজন।

এমআর/আইএম

আরও পড়ুন...
সভাপতি পদে থাকব না, মাকে জানালেন রাহুল

 

ইউরোপ: আরও পড়ুন

আরও