টুইটারে রূপান্তরকামীকে পুরুষ বলায় নারী গ্রেপ্তার

ঢাকা, ৫ জুলাই, ২০১৯ | 2 0 1

টুইটারে রূপান্তরকামীকে পুরুষ বলায় নারী গ্রেপ্তার

পরিবর্তন ডেস্ক ১০:২৮ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১০, ২০১৯

টুইটারে রূপান্তরকামীকে পুরুষ বলায় নারী গ্রেপ্তার

পুরুষ থেকে নারীতে রূপান্তরকামী এক ব্যক্তিকে টুইটারে পুরুষ বলে অভিহিত করায় ব্রিটেনে গ্রেপ্তার হয়েছেন এক নারী।

টুইটারে তর্কাতর্কির জেরে এই ঘটনা ঘটেছে বলে রোববার জানায় ব্রিটিশ পত্রিকা ডেইলি মেইল।

এতে বলা হয়, ৩৮ বছর বয়সী কেট স্কোটোকে তার বাচ্চাদের সামনেই ধরে নিয়ে যায় তিন পুলিশ অফিসার। এরপর সাত ঘণ্টা আটকে রেখে জেরা করা হয়।

হার্টফোর্ডশায়ারের বাসিন্দা কেটের ছবি, ডিএনএ নমুনা ও আঙুলের ছাপ রেখে দিয়েছে পুলিশ। তার বিরুদ্ধে এখন তদন্ত চলছে।

১ ডিসেম্বর কেটকে গ্রেপ্তারের সময় মোবাইল ও ল্যাপটপ জব্দ করা হয়, যা এখনও ফেরত দেয়া হয়নি। এতে ফরেনসিক সাইকোলজি বিষয়ে মাস্টার্সে অধ্যয়নরত কেটের লেখাপড়ার ব্যাঘাত ঘটছে বলে জানান তিনি।

মামসনেট নামের একটি অনলাইন ফোরামে কেট লেখেন, ‘আমার বাড়ি থেকে ১০ বছর বয়সী প্রতিবন্ধী মেয়ে আর ২০ মাসের ছেলের সামনে দিয়ে আমাকে গ্রেপ্তার করেছে তিন পুলিশ।’

‘টুইটারে একজনের লিঙ্গ সঠিকভাবে না বলায় আমাকে এই হয়রানি করা হয়েছে,’ যোগ করেন তিনি।

কোর্টের আদেশে কেট তার বিরুদ্ধে অভিযোগকারীকে ‘পুরুষ’ বলে সম্বোধন করতে পারবেন না।

হার্টফোর্ডশায়ার পুলিশ জানায়, তারা সব ক্ষতিকর যোগাযোগের অভিযোগ গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করে থাকে।

অনলাইনে জেন্ডার বা লিঙ্গবিষয়ক বিতর্কের ক্ষেত্রে পুলিশের কঠোর পদক্ষেপের সাম্প্রতিকতম নমুনা দেখা গেছে এই মামলায়।

স্টেফানি হেইডেন নামে একজনের অভিযোগের ভিত্তিতে কেটকে গ্রেপ্তার ও তার বিরুদ্ধে আদালতের নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে।

মামলার নথিতে বলা হয়, কেট দু’টি টুইটার একাউন্ট থেকে হেইডেনের বদনাম করেছে। তাকে পুরুষ বলে অভিহিত করা ছাড়াও ‘বর্ণবাদী ও বদমাইশ’ অভিহিত করেন তিনি।

এমআর/আইএম

 

ইউরোপ: আরও পড়ুন

আরও