শরণার্থী ঠেকাতে সীমান্তে আরও ১০ হাজার সেনা পাঠাবে ইইউ

ঢাকা, রবিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮ | ৮ আশ্বিন ১৪২৫

শরণার্থী ঠেকাতে সীমান্তে আরও ১০ হাজার সেনা পাঠাবে ইইউ

পরিবর্তন ডেস্ক ১০:৪২ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১২, ২০১৮

শরণার্থী ঠেকাতে সীমান্তে আরও ১০ হাজার সেনা পাঠাবে ইইউ

আগামী ২০২০ সালের মধ্যে অবৈধ অভিবাসন বন্ধ করতে সীমান্তে আরও ১০ হাজার সৈন্য মোতায়েনের পরিকল্পনা করছে ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন (ইইউ)।

বুধবার ইউরোপিয়ান পার্লামেন্টের বাৎসরিক ভাষণে একথা জানান ইউরোপিয়ান কমিশনের প্রেসিডেন্ট জাঁ-ক্লদ ইয়াঙ্কার।

শরণার্থীদের জাহাজগুলোতে থাকা মানুষদের জন্য বিভিন্ন প্রয়োজনে বিভিন্ন পদক্ষেপ না নিয়ে তাদের সঙ্গে সবাইকে সংহতি প্রকাশেরও আহ্বান জানান ইয়াঙ্কার।

ব্রিটিশ গণমাধ্যম বিবিসি জানিয়েছে, ইয়াঙ্কার ইউরোপিয়ান কমিশনের প্রেসিডেন্ট হিসেবে আরও ১২ মাস বহাল থাকবেন।

বাৎসরিক ভাষণে তিনি সন্ত্রাসবাদ ও ব্রেক্সিট নিয়েও কথা বলেন।

ইয়াঙ্কার আফ্রিকা-ইউরোপ জোট গঠনেরও প্রস্তাব দিয়েছেন। অনুদান সহায়তার বদলে মহাদেশ থেকে মহাদেশে মুক্তবাণিজ্যের ভিত্তিতে এই জোট গঠন করা হবে।

তিনি বলেন, ‘আমরা ইইউকে সামরিক করে তুলব না। আমরা শুধু আরও স্বাধীন হয়ে আমাদের বৈশ্বিক দায়িত্ব পালন করতে চাই।’

‘কেবল একটা শক্তিশালী ও ঐক্যবদ্ধ ইউরোপ আভ্যন্তরীণ ও বাইরের বিভিন্ন সন্ত্রাসী ও জলবায়ু পরিবর্তনের হুমকি থেকে আমাদের নাগরিককে রক্ষা করতে পারে’ যোগ করেন তিনি।

ইউরোপিয়ান বর্ডার অ্যান্ড কোস্টগার্ড এজেন্সি ফ্রন্টেক্সে বর্তমানে ১,৬০০ হাজার সীমান্তরক্ষী রয়েছে। ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের দেশগুলোর বিভিন্ন সীমান্তে এসব সীমান্তরক্ষী মোতায়েন করা আছে। নতুন আরও ১০ হাজার সৈন্য এতে যুক্ত করা হলে এটির আকার ও ক্ষমতা বহুগুণে বৃদ্ধি পাবে।

ইইউ সদস্যদেশগুলোতে আশ্রয়প্রার্থীদের আবেদন প্রক্রিয়াকরণে সাহায্য করতে ইউরোপিয়ান অ্যাসাইলাম এজেন্সিকে আরও উন্নত করারও ঘোষণা দেন ইয়াঙ্কার।

তিনি বৈধ পথে ইউরোপে যাওয়ার উপায়ের প্রয়োজনীয়তার কথাও জানান তিনি। ‘আমাদের দক্ষ অভিবাসী দরকার’ বলেন ইয়াঙ্কার।

গত ২০১৪ সালে ইয়াঙ্কার দায়িত্বগ্রহণের পর থেকে ইউরোপে শরণার্থী ও অভিবাসন অন্যতম সংকট হয়ে দেখা দেয়।

এমআর/এমএসআই