রাজবাড়ীতে ধান লুট ও ঘরে আগুন দেওয়ার অভিযোগ

ঢাকা, শনিবার, ৭ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

রাজবাড়ীতে ধান লুট ও ঘরে আগুন দেওয়ার অভিযোগ

রাজবাড়ী প্রতিনিধি ৬:৩২ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৪, ২০১৯

রাজবাড়ীতে ধান লুট ও ঘরে আগুন দেওয়ার অভিযোগ

রাজবাড়ীর পাংশা উপজেলার মৌরাট ইউপির ধুলিয়াট গ্রামের এক কৃষকের ক্ষেত থেকে জোর করে ধান কেটে নেয়া ও বাড়িতে আগুন দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে সাইফুজ্জামান আজম নামে এক আইনজীবীর বিরুদ্ধে।

বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৬টার দিকে এই ঘটনা ঘটে।ভূক্তভোগি কৃষকের নাম নজরুল ইসলাম খান।

ভূক্তভোগির ছেলে রাজিব খান বলেন, বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৬টার দিকে একই এলাকার আইনজীবী সাইফুজ্জামান আজমের নেতৃত্বে ২৫-৩০ জন ভাড়াটিয়া লোকজন এনে আতঙ্ক সৃষ্টি করে জোর করে ১৩৩ শতাংশ জমি থেকে ধান কেটে নেয়। পরে যা্ওয়ার সময় আমাদের রান্না ঘরেও আগুন লাগিয়ে দেয়।

পরিবারের লোকজন প্রতিরোধ করতে আসলে তাদের মারধর করে। এসময় হামলাকারীরা ভাবীর গলায় থাকায় সোনার গহণা ছিনিয়ে নেয়।

আগুনে ঘর পুড়তে দেখে স্থানীয়রা এগিয়ে এসে আগুন নিয়ন্ত্রণ আনে।হামলাকারীদের মধ্যে কয়েকজন হেলমেট পরিহিত অবস্থায় ছিলো। খবর পেয়ে পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

তিনি অভিযোগ করে আরো বলেন, আমাদের সঙ্গে জমিজমা নিয়ে বিরোধ রয়েছে। আইনজীবী হওয়ায় তিনি আমাদের বিভিন্ন ভাবে মামলা দিয়ে হয়রানী করছেন। হয়রানী করার জন্য পাংশা থানা, রাজবাড়ীর আদালত, মানিকগঞ্জের আদালতসহ বিভিন্ন স্থানে ভুয়া মামলা দায়ের করেছেন তিনি।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সকালে তিনটি ইজিবাইকে করে ২০-২৫ জন লোক জমি থেকে ধান কেটে সাইফুজ্জামানের বাড়িতে নিয়ে যায়।পরে পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে সবাই পালিয়ে যায়।

অন্যদিকে, সাইফুজ্জামান আজম ধান কাটা ও অগ্নি সংযোগ বিষয়ে অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ওই জমির হাল রেকর্ড আমার নামে। আমি এসব জমি পৈত্রিক সূত্রে পেয়েছি। আমি নিজের জমি থেকে ধান কেটেছি। বরং তারা আমার পুকুর থেকে মাছ নিয়ে গেছে। আমি তাদের বিরুদ্ধে ফৌজদারী মামলা দায়ের করেছি। মামলাটি বিচারাধীন রয়েছে। বরং প্রভাব খাটিয়ে আমার বিরুদ্ধে তারা বিভিন্ন মামলা দায়ের করেছে।

পাংশা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আহসান উল্লাহ বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। এলাকার পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। ধান স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানের জিম্মায় দেওয়া হয়েছে। উভয় পক্ষকে সহিংসতা এড়ানোর জন্য বলা হয়েছে। বিকেল পর্যন্ত কোনো মামলা দায়ের বা কাউকে আটক করা হয়নি।

এমএইচ/এমকে

 

ঢাকা: আরও পড়ুন

আরও