বাস খাদে পড়ে নিহত ২, উদ্ধার করতে গিয়ে যুবকের মৃত্যু

ঢাকা, রবিবার, ৮ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

বাস খাদে পড়ে নিহত ২, উদ্ধার করতে গিয়ে যুবকের মৃত্যু

শরীয়তপুর প্রতিনিধি ৪:৩৩ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১২, ২০১৯

বাস খাদে পড়ে নিহত ২, উদ্ধার করতে গিয়ে যুবকের মৃত্যু

শরীয়তপুরের ডামুড্যায় একটি যাত্রাবাহী বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে নারী-শিশুসহ খাদে পড়ে দুজন নিহত হয়েছে। এসময় আহত হয়েছেন আরও অন্তত ২৫ জন।

পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস ও স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে ডামুড্যা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সসহ স্থানীয় বিভিন্ন প্রাইভেট ক্লিনিকে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

এদিকে নিহত ও আহতদের উদ্ধার করতে গিয়ে হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মারা যান জুলহাস নামে একজন।

মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে শরীয়তপুরের ডামুড্যা উপজেলার খেজুরতলা এলাকায় ডামুড্যা-শরীয়তপুর সদর সড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন উপজেলার সিড্যা ইউনিয়নের সিড্যা গ্রামের নুরুজ্জামান মুন্সীর ছেলে ও জীবন বিমা কর্পোরেশনের শরীয়তপুরের ইনচার্য কামরুজ্জামান মাহমুদ মুন্সী (৪৫), দক্ষিণ ডামুড্যা গ্রামের তমিজউদ্দিন পাইকের ছেলে আমেরিকান প্রবাসী ইয়াকুব পাইক (৮০) ও ডামুড্যা পৌরসভার কুলকুড়ি গ্রামের খালেক মোল্যার ছেলে জুলহাস মোল্যা (২৮)।

ডামুড্যা থানা পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার সকাল সোয়া ৯টার দিকে ডামুড্যা উপজলা সদর থেকে একটি যাত্রীবাহী বাস শরীয়তপুর সদরের উদ্দেশে রওনা দেয়। পথিমধ্যে শরীয়তপুর-ডামুড্যা সড়কের খেজুরতলা এলাকায় পৌঁছলে চালক নিয়ন্ত্রণ হারান। এতে বাসটি সড়কের পাশের খাদে পড়ে যায়। ঘটনাস্থলেই নিহত হন বাসের যাত্রী কামরুজ্জামান এবং পরে গুরুতর আহত অবস্থায় উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা নেয়ার সময় মারা যান আমেরিকান প্রবাসী ইয়াকুব পাইক।

পরে দুর্ঘটনায় নিহত ও আহতদের উদ্ধার করতে গিয়ে হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মারা যান স্থানীয় জুলহাস। এসময় বাসে থাকা খোকন হাওলাদার (৫০), নুরুল ইসলাম (৫০), নিপা কর্মকার (২৮), মমতা বেগম (৩৮), গবিন্দ (৪৫), মনির হোসেন (২৬), রোকেয়া (২৮), আয়েশা বেগম (২৫), আব্দুল হালিম (৫২), শফিকুল ইসলাম (৬২), খোরশেদ খান (৩৫), ফজলুল করীম শেখ (৪৭), আব্দুর রশদি মাদবর (৬০), মাইনুদ্দিন মাদবর (৬০), নিপা (১৮) ও রফিক সরদার (৫৫)সহ  অন্তত ২৫ যাত্রী আহত হয়েছেন।

সংবাদ পেয়ে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের লোকজন গিয়ে হতাহতদের উদ্ধার করে। আহতদের ডামুড্যা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সসহ স্থানীয় বিভিন্ন প্রাইভেট ক্লিনিকে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (গোসাইরহাট সার্কেল) মো. মোহাইমিনুল ইসলাম পরিবর্তন ডটকমকে বলেন, কামরুজ্জামান ও ইয়াকুব দুর্ঘটনায় মারা যান। মরদেহ ও আহতদের উদ্ধার করতে গিয়ে হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মারা যান জুলহাস। আহত লোকজনকে ডামুড্যা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও বিভিন্ন ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়েছে।

এইচআর

 

ঢাকা: আরও পড়ুন

আরও