প্রেমের প্রস্তাবে রাজী না হওয়ায় অষ্টম শ্রেণির ছাত্রীকে কুপিয়ে জখম

ঢাকা, বুধবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৯ | ২৯ কার্তিক ১৪২৬

প্রেমের প্রস্তাবে রাজী না হওয়ায় অষ্টম শ্রেণির ছাত্রীকে কুপিয়ে জখম

শরীয়তপুর প্রতিনিধি ৬:৫৭ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৪, ২০১৯

প্রেমের প্রস্তাবে রাজী না হওয়ায় অষ্টম শ্রেণির ছাত্রীকে কুপিয়ে জখম

প্রেমের প্রস্তাবে রাজী না হওয়ায় শরীয়তপুর শহরের পালং উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির সুরভী নামের এক ছাত্রীকে কুপিয়ে জখম করেছে  রিফাত নামের এক বখাটে।

সোমবার দুপুর ১২টার দিকে বিদ্যালয় ছুটি শেষে  সুরভী বাড়ী ফেরার পথিমধ্যে শরীয়তপুর পৌরসভার উত্তার বিলাসখা গ্রামের মোখলেছ ছৈয়ালের বাড়ীর পূর্ব পাশে ফাকা রাস্তায় রিফাত তার গতিরোধ করে ছুরি দিয়ে পিঠে আঘাত করে পালিয়ে যায়। আহত সুরভীকে স্থানীয়রা দ্রুত শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। অভিযুক্ত রিফাতকে আটক করতে অভিযান শুরু করেছে পুলিশ।

ছাত্রীর পরিবার ও স্থানীয়রা জানায়, বিলাশখান গ্রামের মৃত কবির শিকদারের ছেলে মনিরুজ্জামান রিফাত শিকদার দীর্ঘদিন আগে থেকে সুরভি আক্তারকে প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে আসছিল। সুরভী তার প্রস্তাবে সারা না দেয়ায় আজ সোমবার দুপুর ১২টার দিকে স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথে সুরভীর গতি রোধ করে।

এসময় রিফাত তার হাতে থাকা ধারালো ছুড়ি দিয়ে আঘাত করে পালিয়ে যায়। তখন স্থানীয়রা সুরভীকে উদ্ধার করে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করে।

সুরভির বড় বোন মিতু আক্তার জানান, দীর্ঘদিন যাবত বখাটে রিফাত আমার বোনকে প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে আসছিল। স্কুলে আশা যাওয়ার পথে রিফাত তার বন্ধুদের নিয়ে তাকে বিরক্ত করতো। তার প্রস্তাবে রাজী না হওয়ায় সুরভীকে খুন করারও হুমকি দিয়ে আসছিল রিফাত। আজ আমার বোনকে রাস্তায় একা পেয়ে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়। আমরা রিফাতের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি দাবি করছি।

পালং উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল হালিম বলেন, স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথে সুরভীকে যে ছুরিকাঘাত করেছে তাকে দ্রুত আটক করে দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবি করছি।

পালং মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি)  মো. আসলাম উদ্দিন বলেন, সংবাদ পাওয়ার সাথে সাথে ঘটনা স্থালে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। এখনো কোন মামলা না হলেও অভিযুক্তকে আটকের জন্য পুলিশ জোর তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে। মামলা হলে পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এমএইচ

 

ঢাকা: আরও পড়ুন

আরও