আশুলিয়ায় গার্মেন্টসকর্মীসহ ২ তরুণীকে ধর্ষণ, গ্রেফতার ৩

ঢাকা, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ | 2 0 1

আশুলিয়ায় গার্মেন্টসকর্মীসহ ২ তরুণীকে ধর্ষণ, গ্রেফতার ৩

সাভার প্রতিনিধি ৫:৩৩ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১০, ২০১৯

আশুলিয়ায় গার্মেন্টসকর্মীসহ ২ তরুণীকে ধর্ষণ, গ্রেফতার ৩

সাভারের আশুলিয়ায় গভীর রাতে পৃথক ঘটনায় এক গার্মেন্টসকর্মীসহ দুই তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় পুলিশ ৩ জনকে গ্রেপ্তার করেছে। উভয় ঘটনায় আশুলিয়া থানায় পৃথক দুটি মামলাও দায়ের করা হয়েছে।

সোমবার দিবাগত গভীর রাতে উত্তর গাজীরট ভূইয়াপাড়া এলাকার ফজল ভূইয়ার মালিকানাধীন বাড়ি ও একটি পরিত্যক্ত কারখানায় পৃথকভাবে দুইটি ঘটনা ঘটে।

গার্মেন্টসকর্মী তরুণীকে ধর্ষণের ঘটনায় গ্রেপ্তাররা হলেন- শেরপুর জেলার সদর থানার সাতমাড়িয়া গ্রামের মৃত মুরাদ হোসেনের ছেলে কাইয়ুম ও পাবনা জেলার ঈশ্বরদী থানার মুসোরিয়া গ্রামের নুর মোহাম্মদের ছেলে তুহিন আলম। তুহিন ফজল ভূইয়ার বাড়ির ম্যানেজার।

এছাড়া অপর তরুণী ধর্ষনের ঘটনায় গ্রেপ্তার হয়েছেন, বি-বাড়িয়া জেলার কসবা থানার গানপুর গ্রামের আলী হোসেনর ছেলে সারফিন।

আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) ফজিকুল ইসলাম জানান, ১৯বছর বয়সী গার্মেন্টসকর্মী ওই তরুণীকে দীর্ঘদিন ধরে ফোন করে কুপ্রস্তাব দিয়ে আসছিল কাইয়ুম নামের স্থানীয় এক ব্যক্তি। কিন্তু ওই তরুণী এতে সাড়া না দেওয়ায় উত্তর গাজীরচট এলাকার ফজল ভূইয়ার বাড়ির ম্যানেজার তুহিনের সাথে পরিকল্পনা করে, রাতে ওই তরুণীকে কর্মস্থল থেকে বাসায় ফেরার পথে মুখে ক্লোরোফর্ম দিয়ে অচেতন করে তুলে নিয়ে যায় তারা। এরপর রাতভর ধর্ষণ করে পালিয়ে যায় তারা। পরে ভুক্তভোগী নারী থানায় অভিযোগ করলে রাতেই উত্তর গাজীরচট এলাকা থেকে তাদের গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

অন্যদিকে উপ-পরিদর্শক (এসআই) মমিনুল হক বলেন, কারখানায় চাকরি দেওয়ার কথা বলে প্রায় ২০ বছর বয়সী এক তরুণীকে ডেকে পরিত্যক্ত কারখানায় নিয়ে যায় সারফিন নামে এক যুবক। পরে আরেকজনের সহযোগিতায় ওই নারীকে সেখানে আটকে রেখে ধর্ষণ করে পালিয়ে যায় সে। ভুক্তভোগী নারীর অভিযোগের ভিত্তিতে রাতেই সারফিনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

মঙ্গলবার দুপুরে গ্রেপ্তার তিনজনকে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে বলেও জানিয়েছে পুলিশ।

এসএ/পিএসএস

 

ঢাকা: আরও পড়ুন

আরও