স্বামীর লাশ দেখে স্ত্রীরও মৃত্যু

ঢাকা, ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ | 2 0 1

স্বামীর লাশ দেখে স্ত্রীরও মৃত্যু

টাঙ্গাইল প্রতিনিধি ৯:২৯ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১৮, ২০১৯

স্বামীর লাশ দেখে স্ত্রীরও মৃত্যু

টাঙ্গাইলের নাগরপুরে স্বামীর লাশ দেখে হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে স্ত্রী হালিমা বেগমেরও (৫৬) মৃত্যু হয়েছে। মাত্র এক ঘণ্টার ব্যবধানে স্বামী-স্ত্রীর মৃত্যুর ঘটনায় স্বজন ও প্রতিবেশীদের মাঝে নেমে এসেছে শোকের ছায়া।

শনিবার রাতে উপজেলার ভাড়রা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানায়, উপজেলার ভাড়রা গ্রামের আজমত মিয়া (৭০) শনিবার সন্ধ্যায় নিজ বাড়িতে বার্ধক্যজনিত রোগে মৃত্যুবরণ করেন।

টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন স্থানীয় সন্ত্রাসী হামলায় আহত মৃত আজমত মিয়ার একমাত্র ছেলে সুমন (২০) ও তার মা বাড়িতে আসছিল।

পথিমধ্যেই স্বামীর মৃত্যুর সংবাদ পান তিনি। রাতে বাড়িতে এসে স্বামীর লাশ আর আহত ছেলের অবস্থা ভেবে হালিমা বেগম হার্ট অ্যাটাক করে ঘটনাস্থলেই মারা যান।

স্থানীয় সমাজসেবক নজরুল ইসলাম বলেন, নিহত আজমত মিয়া এলাকার অত্যন্ত নিরীহ ব্যক্তি ছিলেন। একই দিনে একঘণ্টার ব্যবধানে স্বামী-স্ত্রীর মৃত্যু একটি মর্মস্পর্শী ঘটনা।

নিহত হালিমার ভাই আব্দুর রহিম মাস্টার বলেন, একদিকে স্বামীর লাশ অন্যদিকে স্থানীয় সন্ত্রাসী শাহীন, রিপন মিয়া ও আলাউদ্দিন দ্বারা হামলায় আহত একমাত্র ছেলে সুমনকে দেখে প্রচণ্ড মানসিক আঘাত পান। এ ঘটনায় হৃদযন্ত্র ক্রিয়া বন্ধ হয়ে তিনি মারা যান। ওই রাতেই সামাজিক কবরস্থানে স্বামী-স্ত্রীর লাশ দাফন করা হয়।

এ ব্যাপারে নাগরপুর থানার ওসি আলম চাঁদ বলেন, স্বামী-স্ত্রীর মৃত্যুর খবর শুনে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। নিহতের ছেলে সুমনের ওপর হামলা ঘটনায় অভিযোগ পেলে দোষীদের আইনের আওতায় আনা হবে।

এইচআর

 

ঢাকা: আরও পড়ুন

আরও